**   রোহিঙ্গা ইস্যুতে ট্রাম্পের সাহায্য আশা করি না: প্রধানমন্ত্রী **   প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে সীমাহীন দূর্নীতির অভিযোগ ॥ উলিপুর কাঁঠালবাড়ী দ্বিমূখী উচ্চ বিদ্যালয় ৩ ধরে তালা বন্ধ **   উলিপুরে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত শিশুসহ ২৩ জন **   কুড়িগ্রামের ফুলবাড়িতে ধরলার স্রোতে ভেসে যাওয়া ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার **   থানাহাট বাজার আদর্শ বণিক কল্যাণ সংস্থার কার্যনির্বাহী পরিষদের ভোট গ্রহণ সম্পন্ন ॥ সভাপতি মঞ্জু, সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান **   ভূরুঙ্গামারীতে ৫ কেজি গাঁজাসহ আটক ২ **   চিলমারীতে সামাজিক নিরাপত্তাবেষ্টনী বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত **   থানাহাট বাজার আদর্শ বণিক কল্যাণ সংস্থার কার্যনির্বাহী পরিষদের ভোট গ্রহণ চলছে **   ‘গিভ অ্যান্ড টেকের প্রস্তাব অনেক পেয়েছি’ **   নিউ ইয়র্কে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

ঈদে বাড়ি ফেরা নির্বিঘœ হোক

চিলমারী  ॥ বুধবার ॥ ০৭ আগষ্ট, ২০১৩ খ্রিঃ

ঈদুল ফিতর দোরগোড়ায়। রাজধানীর লাখ লাখ মানুষ গ্রামের বাড়ির উদ্দেশে যাত্রা শুরু করেছেন। সবার যাত্রা নির্র্বিঘœ হোক, আমাদের স্বাভাবিক প্রত্যাশা এটিই। দুর্ভাগ্যজনক যে, অধিকাংশ ক্ষেত্রেই এ প্রত্যাশা পূরণ হয় না। এবারও তার আলামত পাওয়া যাচ্ছে। রোববার ছিল ট্রেনে ও বাসের অগ্রিম টিকিটে যাত্রার প্রথম দিন। প্রথম দিনেই সড়কপথে বিভিন্ন স্থানে মানুষকে দুর্ভোগে পড়তে হয়েছে। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লা অংশে রোববার ৫০ কিলোমিটার যানজটের সৃষ্টি হয়েছিল দুটি দুর্ঘটনার কারণে। এর ফলে ঢাকা ও চট্টগ্রাম দুদিকেরই যানবাহন ৫-৬ ঘণ্টা আটকে ছিল। ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক এমনিতেই খানাখন্দে ভরা। তার ওপর মহাসড়ক চার লেন করার কাজ চলায় যানবাহন কয়েকটি বিকল্প পথ দিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে। সেসব পথে তেরি হয়েছে বড় বড় গর্ত। ফলে যানবাহন চালাতে হচ্ছে ধীরগতিতে। এক্ষেত্রে ঘরমুখো যাত্রীদের ২-৩ ঘণ্টার যাত্রা শেষ হতে ৫-৬ ঘণ্টা লেগে যাচ্ছে।
সড়ক ও জনপথ অধিদফতরের হিসাব অনুযায়ী সারাদেশে সড়ক ও মহাসড়ক রয়েছে প্রায় ১৮ হাজার কিলোমিটার। এর মধ্যে সাড়ে ৩ হাজার কিলোমিটার মহাসড়ক, বাকিটা আঞ্চলিক ও জেলা পর্যায়ের সড়ক। দীর্ঘদিন মেরামত না হওয়ায় ও বৃষ্টির কারণে অনেক সড়কেই বড় বড় গর্ত সৃষ্টি হয়েছে। এসব ক্ষেত্রে যাত্রীদের দুর্ভোগ প্রায় অবধারিত। এদিকে বিভিন্ন রুটের কয়েকটি ট্রেনের যাত্রা বিলম্বিত হওয়ারও খবর রয়েছে। নৌপথে এ ধরনের সমস্যা দেখা না দিলেও সদরঘাট থেকে প্রতিটি লঞ্চ ছাড়ছে অতিরিক্ত যাত্রী বোঝাই করে। যে পথেই হোক, দুর্ভোগ-ভোগান্তি থেকে নিস্তার নেই ঘরমুখো মানুষের। হাজারও খানাখন্দ পেরিয়েই ঈদযাত্রীদের পৌঁছতে হবে গন্তব্যে।
প্রতি ঈদেই ঘরমুখো মানুষের দূর্ভোগের একটি বড় কারণ হয়ে দাঁড়ায় মহাসড়কে যানজট। যানজটের কারণগুলো যতটা সম্ভব দূর করার উদ্েযাগ নেয়া প্রয়োজন। যোগাযোগমন্ত্রী অবশ্য এ লক্ষ্যে কিছু পদক্ষেপ নেয়ার কথা বলেছেন। সেসবের কার্যকারিতা নিশ্চিত করা দরকার। সড়ক চার লেনে উন্নীত করা রাতারাতি সম্ভব নয়। তবে মহাসড়কের আশপাশ থেকে হাটবাজার উচ্ছেদ, কম গতির বাহন চলাচল বন্ধ এবং বিভিন্ন স্থানে বিশেষত বাসস্ট্যান্ডগুলোয় এলোপাতাড়ি যানবাহন পার্কিং রোধ করতে হবে কঠোরভাবে। অতীতে অনেকের এমন অভিজ্ঞতাও হয়েছে, ঘরমুখো মানুষকে ঈদ জামাতের সময়টি পার করতে হয়েছে রাস্তায়। এবার অন্তত তেমন পরিস্থিতির সৃষ্টি যেন না হয়, সেদিকে যোগাযোগমন্ত্রী সতর্ক দৃষ্টি রাখবেন আশা করি। দেশে সড়কপথে দুর্ঘটনার হার এমনিতেই বেশি। ঈদে মহাসড়কগুলোয় বাড়তি যানবাহন চলাচল করায় দুর্ঘটনার আশংকা আরও বেড়ে যায়। এ ব্যাপারে যানবাহনের চালকসহ সংশ্লিষ্ট সবারই সতর্ক থাকা প্রয়োজন। ইদানীং ট্রেনে দুর্ঘটনাও বেড়েছে। বেড়েছে ট্রেনে ডাকাতিও। এক্ষেত্রেও নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করতে হবে। নৌ-দুর্ঘটনা এড়াতে ফিটনেসবিহীন লঞ্চ চালনা এবং অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহন রোধে নিতে হবে বিশেষ ব্যবস্থা। সড়ক, রেল ও নৌপথে বিদ্যমান সমস্যাগুলো রাতারাতি দূর করা সম্ভব নয়। তারপরও সরকার ও সংশ্লিষ্ট সব কর্তৃপক্ষের উচিত জনগণের ভোগান্তি ন্যূনতম পর্যায়ে নামিয়ে আনার ব্যাপারে সদা তৎপর থাকা।
ঈদুল ফিতর মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব। দেশের প্রায় ৯০ শতাংশ মানুষ ইসলাম ধর্মাবলম্বী। এ বিবেচনায় প্রতিবছর বাড়ি যাত্রার বিড়ম্বনা কমাতে ঈদের ছুটি বাড়িয়ে দেয়ার কথা ভাবা যেতে পারে। বছরের অন্যান্য ছুটি কমিয়ে সহজেই এ পদক্ষেপ নেয়া যায়। অনেক দেশেই এমন নজির আছে। এর ফলে মানুষের বাড়ি ফেরার ঝক্কি যেমন কিছুটা হলেও কমে আসবে, তেমনি তারা পরিবার-পরিজনসহ ঈদের আনন্দ উপভোগ করার সুযোগ পাবেন বেশি। ঈদে গ্রামে যাওয়ার ভোগান্তির কথা ভেবে অনেকেই এ সময় রাজধানীতে থেকে যান। এ সময় অবশ্য রাজধানীর পরিবেশও থাকে অন্যরকম। যানজট ও কোলাহলমুক্ত। তারপরও বিপুলসংখ্যক মানুষ ঢাকা ছাড়বেন, এটাই বাস্তবতা। তাদের যাত্রা নির্বিঘœ করতে যা কিছু করা প্রয়োজন তার সবই করা হবে, এটাই কাম্য।

Leave a Reply

You must be logged in to post a comment.

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি এইচ, এম রহিমুজ্জামান সুমন
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ এস, এম নুরুল্ আমিন সরকার্
নির্বাহী সম্পাদকঃ নাজমুল হুদা পারভেজ
সম্পাদক কর্তৃক সারদা প্রেস, বাজার রোড, কুড়িগ্রাম থেকে মূদ্রিত ও উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম থেকে প্রকাশিত।
অফিসঃ উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম।
ফোনঃ ০৫৮২৫-৫৬০১৭, ফ্যাক্স: ০৫৮২৪৫৬০৬২, মোবাইল: ০১৭৩৩-২৯৭৯৪৩, ইমেইলঃ jugerkhabor@gmail.com
এই ওয়েবসাইট এর সকল লেখা,আলোকচিত্র,রেখাচ¬িত্র,তথ্যচিত্র যুগেরখবর এর অনুমতি ছাড়া হুবহু বা আংশিক নকল করা সম্পূর্ন কপিরাইট আইনে আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত যুগেরখবর.কম – ২০১৩-১৪