**   লাইন্সেস, পরিবেশ সনদ ছাড়াই ডায়াগনোষ্টিক সেন্টারের হাট ।। উলিপুরে প্রতারিত হচ্ছে রোগিরা **   এবার ‘রেস ফোর’ নিয়ে আসছেন সালমান! **   জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিল থেকে বেরিয়ে গেল যুক্তরাষ্ট্র **   আন্দোলন নয়, নির্বাচনের প্রস্তুতি নিতে বিএনপির প্রতি আহ্বান নাসিমের **   শেষ ষোলোয় রাশিয়া, বিদায় মিসরের **   সিটি করপোরেশন নির্বাচন সবার দৃষ্টি গাজীপুরে **   দেহ ব্যবসায় জড়িত সাদিয়া! **   প্রকল্প কাজে অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ ॥ ব্রহ্মপুত্রের ডানতীর রক্ষা প্রকল্পে ফের ধস ॥ একদিনে ১২ পরিবারের ১৭ঘর নদীতে **   ১০ জনের কলম্বিয়াকে হারালো জাপান **   উলিপুরে সহিংসতা না করার শপথ করলেন রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ

বিশ্ব এজতেমার দ্বিতীয় পর্ব সমাপ্ত দেশ ও জাতির কল্যাণ কামনা

টঙ্গী (গাজীপুর) প্রতিনিধি : বিশ্বের লাখ লাখ ধর্মপ্রাণ মুসলমানের অংশগ্রহণের মাধ্যমে মহান সৃষ্টিকর্তার সন্তুষ্টি লাভের আশায় গতকাল রোববার সকাল ১১টা ৫ মিনিটে দ্বিতীয় পর্বের এজতেমার আখেরি মোনাজাত শুরু হয়। শেষ হয় ১১টা ৩৩ মিনিটে। লাখো মুসল্লির আখেরি মোনাজাতে দেশ ও জাতির কল্যাণ কামায় টঙ্গীর তুরাগ তীরে তাবলিগ জামাত আয়োজিত ৫১তম বিশ্ব এজতেমার সমাপ্তি হয়েছে। দ্বিতীয় পর্বে আখেরি মোনাজাতে দেশ ও জাতির কল্যাণ কামনার মধ্য দিয়ে টঙ্গীর তুরাগ তীরে এবারের বিশ্ব এজতেমা শেষ হয়। মোনাজাতে মুসলিম জাহানের কল্যাণ কামনা করা হয়। মোনাজাত পরিচালনা করেন তাবলিগ জামাতের মারকাজের শূরা সদস্য ভারতের দিল্লি মসজিদের শীর্ষ মুরব্বি মাওলানা মুহাম্মদ সাদ। মোনাজাত প্রচারের জন্য গণযোগাযোগ অধিদফতর ও গাজীপুর জেলা তথ্য অফিস বিশেষ ব্যবস্থা নেয়। ভোর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত এজতেমা ও এর আশপাশের এলাকায় যানবাহন চলাচলে নিষেধাজ্ঞা দেয় জেলা প্রশাসন। আখেরি মোনাজাতের জন্য বাড়তি নিরাপত্তায় অন্যান্য দিনের চেয়ে দ্বিগুণ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হয়। মোনাজাত শেষে এজতেমাস্থল থেকে বাড়ি ফিরতে মুসল্লিদের জন্য বিনা ভাড়ার বিশেষ শাটল বাসের ব্যবস্থা করেছে গাজীপুর জেলা পুলিশ। তবে তা প্রয়োজনের তুলনায় কম।

 গাজীপুরের জেলা প্রশাসক এসএম আলম বলেন, রোববার ভোর থেকেই এজতেমা ও এর আশপাশের এলাকায় যানবাহন চলাচলে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। এ বিধিনিষেধ গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত বলবৎ থাকে। গাজীপুরের পুলিশ সুপার মো. হারুন অর রশিদ বলেন, আখেরি মোনাজাতে বাড়তি নিরাপত্তার জন্য পর্যাপ্তসংখ্যক আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। প্রায় ১২ হাজার র‌্যাব ও পোশাকধারী পুলিশের পাশাপাশি রয়েছে সাদা পোশাকে কয়েক হাজার গোয়েন্দা সদস্য। আকাশ ও নৌপথে রয়েছে র‌্যাবের সতর্ক নজরদারি।’

এজতেমা মাঠের অদূরে রহস্যজনক টাইম বোমা উদ্ধার
টঙ্গীর এজতেমাস্থল থেকে প্রায় ৪ কিলোমিটার দূরে গাজীপুর মহানগরে একটি মাঠে পরিত্যক্ত অবস্থায় পাঁচটি টাইম বোমা পুলিশ উদ্ধার করেছে। এ সময় পুলিশ জানায়, বোমাগুলো দূর নিয়ন্ত্রিত বলে তাদের ধারণা। রোববার ভোরে গাজীপুর শহরের বোর্ড বাজার এলাকার কুনিয়াপাছর তারগাছ নামক স্থানের একটি বালুর মাঠে ওই পাঁচটি বোমা ও রিমোট কন্ট্রোল পাওয়া যায়। টঙ্গীতে বিশ্ব এজতেমার আখেরি মোনাজাত শেষে দুপুরে গাজীপুর পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ বিষয়টি সাংবাদিকদের জানান।

দুই পর্বে এজতেমায় ১৬ মুসল্লির মৃত্যু
বিশ্ব এজতেমার দ্বিতীয় পর্বের শেষ দিনে আরও তিন মুসল্লি ইন্তেকাল করেছেন। তারা হলেন কুমিল্লার মনোহরগঞ্জ উপজেলার নাথেরপেটুয়া গ্রামের মৃত সৈয়দ আলীর ছেলে নূরুল আলম (৭০), রাত পৌনে ১১টার দিকে নিজ খিত্তায় অসুস্থ হয়ে মারা যান। একই রাতে মারা যান আবদুল মাবুদ জোয়ারর্দার (৫২)। তিনি চুয়াডাঙ্গা সদরের বাদুরতলা এলাকার একরামুল হক জোয়ারর্দারের ছেলে। নিজ খিত্তায় অসুস্থ হয়ে মারা যান জামালপুর জেলার সরিষাবাড়ীর থানার চর আদরা গ্রামের জাবেদ মোল্লার ছেলে আব্দুল কাদের (৬০) ও আবু তাহের (৪০) তার বাড়ি সিলেটের সুনামগঞ্জে।
এজতেমা ময়দানে তাদের নামাজে জানাজা শেষে নিজ নিজ এলাকায় মরদেহ পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন লাশের জিম্মাদার মো. আদম আলী। বিশ্ব এজতেমার দ্বিতীয় পর্বে এক বিদেশিসহ মোট ৬ মুসল্লি ইন্তেকাল করেন। প্রথম পর্বে এক বিদেশিসহ মারা যান ৯ মুসল্লি। ৫১তম বিশ্ব এজতেমার দুই পর্বে মোট মারা যান ২ বিদেশি মুসলিসহ ১৬ জন মুসল্লি।

ভিআইপিদের অংশগ্রহণ
দ্বিতীয় পর্বের বিশ্ব এজতেমায় মোনাজাতে অংশ নেন-  ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান এমপি, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আলহাজ অ্যাড. আকম মোজাম্মেল হক এমপি, স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ মো. জাহিদ আহসান রাসেল, গাজীপুর জেলা প্রশাসক এসএম আলম, সাবেক মেয়র অ্যাড. আজমত উল্লা খান, গাজীপুর সিটি করপোরেশন ভারপ্রাপ্ত মেয়র আসাদুর রহমান কিরন।

মুসল্লিদের বাড়ি ফেরায় চরম দুর্ভোগ
মোনাজাত শেষে লাখো মুসল্লিগণ তাদের নিজস্ব গন্তব্যে যেতে যানবাহন সংকটে পড়ে চরম দুর্ভোগের শিকার হন। মোনাজাত শেষে লাখ লাখ মুসল্লি এজতেমা ময়দান থেকে বিভিন্ন গন্তব্যে স্রোতের মতো এক সাথে ফিরতে শুরু করলে এক পর্যায়ে ময়দানের চারদিকে ৬/৭ কিলোমিটার বিস্তৃর্ণ এলাকায় মানব বলয় সৃষ্টি হয়। এসব এলাকার সকল রাস্তায় এক পর্যায়ে মুসল্লিদের বাড়ি ফেরার কাফেলায় পরিণত হয়। এ সময় রাস্তায় কোন যানবাহন চলাচল করতে পারেনি। এক পর্যায়ে সকল রাস্তাই মুসল্লির বাড়ি ফেরার রাস্তায় পরিণত হয়। এদিকে ভোর হতে টঙ্গী-চৌরাস্তা পর্যন্ত ৭/৮ কিলোমিটার ও টঙ্গী থেকে পূবাইল পর্যন্ত ৪/৫ কিলোমিটার, টঙ্গী-আব্দুলাহপুর থেকে বিমানবন্দর পর্যন্ত ৫/৬ কিলোমিটার, টঙ্গী থেকে আশুলিয়া সড়কের ৫/৬ কিলোমিটার পর্যন্ত এজতেমামুখী সকল যানবাহন চলাচল মুসল্লিদের মোনাজাত শেষে বাড়ি ফেরার জন্য বন্ধ রাখা হয়। এতে মুসল্লিরা হেঁটেই ওই সকল দূরত্বের পথ পাড়ি দিয়ে মোনাজাত শেষে যে যার গন্তব্যে রওনা দিয়েছেন।

মোনাজাতের সময় এজতেমা ময়দান
গত শুক্রবার থেকে শুরু হওয়া এবারের বিশ্ব এজতেমার দ্বিতীয় পর্ব সমগ্র মুসলিম উম্মাহর ইহ ও পারলৌকিক কল্যাণ, বিশ্ব শান্তি, সমৃদ্ধি, হেদায়েত, মাগফিরাত এবং নাজাত কামনা করে পরম করুণাময় রাব্বুল আলামিনের দরবারে লাখ লাখ ধর্মপ্রাণ মুসলমান দু’হাত তুলে নিজের কৃতকর্মের জন্য অনুসূচনা করে মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের নিকট পাপ মুক্তি কামনা করেন। এ সময় ময়দানের আশপাশের আকাশ-বাতাস প্রকম্পিত করে চোখের নোনা পানিতে বুক ভাসিয়ে কায়মনো বাক্যে উচ্চারিত হয়েছে মহান রাব্বুল আলামিনের মহত্ব ও শ্রেষ্ঠত্ব। মোনাজাতে মুসল্লিরা নিজের পাপ মুক্তির পাশাপাশি বিশ্ব মানবতার শান্তি ও জাতির কল্যাণ কামনা করে সকলেই আবেগ আপ্লুত হয় কিছু সময়ের জন্য। সকল ভেদাভেদ ভুলে আমির-ফকির, ধনী-গরিব, মনিব-ভৃত্য একই কাতারে শামিল হয়ে গিয়েছিল শীর্ণকায় তুরাগ তীরকে ঘিরে।

মোনাজাতে মহিলাদের অংশগ্রহণ
দ্বিতীয় পর্বের আখেরি মোনাজাতেও অংশ নিতে বিভিন্ন এলাকা থেকে কয়েক হাজার মহিলা মুসল্লিও আগের দিন-রাত থেকে এজতেমা ময়দানের আশপাশে, বিভিন্ন মিলকারখানা, বাসাবাড়িতে ও বিভিন্ন দালানের ছাদে বসে আখেরি মোনাজাতে অংশ নিতে দেখা যায়।

টিভি চ্যানেল ও মোবাইলের মাধ্যমে মোনাজাত
আখেরি মোনাজাতের সময় বিভিন্ন টিভি চ্যানেল ও মোবাইল, ওয়ারলেস সেটের মাধ্যমে লাখ লাখ নারী-পুরুষ এবারের আখেরি মোনাজাতে অংশগ্রহণ করেন।

নজিরবিহীন নিরাপত্তায় মুসল্লিদের সন্তুষ্টি
এবারের বিশ্ব এজতেমায় নজিরবিহীন নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে প্রশাসনের পক্ষ থেকে। পাঁচ স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থায় ১২ হাজারের অধিক পুলিশ ও র‌্যাবের পাশাপাশি মোতায়েন করা হয়েছিল সাদা পোশাকে গোয়েন্দা পুলিশ। বিভিন্ন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সমন্বয়ে আকাশে র‌্যাবের হেলিকপ্টার টহল, নৌপথে স্পিডবোটে সতর্ক টহল ও নজরদারি। আকাশ ও নৌপথের পাশাপাশি সড়কপথগুলোতে খালি চোখ ছাড়াও ওয়াচ টাওয়ারের মাধ্যমে বাইনোকুলার দিয়ে মুসল্লিসহ সকলের চলার পথ ও কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ করা হয়েছে। এসব কার্যক্রম অস্থায়ীভাবে স্থাপিত র‌্যাবের প্রধান নিয়ন্ত্রণ কক্ষ থেকে মনিটরিং করা হয়েছে। কুমিল্লা জেলার দেবিদ্বার থানার রাধানগর গ্রামের মুসল্লি হাজী আবুল হোসেন জানান, এবারের বিশ্ব এজতেমায় পুলিশের পক্ষ থেকে যে নজিরবিহীন নিরাপত্তা দেয়া হয়েছে এতে আমি সন্তুষ্ট। পুলিশ আমাদের শুধু নিরাপত্তাই দেয়নি আমাদের সেবায়ও সার্বক্ষণিক সতর্ক নজরদারি রেখেছে। এদিকে স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ জাহিদ আহসান রাসেল জানান, এবারের বিশ্ব এজতেমায় মুসল্লিদের নিরাপত্তা, যাতায়াত ও সার্বিক ব্যবস্থাপনায় বর্তমান সরকার যতটা সম্ভব সার্বিক ব্যবস্থাপনা করেছে।

Leave a Reply

You must be logged in to post a comment.

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি এইচ, এম রহিমুজ্জামান সুমন
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ এস, এম নুরুল্ আমিন সরকার্
নির্বাহী সম্পাদকঃ নাজমুল হুদা পারভেজ
সম্পাদক কর্তৃক সারদা প্রেস, বাজার রোড, কুড়িগ্রাম থেকে মূদ্রিত ও উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম থেকে প্রকাশিত।
অফিসঃ উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম।
ফোনঃ ০৫৮২৫-৫৬০১৭, ফ্যাক্স: ০৫৮২৪৫৬০৬২, মোবাইল: ০১৭৩৩-২৯৭৯৪৩, ইমেইলঃ jugerkhabor@gmail.com
এই ওয়েবসাইট এর সকল লেখা,আলোকচিত্র,রেখাচ¬িত্র,তথ্যচিত্র যুগেরখবর এর অনুমতি ছাড়া হুবহু বা আংশিক নকল করা সম্পূর্ন কপিরাইট আইনে আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত যুগেরখবর.কম – ২০১৩-১৪