দরদ থাকলে পাকিস্তানে চলে যান: হাসিনা

PM-Gaibandha-0115-(8)_EDগাইবান্ধা প্রতিনিধি: বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ্য করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, পাকিস্তানের প্রতি দরদ থাকলে পাকিস্তানে চলে যান। কিন্তু এদেশের মানুষকে হত্যা করবেন না, কষ্ট দেবেন না।

শনিবার বিকেলে গাইবান্ধা শহরের শাহ আব্দুল হামিদ স্টেডিয়ামে এক জনসভায় তিনি একথা বলেন। বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোটের প্রতিহতের ঘোষণার মধ্যে অনুষ্ঠিত দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন ঘিরে গাইবান্ধায় সহিংসতার চিত্র তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন,  “নির্বাচন ঠেকানোর নামে গাইবান্ধায় চার পুলিশসহ ১০ জন মানুষকে হত্যা করা হয়েছে। মানুষের ঘরবাড়ি, ১২৭টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ভাংচুর ও পোড়ানো হয়েছে। গাইবান্ধা জেলায় ২০ হাজার গাছ কেটে ফেলা হয়েছে। রেলব্রিজ ধ্বংস করা হয়েছে। এমনকি অবলা জীব গরু ছাগলও রক্ষা পায়নি। “এই ধ্বংসযঞ্জ-নৈরাজ্যের দায়ভার বিএনপি- জামায়াতকেই নিতে হবে।”

বিএনপি চেয়ারপারসন যুদ্ধাপরাধীদের বাঁচানোর চেষ্টা করছেন মন্তব্য করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, যতো চেষ্টা করা হোক না কেন, বাংলার মাটিতেই যুদ্ধাপরাধীদের বিচার হবে। তিনি বলেন, “বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের বিদেশে পাঠিয়ে জিয়াউর রহমান তাদের বাঁচাতে চেয়েছিলেন। সেটা সম্ভব হয়নি। যুদ্ধাপরাধীদেরও খালেদা জিয়া বাঁচাতে পারবেন না। একজনের ফাঁসি কার্যকর হয়েছে। অন্যদেরও বিচার দ্রুত সম্পন্ন হবে। বাংলার মাটিতে জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাসের ঠাঁই হবে না।”

বিএনপি-জামায়াতের হামলা উপেক্ষা করে ৫ জানুয়ারি ভোট দিয়ে পুনরায় আওয়ামী লীগকে নির্বাচিত করায় গাইবান্ধাবাসীকে ধন্যবাদ জানান শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, “উনি (খালেদা) দেশের ৯৬ শতাংশ মানুষের নেত্রী। কিন্তু এতোকিছু করেও তো ভোট ঠেকাতে পারলেন না। এতো সহিংসতা ও তাণ্ডবের পরও দেশের ৪৫ ভাগ ভোট দিয়েছেন।” জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সৈয়দ সামস-উল-আলম হিরুর সভাপতিত্বে জনসভায় অন্যদের মধ্যে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম, স্থানীয় সাংসদ ফজলে রাব্বী মিয়া, মাহাবুব আরা বেগম, জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আবু বক্কর সিদ্দিক প্রমুখ বক্তব্য দেন। জনসভা থেকে সদ্য শেষ হওয়া গোবিন্দগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস স্টেশন, গাইবান্ধা টেক্সটাইল ভোকেশনাল ইনস্টিটিউট, ছয়টি খাদ্য গুদাম, তিন উপজেলা সাঘাটা, পলাশবাড়ী ও সুন্দরগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভবন, খোলাহাটি বিদ্যুৎ উপকেন্দ্র  ও ইপিআই স্টোর ভবনের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী।

এছাড়া সুন্দরগঞ্জের তিস্তা সেতু, পলাশবাড়ী, ফুলছড়ি ও সাঘাটা থানা ভবন, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমপ্লেক্স ভবন, গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা প্রাণিসম্পদ উন্নয়ন কেন্দ্র, গাইবান্ধা কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, শাহ আব্দুল হামিদ স্টেডিয়ামের গ্যালারি সম্প্রসারণ, গোবিন্দগঞ্জের কাটাবড়ি বিদ্যুৎ উপকেন্দ্র ও সাঘাটার বোনারপাড়ায় কাটাখালি  সেতুর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন তিনি। 

PM-Gaibandha-0115-(7)_EDবিশেষ শিল্পাঞ্চল

জনসভা থেকে গাইবান্ধায় বিশেষ শিল্পাঞ্চল গড়ে তোলার ঘোষণা দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, বিশেষ শিল্পাঞ্চল গড়ে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে এ অঞ্চলের বেকার সমস্যার সমাধান করা হবে। জেলার যে সব মানুষের ঘরবাড়ী নাই তাদের সবাইকে সরকারি খরচে ঘরবাড়ী নির্মাণ করে দেয়ার ঘোষণা দেন প্রধানমন্ত্রী। নদী ভাঙ্গনে দুর্গতদেরও পুনর্বাসনের আশ্বাস দেন শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, অবিলম্বে গাইবান্ধার বালাসি-বাহাদুরাবাদ নৌরুটে নতুন ফেরি চালু করা হবে। এছাড়া সেখানে রেলসেতু স্থাপনের সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের কাজ চলছে। এর ফলাফল সন্তোষজনক হলে রেলসেতু স্থাপন করা হবে। এর আগে দুপুরে গাইবান্ধা সার্কিট হাউজ মিলনায়তনে নির্বাচনের আগে ও পরে বিএনপি-জামায়াত জোটের কর্মীদের হামলায় ক্ষতিগ্রস্তদের সঙ্গে মতবিনিময় এবং তাদের আর্থিক সহায়তা দেন প্রধানমন্ত্রী। সহিংসতা বন্ধে কঠোর হতে প্রশাসনকে নির্দেশ দেন তিনি। নাশকতায় জড়িতদের বিচারের আওতায় আনা হবে বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী।

Leave a Reply

You must be logged in to post a comment.

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি এইচ, এম রহিমুজ্জামান সুমন
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ এস, এম নুরুল্ আমিন সরকার্
নির্বাহী সম্পাদকঃ নাজমুল হুদা পারভেজ
সম্পাদক কর্তৃক সারদা প্রেস, বাজার রোড, কুড়িগ্রাম থেকে মূদ্রিত ও উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম থেকে প্রকাশিত।
অফিসঃ উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম।
ফোনঃ ০৫৮২৫-৫৬০১৭, ফ্যাক্স: ০৫৮২৪৫৬০৬২, মোবাইল: ০১৭৩৩-২৯৭৯৪৩, ইমেইলঃ jugerkhabor@gmail.com
এই ওয়েবসাইট এর সকল লেখা,আলোকচিত্র,রেখাচ¬িত্র,তথ্যচিত্র যুগেরখবর এর অনুমতি ছাড়া হুবহু বা আংশিক নকল করা সম্পূর্ন কপিরাইট আইনে আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত যুগেরখবর.কম – ২০১৩-১৪