**   কুড়িগ্রামে পুলিশ কর্মকর্তাদের নিয়ে শিশু আইন-২০১৩ শীর্ষক প্রশিক্ষণ **   চিলমারীতে থানাহাট পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান ফটক, সততা স্টোর উদ্বোধন ও বিদায়ী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত **   চিলমারীতে মিনা দিবস উদযাপন **   উলিপুরে মিনা দিবস পালিত **   উলিপুরে সড়ক দূর্ঘটনায় শিশুর মৃত্যু **   কুড়িগ্রাম ও লালমনিরহাট জেলা পুলিশের উদ্যোগে আঞ্চলিক মহাসড়কে দুর্ঘটনা রোধকল্পে মতবিনিময় **   শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে আফগানদের হারালো বাংলাদেশ **   সরকারি হাইস্কুলে পদোন্নতি: সিনিয়র শিক্ষক হচ্ছেন ৫৫০০ জন **   উলিপুরে বিজয়ের উল্লাসে বিজয় মঞ্চের কাজ শুরু **   কুড়িগ্রামে ‘অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রায় বাংলাদেশ’ শীর্ষক উন্নয়ন কনসার্ট অনুষ্ঠিত

আদালত অবমাননা- দুই মন্ত্রীকে ১৫ মার্চ তলব সময় চাইবেন কামরুল

স্টাফ রিপোর্টার, ঢাকা অফিস : মীর কাসেম আলীর যুদ্ধাপরাধ মামলার আপিল রায় নিয়ে ‘অবমাননাকর’ মন্তব্যের বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম ও মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হককে তলব করেছে সর্বোচ্চ আদালত। গতকাল মঙ্গলবার যুদ্ধাপরাধী মীর কাসেমের চূড়ান্ত রায় ঘোষণার আগে প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা নেতৃত্বাধীন নয় বিচারকের পূর্ণাঙ্গ আপিল বিভাগ এই আদেশ দেয়। এক গোল টেবিল বৈঠকে দুই মন্ত্রীর সেই বক্তব্যকে বিচার প্রশাসনের ওপর হস্তক্ষেপ এবং সুপ্রিম কোর্টের সম্মান ও মর্যাদাকে হেয় করার শামিল বিবেচনা করে কারণ দর্শাও নোটিস জারি করেছে আপিল বিভাগ। ওই বক্তব্যের কারণে আদালত অবমাননার দায়ে তাদের বিরুদ্ধে কেন আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে না- তা জানতে চাওয়া হয়েছে নোটিসে। আদালত বলেছে, সরকারের দুই মন্ত্রীকে ১৫ মার্চ সকাল ৯টায় হাজির হয়ে ব্যাখ্যা দিতে হবে। আদেশের আগে প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা বলেন, ‘দেশের সর্বোচ্চ আদালত নিয়ে অশুভ অবমানাকর বক্তব্যে সর্বোচ্চ আদালতের বিচারকরা স্তম্ভিত, যা বিচার বিভাগের স্বাধীনতায় নগ্ন হস্তক্ষেপ বলে মনে করি।’ মীর কাসেমের আপিলের রায়ে ট্রাইব্যুনালের দেওয়া সাজাই বহাল রেখেছে সর্বোচ্চ আদালত। এর ফলে জামায়াতের কেন্দ্রীয় এই শুরা সদস্যকে ফাঁসিতেই ঝুলতে হবে। গত ৫ মার্চ একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি আয়োজিত এক গোলটেবিল আলোচনায় প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহাকে বাদ দিয়ে নতুন বেঞ্চ গঠন করে মীর কাসেমের আপিলের পুনঃশুনানির দাবি তোলেন কামরুল। তিনি বলেন, আপিলের শুনানিতে যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউশন দলের কাজ নিয়ে প্রধান বিচারপতির অসন্তোষ প্রকাশের মধ্য দিয়ে ‘রায়েরই ইঙ্গিত’ মিলছে। ‘এই মামলার রায় কী হবে, তা প্রধান বিচারপতির প্রকাশ্যে আদালতে বক্তব্যের মধ্য দিয়ে আমরা অনুধাবন করতে পেরেছি। তার বক্তব্যের মধ্যে এটা অনুধাবন করেছি, এই মামলায় আর মৃত্যুদণ্ডের রায় দেওয়ার কোনো সুযোগ নেই।’ মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী মোজাম্মেল হকও প্রধান বিচারপতির মন্তব্য প্রত্যাহারের দাবি জানান বলে গণমাধ্যমের খবর। তাদের ওই বক্তব্য তুমুল আলোচনার জন্ম দেয়। মীর কাসেমের আইনজীবী সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি খন্দকার মাহবুব হোসেন এবং বিএনপি নেতারা মন্ত্রীদের বক্তব্যকে ‘ঔদ্ধত্বপূর্ণ’ আখ্যায়িত করে বলেন, এটা বিচার বিভাগের ওপর হস্তক্ষেপ। এ ধরনের মন্তব্য এড়ানোর পাশাপাশি সবাইকে ধৈর্য ধরার আহ্বান জানিয়ে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেন, বিতর্কিত বক্তব্যে যুদ্ধাপরাধের বিচারেই প্রশ্নবিদ্ধ হবে। আইনমন্ত্রী আনিসুল হকের মতো বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমদও বলেন, বিচারাধীন বিষয় নিয়ে কারও মন্তব্য করা উচিৎ নয়।
ব্যাখ্যা দিতে সময় চাইবেন কামরুল
এদিকে চূড়ান্ত রায়ে যুদ্ধাপরাধী মীর কাসেম আলীর ফাঁসি বহাল থাকায় স্বস্তি প্রকাশ করেছেন খাদ্যমন্ত্রী কামর“ল ইসলাম। একই সাথে তিনি অবমাননার অভিযোগ নিয়ে ব্যাখ্যা দিতে আদালতের কাছে সময় চাইবেন বলে জানিয়েছেন। প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা নেতৃত্বাধীন আপিল বেঞ্চ মঙ্গলবার মীর কাসেমের আপিলের রায় ঘোষণা করে। এ মামলার শুনানিতে প্রধান বিচারপতির বক্তব্যের সূত্র ধরে রায়ের মাত্র দুদিন আগে সংশয় প্রকাশ করেছিলেন সরকারের দুইজন মন্ত্রী। প্রধান বিচারপতিকে বাদ দিয়ে আলাদা বেঞ্চ গঠন করে পুনঃশুনানির দাবি তুলেছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা কামর“ল। রায়ের পর নিজের কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সামনে আসেন খাদ্যমন্ত্রী। সংক্ষিপ্ত প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেন, আমি অত্যন্ত স্বস্তি প্রকাশ করছি। একজন মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে, এই মামলার ১৬ কোটি বাদীর একজন হিসেবে এই রায়ে আমি অত্যন্ত আনন্দিত। এটা আনন্দ ভাষায় প্রকাশ করা সম্ভব না। আমরা যারা যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের জন্য দীর্ঘদিন ধরে কাজ করছি, এর মধ্যে দিয়ে তাদের ভান্ডারে আরও একটি সাফল্য যোগ হলো।

Leave a Reply

You must be logged in to post a comment.

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি এইচ, এম রহিমুজ্জামান সুমন
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ এস, এম নুরুল্ আমিন সরকার্
নির্বাহী সম্পাদকঃ নাজমুল হুদা পারভেজ
সম্পাদক কর্তৃক সারদা প্রেস, বাজার রোড, কুড়িগ্রাম থেকে মূদ্রিত ও উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম থেকে প্রকাশিত।
অফিসঃ উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম।
ফোনঃ ০৫৮২৫-৫৬০১৭, ফ্যাক্স: ০৫৮২৪৫৬০৬২, মোবাইল: ০১৭৩৩-২৯৭৯৪৩, ইমেইলঃ jugerkhabor@gmail.com
এই ওয়েবসাইট এর সকল লেখা,আলোকচিত্র,রেখাচ¬িত্র,তথ্যচিত্র যুগেরখবর এর অনুমতি ছাড়া হুবহু বা আংশিক নকল করা সম্পূর্ন কপিরাইট আইনে আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত যুগেরখবর.কম – ২০১৩-১৪