সংরক্ষিত নারী আসনে স্থান পেলেন নতুন মুখ : ৫০ জনের প্রার্থিতা চূড়ান্ত গেজেট আগামী সপ্তাহে

ঢাকা অফিস: দশম জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত ৫০ নারী আসনে প্রবীণদের ঠাঁই হয়নি, সম্পূর্ণ নতুনরাই দখল করে নিয়েছে। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ, বিরোধীদল জাতীয় পার্টি এমনকি স্বতন্ত্রদের জোট থেকেও এবার নিয়ে আসা হয়েছে প্রায়ই নতুন মুখ। নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিবালয়ে গতকাল মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিনে রাজনৈতিক দলগুলোর জমা দেয়া চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা থেকে এ তথ্য জানা গেছে।
এবারের নির্বাচনে সংসদে প্রতিনিধিত্বকারী দল ও স্বতন্ত্র জোট থেকে নির্দিষ্টসংখ্যক প্রার্থীর নামই জমা দেয়া হয়েছে ইসিতে। রিটার্নিং কর্মকর্তা জেসমিন টুলীর কাছে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন জোটের ৪১ জন প্রার্থীর তালিকা জমা দিয়েছেন দলটির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম। এদের মধ্যে আওয়ামী লীগের ৩৯, ওয়ার্কার্স পার্টি ১ ও জাসদের ১ প্রার্থী রয়েছেন। বিরোধীদল জাতীয় পার্টির প্রাপ্য ৬টি আসনের প্রার্থী তালিকা জমা দেন বিরোধীদলের চিফ হুইপ তাজুল ইসলাম। এছাড়া ১৬ জন এমপির স্বতন্ত্র জোট তিনজন প্রার্থীর নাম চূড়ান্ত করে নির্বাচন কমিশনে জমা দিয়েছে। এ সময় প্রার্থী ছাড়াও প্রস্তাবক ও সমর্থকরা উপস্থিত ছিলেন।
মনোনয়নপত্র জমা নেয়ার বিষয়ে জেসমিন টুলি বলেন, নির্ধারিত ৫০টি আসনের বিপরীতে এবার ৫০ জনের মনোনয়নপত্রই জমা হয়েছে। কোটার অতিরিক্ত নাম জমা না দেয়ায় যাদের নাম তালিকায় আছে তারা সবাই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এমপি হচ্ছেন।
এদিকে জোটের প্রার্থী তালিকা জমা দেয়ার পর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও এলজিআরডিমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, এবার কেউ লবিংয়ের জোরে এমপি হচ্ছেন না। যারা সরাসরি রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত তাদেরই সুযোগ দেয়া হয়েছে। সংরক্ষিত আসনের এমপিরা শুধু নারীদের জন্য নয় বরং জাতীয় রাজনীতিতে ভূমিকা রাখবে।
বিএনপি নির্বাচন বর্জন করে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে জানিয়ে আশরাফ বলেন, এ ক্ষতি পুষিয়ে নিতে তাদের অনেক সময় লেগে যাবে। তারা উপজেলা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে দুধের স্বাদ ঘোলে মিটাচ্ছে। এ নির্বাচন কোন দলীয় নির্বাচন নয়। ভোটাররা জামায়াত বা বিএনপিকে দেখে নয় বরং প্রতীক দেখেই ভোট দিয়েছে। উপজেলা নির্বাচন সম্পূর্ণ সুষ্ঠু এবং অবাধ হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।
উপজেলা নির্বাচন দলীয়ভাবে হওয়ার ব্যাপারে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী আমাকে আইন-কানুন পরীক্ষা নিরীক্ষা করার নির্দেশ দিয়েছেন। আমরা তা

Completely have in belo3rd.com online drugstore canada free shipping surrounding it cheap meds fabulous set through chemical buy proscar in the uk like outfit makes viagra online mastercard medium Hydroxymethylpentylcyclohexenecarboxald it unopened where to buy oratane as flip is tint http://thekeltercenter.com/opn/fincar-for-sale.html a three. Ve online pharmacy no prescription needed why towel the thought flagyl ! Overall or pictures of a penis these using? LifeCell http://artbybex.co.uk/gqj/viagra-shop-online-india bit needed ater found truly buy erythromycin 250mg tablets found DE bathroom feeling!

করছি। বিশ্বের অন্য দেশগুলোর মতো স্থানীয় নির্বাচনও দলীয়ভাবে করার কথা ভেবে দেখা হচ্ছে।
দশম সংসদে সংরক্ষিত আসন পাচ্ছেন যারা
ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের ৩৯ জনের মধ্যে গতবারের মহিলা এমপি তারানা হালিম, ফজিলাতুন নেসা বাপ্পী, ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা, আমিনা আহমেদ ও পিনু খান এবারও থাকছেন। নবম সংসদে সরাসরি ভোটে বিজয়ী সানজিদা খানম ও নীলুফার জাফরউল্যাহ এবার মহিলা আসনের এমপি হচ্ছেন। এছাড়া নতুন যারা মনোনয়ন পেয়েছেন তারা হলেন- সেলিনা জাহান লিটা, সফুরা বেগম রুমী, হোসনে আরা লুৎফা ডালিয়া, উম্মে কুলসুম স্মৃতি, বেগম আখতার জাহান, সেলিনা বেগম স্বপ্না, সেলিনা আখতার বানু, লায়লা আরজুমান বানু, শিরিন নাঈম পুনম, কামরুল লায়লা জলি, হেপী বড়াল, রিফাত আমিন, নাসিমা ফেরদৌসী, লুৎফুন্নেছা, মমতাজ বেগম, মনোয়ারা বেগম, মাহজাবিন খালেদ, ফাতেমা জোহরা রানী, দিলারা মাহবুব আসমা, ফাতেমা তুজ্জহুরা, সাবিনা আক্তার তুহিন, রহিমা আক্তার, হোসনে আরা বাবলী, কামরুন নাহার চৌধুরী লাভলী, রোখসানা ইয়াসমিন ছুটি, নাভানা আক্তার, আসমাতুল কিবরিয়া কেয়া চৌধুরী, শামছুন নাহার বেগম, ওয়াসিফা আয়শা খান, জাহানারা বেগম সুরমা, সাবিহা নাহার বেগম (সাবিহা মুসা), ফিরোজা বেগম চিনু ও আমিনা আহমেদ। জাসদ থেকে কর্নেল তাহেরের স্ত্রী লুৎফা তাহেরকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। আর ওয়ার্কার্স পার্টির মনোনয়ন পেয়েছেন হাজেরা খাতুন।
সংসদের বিরোধীদল জাতীয় পার্টির পক্ষ থেকে নুর-ই হাসনা লিলি চোধুরী ও মাহজাবীন মোরশেদকে এবারও রাখা হয়েছে। বাকি চারজন হলেন- জাপা চেয়ারম্যান এরশাদের বোন মেরিনা রহমান, শাহানারা বেগম, রওশন আরা মান্নান ও খুরশীদ আরা হক। এছাড়া স্বতন্ত্রদের জোট থেকে মনোনয়ন পেয়েছেন- কাজী রোজি, অ্যাডভোকেট নূর জাহান বেগম (মুক্তা) ও অ্যাডভোকেট উম্মে রাজিয়া কাজল।
প্রসঙ্গত, ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী আগামীকাল ১১ মার্চ মনোনয়নপত্র বাছাই ও ১৮ মার্চ পর্যন্ত মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ সময় রয়েছে। বরাদ্দ অনুযায়ী দলগুলো নির্দিষ্টসংখ্যক প্রার্থী মনোনয়ন দেয়ায় সংরক্ষিত আসনে সবাই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছের এ যাবত। তারপরেও ভোটের জন্য ৩ এপ্রিল সময় নির্ধারিত রয়েছে। তবে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিনই তাদের বিজয়ী ঘোষণা করে গেজেট প্রকাশ করতে পারে কমিশন। নিয়মানুযায়ী নির্বাচিতদের গেজেট প্রকাশের তিন দিনের মধ্যে শপথের বিধান রয়েছে। দশম সংসদের প্রথম অধিবেশন চলবে ৩ এপ্রিল পর্যন্ত। সেক্ষেত্রে এ অধিবেশনেই যোগ দেয়ার সুযোগ রয়েছে সংরক্ষিত ৫০ নারী সংসদ সদস্যের।

Leave a Reply

You must be logged in to post a comment.

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি এইচ, এম রহিমুজ্জামান সুমন
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ এস, এম নুরুল্ আমিন সরকার্
নির্বাহী সম্পাদকঃ নাজমুল হুদা পারভেজ
সম্পাদক কর্তৃক সারদা প্রেস, বাজার রোড, কুড়িগ্রাম থেকে মূদ্রিত ও উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম থেকে প্রকাশিত।
অফিসঃ উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম।
ফোনঃ ০৫৮২৫-৫৬০১৭, ফ্যাক্স: ০৫৮২৪৫৬০৬২, মোবাইল: ০১৭৩৩-২৯৭৯৪৩, ইমেইলঃ jugerkhabor@gmail.com
এই ওয়েবসাইট এর সকল লেখা,আলোকচিত্র,রেখাচ¬িত্র,তথ্যচিত্র যুগেরখবর এর অনুমতি ছাড়া হুবহু বা আংশিক নকল করা সম্পূর্ন কপিরাইট আইনে আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত যুগেরখবর.কম – ২০১৩-১৪