নাগেশ্বরীতে অপমানিত বৃদ্ধের আত্মহত্যার চেষ্টা : অতঃপর মৃত্যু

kurigram

নাগেশ্বরী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি : কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে সালিসি বৈঠকে অপমানিত ষাটোর্ধ বৃদ্ধের আত্মহত্যার চেষ্টা। অবশেষে হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করার নয়দিন পর হেরে গেলেন তিনি। ভয়ে সালিসি বৈঠকের বিচারকদের বিরুদ্ধে মুখ খুলছে না মৃতের পরিবার ও এলাকাবাসী।

গত ইউপি নির্বাচনে উপজেলার হাসনাবাদ ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড সদস্য নুর মোহাম্মদ নুরুর বিপক্ষে এবং হাজী মনছের আলীর পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণা চালায় দক্ষিণ নওদাপাড়া গ্রামের খয়ের হোসেন (৬৫)। এ নিয়ে নুর মোহাম্মদ নুরুর পরিবারের সাথে খয়েরের পরিবারের মধ্যে মনোমালিন্য চলে আসছিল। সুযোগ বুঝে বিভিন্ন সময় নুর মোহাম্মদ নুরু ও তার লোকজন খয়ের হোসেনসহ পরিবারের অন্যান্যের সামাজিকভাবে হেয়প্রতিপন্ন করতে থাকে। সম্প্রতি ওই ইউপি মেম্বারের ছেলে মজিদুল ইসলাম তুচ্ছ কারণে খয়েরের ভাতিজা বেলাল হোসেনকে পার্শ্ববর্তী পাখিরহাট বাজারে প্রকাশ্যে মারপিট করে। পরে এনিয়ে সালিসি বৈঠক বসলে খয়ের হোসেন তীব্র প্রতিবাদ জানালে ইউপি সদস্য নুর মোহাম্মদ নুরু ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান সেখানেই ওই বৃদ্ধকে মারতে উদ্যত হয়। এর দুইদিন পর গত ২৩ মে খয়েরের বিরুদ্ধে একই গ্রামের এক ষাটোর্ধ বৃদ্ধাকে যৌন হয়রানির অভিযোগ এনে সন্ধ্যায় সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান নুর জামালের সভাপতিত্বে পাখিরহাট বাজারে এক সালিসি বৈঠক বসে। উপস্থিত ছিলেন ইউপি সদস্য নুর মোহাম্মদ নুরু, সোলায়মান আলী, মনছের আলীসহ আরো অনেকে। সালিসি রায়ে খয়ের হোসেনকে জুতাপেটা ও ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করে তার পরিবারকে ভর্ৎসনা করে ছেড়ে দেওয়া হয়। এতে মানসিকভাবে ভেঙে পড়ে সে। গত ২৬ মে শুক্রবার ভোরে তার স্ত্রী নবিয়া বেগম প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে বাইরে যায়। এ সুযোগে সে ঘরে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। ঘরে ফিরে স্ত্রী নবিয়া বেগম স্বামীর এ অবস্থা দেখে চিৎকার করলে এলাকাবাসী তাকে উদ্ধার করে কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতালে পাঠায়। অবস্থার অবনতি ঘটলে তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে সে নয়দিন মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করে হেরে গিয়ে গত শনিবার সকালে মারা যায়। পরে তার লাশ এনে রাতে দাফন করা হয়।

শোকাচ্ছন্ন স্ত্রী নবিয়া বেগম, মেয়ে শরিফা, রশিদা, ছেলে নুরনবী ও ভাতিজা বেলাল হোসেন ভয়ে শুধু চোখের পানি ফেলা ছাড়া বিচারকদের বিরুদ্ধে কোন কথা বলতে সাহস পায়নি।
ইউপি সদস্য নুর মোহাম্মদ নুরু বলেন সেদিন আমি সালিসি বৈঠকে উপস্থিত ছিলাম না। শুনেছি সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান নুর জামাল এর সভাপতিত্বে উক্ত সালিসি বৈঠক হয়। এতে খয়েরের যে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয় তা সে নাকি দেয়নি। এ বিষয়ে বিস্তারিত বলতে পারবে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান নুর জামাল।
সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান নুর জামাল সালিসি বৈঠকের কথা অস্বীকার করে বলেন খয়ের হোসেনের মানসিক সমস্যা ছিল। এ কারণে সে গলায় রশি দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা চালায়।
হাসনাবাদ ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম মওলা আজাদ বাবলু বলেন ঘটনাটি শুনছি। এটি খুবই দুঃখজনক।
নাগেশ্বরী থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আফজালুর রহমান জানান যেহেতু তিনি রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন সেহেতু মামলা হলে রংপুর কোতোয়ালি থানায় হবে।

Leave a Reply

You must be logged in to post a comment.

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি এইচ, এম রহিমুজ্জামান সুমন
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ এস, এম নুরুল্ আমিন সরকার্
নির্বাহী সম্পাদকঃ নাজমুল হুদা পারভেজ
সম্পাদক কর্তৃক সারদা প্রেস, বাজার রোড, কুড়িগ্রাম থেকে মূদ্রিত ও উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম থেকে প্রকাশিত।
অফিসঃ উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম।
ফোনঃ ০৫৮২৫-৫৬০১৭, ফ্যাক্স: ০৫৮২৪৫৬০৬২, মোবাইল: ০১৭৩৩-২৯৭৯৪৩, ইমেইলঃ jugerkhabor@gmail.com
এই ওয়েবসাইট এর সকল লেখা,আলোকচিত্র,রেখাচ¬িত্র,তথ্যচিত্র যুগেরখবর এর অনুমতি ছাড়া হুবহু বা আংশিক নকল করা সম্পূর্ন কপিরাইট আইনে আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত যুগেরখবর.কম – ২০১৩-১৪