ওয়াদা করুন, নৌকায় ভোট দেবেন

pm-19-SSMM-120131022055745দিনাজপুর প্রতিনিধি: আগামী নির্বাচনে নৌকায় ভোট দিতে দিনাজপুরের গোর-এ শহীদ ময়দানের জনসভায় উপস্থিত জনগণের কাছে ওয়াদা নিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে নৌকায় ভোট দিন। উন্নয়নের অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করতে নৌকায় ভোট দিন। মঙ্গলবার বিকেলে দিনাজপুরের গোর-এ শহীদ ময়দানে স্থানীয় আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখতে গিয়ে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা সামনের দিকে এগিয়ে যেতে চাই। ২০২১ সালের মধ্যে দেশকে ক্ষুধা ও দারিদ্র্য মুক্ত করতে চাই। আমরা পেছনের দিকে ফিরে যেতে চাই না। ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তোলার যে ওয়াদা করেছি তার অধিকাংশই পালন করেছি’ উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আবার ক্ষমতায় এলে প্রাথমিক পর্যায় থেকে শিক্ষার্থীদের কম্পিউটার শিক্ষার ব্যবস্থা করা হবে।
প্রধানমন্ত্রী অভিযোগ করে বলেন, বিএনপি নেত্রী জামায়াত-শিবিরের সন্ত্রাসীদের মদদ দেন, যেভাবে তিনি ১৫ আগস্টের খুনীদের মদদ দিয়েছিলেন। ১৫ আগস্টের হত্যাকারীদের বিচার বন্ধে রায়ের দিন হরতালও ডেকেছিলেন।

শেখ হাসিনা আরও বলেন, ২০০১ সালে ক্ষমতায় এসে দেশে অরাজকতা তৈরি করে বিএনপি সরকার। বিভিন্ন স্থানে সৃষ্টি হয় সাম্প্রদায়িক সহিংসতা। তিনি বলেন, বিএনপি নেত্রীর ছেলেরা দুর্নীতি করেছে।হাওয়া ভবনের দুর্নীতির কারণে দেশের মাথা নিচু হয়ে যায়। এমনকি তারা এতিমখানার টাকাও লুট করে খেয়েছে। অথচ ধরা খাওয়ার ভয়ে তিনি (খালেদা) আদালতেও যান না। তিনি বলেন, বিএনপি ১০ টাকার চাল ৪০ টাকা করে গেছে। অথচ আমরা সরকারে এসে চালের দাম কমিয়েছি। সারের দাম তিন দফা কমিয়েছি। `৯৬ সালে ক্ষমতায় থাকাকালে কৃষিব্যাংকের মাধ্যমে কৃষকদের ঋণ দিয়েছি। আমরা মানুষের আয় বাড়িয়েছি। অথচ বিএনপি ক্ষমতায় থাকলে কিভাবে নিজেদের আয় বৃদ্ধি করা যাবে সে চিন্তায়ই মশগুল থাকে। বিএনপি ক্ষমতায় থাকাকালে একজন দিনমজুর ২ কেজি চালও কিনতে পারতো না অথচ এখন আয় বাড়ানোর কারণে এবং চালের দাম কমানোর কারণে অনেক শ্রমিক ১০ কেজি চালও কিনতে পারছেন বলে উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী। এর আগে বিকেল ৪টা ৪ মিনিটে দিনাজপুর সার্কিট হাউজ থেকে গোর-এ-শহীদ ময়দানে জনসভামঞ্চে উপস্থিত হন প্রধানমন্ত্রী, ভাষণ শুরু করেন সাড়ে চারটার সময়। বক্তব্য শেষ হয় বিকেল পাঁচটা বাজার কিছুক্ষণ আগে।
ঢাকা থেকে প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী হেলিকপ্টারটি দিনাজপুর পৌঁছায় দুপুর পৌনে তিনটার সময়। হেলিকপ্টার থেকে নেমে প্রধানমন্ত্রী বিশ্রাম গ্রহণের জন্য দিনাজপুর সার্কিট হাউজে যান। সেখান থেকেই সরাসরি গোর-এ শহীদে আসেন তিনি। ভাষণ শুরুর আগে জনসভামঞ্চ থেকেই হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের নবনির্মিত বহুতল বিশিষ্ট ড. এম এ ওয়াজেদ একাডেমিক ভবন, দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালকে ৫শ’শয্যায় উন্নীতকরণ, মোহনপুরের আত্রাই নদীতে ও বোচাগঞ্জের টাঙন নদীতে রাবার ড্যাম, বিরামপুর, বীরগঞ্জ, বিরল, হাকিমপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সকে ৩১ থেকে ৫১ শয্যায় উন্নীতকরণ, বোচাগঞ্জ আব্দুর রউফ চৌধুরী অডিটোরিয়াম, বিরল পৌরসভা ভবন, দিনাজপুর মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন, দিনাজপুর সরকারি কলেজের একাডেমিক কাম পরীক্ষা হল, সেতাবগঞ্জ মডেল পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়, আটগাঁও দাখিল মাদ্রাসা, রাজুনিয়া উচ্চ বিদ্যালয়, হালজা উচ্চ বিদ্যালয় ও ওকড়া দাখিল মাদ্রাসার একাডেমিক ভবন, হাকিমপুর উপজেলা ফায়ার স্টেশন, স্বাধীনতা স্তম্ভ ও মুক্তিযুদ্ধে শহীদ আসাদুল্লাহ স্কোয়ার, বিরল মঙ্গলপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র, হাকিমপুর ফায়ার সার্ভিস স্টেশন, সম্মুখ সমর স্মৃতিস্তম্ভ, বীরগঞ্জের গাঙর ব্রিজ, কাহারোল উপজেলা মৎস্য ভবন, সেতাবগঞ্জ পৌরসভা ‘খ’ থেকে ‘ক’ শ্রেণীতে উন্নীতকরণ, দিনাজপুর প্রেসক্লাব ভবন, কাঞ্চন থেকে বিরল পর্যন্ত ছয় কিলোমিটার ও বিরল থেকে বিরল বর্ডার পর্যন্ত নয় কিলোমিটার রেল লাইনকে মিটারগেজ থেকে ব্রডগেজে রূপান্তর এবং বোচাগঞ্জ উপজেলা ডাক বাংলো ভবন সহ মোট ৩৬টি প্রকল্পের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী।
এছাড়া দিনাজপুর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড প্রশাসনিক ভবন, চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত ভবন, বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি এলাকায় ভূমিহীন পরিবারের পুর্নবাসনের জন্য গৃহ নির্মাণ প্রকল্প, দিনাজপুর আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, দিনাজপুর স্টেডিয়ামের সম্প্রসারিত ভবন, বিরল ফায়ার সার্ভিস স্টেশন, হাকিমপুর মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন ও বীরগঞ্জের পাথরঘাটা নদীর উপর গাড়িরঘাট ব্রিজসহ আটটি নির্মাণকাজের ভিত্তিপ্রস্তরও স্থাপন করেন প্রধানমন্ত্রী। বক্তৃতা শেষে দিনাজপুর থেকে আজই ঢাক‍ার উদ্দেশে রওয়ানা হবেন প্রধানমন্ত্রী।
উল্লেখ্য, ২০০৮ সালের ২৪ ডিসেম্বর নির্বাচনী প্রচারণার অংশ হিসেবে সর্বশেষ দিনাজপুরে এসেছিলেন শেখ হাসিনা। তবে চলতি মেয়াদে ক্ষমতায় আসার পর প্রধানমন্ত্রী হিসেবে এটিই দিনাজপুরে তার প্রথম সফর।

Leave a Reply

You must be logged in to post a comment.

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি এইচ, এম রহিমুজ্জামান সুমন
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ এস, এম নুরুল্ আমিন সরকার্
নির্বাহী সম্পাদকঃ নাজমুল হুদা পারভেজ
সম্পাদক কর্তৃক সারদা প্রেস, বাজার রোড, কুড়িগ্রাম থেকে মূদ্রিত ও উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম থেকে প্রকাশিত।
অফিসঃ উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম।
ফোনঃ ০৫৮২৫-৫৬০১৭, ফ্যাক্স: ০৫৮২৪৫৬০৬২, মোবাইল: ০১৭৩৩-২৯৭৯৪৩, ইমেইলঃ jugerkhabor@gmail.com
এই ওয়েবসাইট এর সকল লেখা,আলোকচিত্র,রেখাচ¬িত্র,তথ্যচিত্র যুগেরখবর এর অনুমতি ছাড়া হুবহু বা আংশিক নকল করা সম্পূর্ন কপিরাইট আইনে আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত যুগেরখবর.কম – ২০১৩-১৪