উত্তরাঞ্চলের ১৭টি জেলায় বাসের ট্রিপ কমিয়ে দিয়েছেন পরিবহন মালিকেরা

1503093368
যুগের খবর ডেস্ক: আসন্ন পবিত্র ঈদুল আজহা সামনে রেখে উত্তরাঞ্চলের ১৭টি জেলায় বাসের ট্রিপ কমিয়ে দিয়েছেন কয়েকটি পরিবহনের মালিকেরা। বন্যা ও সড়কের দুরবস্থাসহ বিভিন্ন কারণে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানানো হয়েছে।
পরিবহন মালিকেরা বলছেন, স্বাভাবিক সময়ে ঢাকা থেকে উত্তরের বিভিন্ন জেলায় যেতে ছয় থেকে আট ঘণ্টা লাগলেও বিদ্যমান পরিস্থিতিতে কখনো কখনো ১৫ ঘণ্টাও লেগে যাচ্ছে। এ অবস্থায় ঈদের আগে পরিস্থিতি আরও খারাপ হওয়ার আশঙ্কা থেকে তারা ট্রিপের সংখ্যা কমিয়ে দিয়েছেন।
গতকাল শুক্রবার ঈদ উপলক্ষে বাসের আগাম টিকিট বিক্রি শুরু হয়। তবে সকালে কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই উত্তরাঞ্চলের জেলাগুলোতে চলাচলকারী বাসের আগাম টিকিট শেষ হওয়ার কথা জানান কাউন্টারের ব্যবস্থাপকেরা। কারণ হিসেবে এই রুটগুলোতে ট্রিপের সংখ্যা কমিয়ে আনা ও আগাম টিকিট কম ছাড়ার কথা জানান তারা। এ বিষয়ে কথা হয় হানিফ এন্টারপ্রাইজের জ্যেষ্ঠ মহাব্যবস্থাপক আবদুস সামাদ মণ্ডলের সঙ্গে। তিনি জানান, গত ঈদে উত্তরবঙ্গের রুটগুলোতে দৈনিক সোয়া দুই শ পর্যন্ত ট্রিপ চালানো হয়েছে। এবার তা ১৭০-এ নামিয়ে আনা হয়েছে। প্রতি রুটেই দুই-তিনটি করে ট্রিপ কমেছে।
এর কারণ জানতে চাইলে আবদুস সামাদ  বলেন, ‘প্রথমত, অতিরিক্ত বৃষ্টি ও বন্যার কারণে রাস্তার অবস্থা খুবই খারাপ। এই রুটের দুটি সেতুর অবস্থাও ভালো না। এই রুটে একটা গাড়ি যেতে-আসতে ১৬ ঘণ্টার বেশি লাগে না। কিন্তু ঈদের আগে আমরা আপ-ডাউনের সময় ২৫ থেকে ৩০ ঘণ্টা পর্যন্ত ধরেছি।’ তিনি আরও বলেন, ‘এমনিতে ঈদের সময়ে দুই-তিন ঘণ্টা দেরিতেই যাত্রীরা অস্থির হয়ে যান। সেখানে যদি কাউকে সাত-আট ঘণ্টা পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয়, তাহলে তো সবার জন্যই বিপদ। তাই বেশি পরিমাণে আগাম টিকিট বিক্রি করে আমরা কাউকে বেকায়দায় ফেলতে চাই না।’
আবদুস সামাদ বলেন, পরিস্থিতি অনুকূলে থাকলে ঈদের আগে আগে ট্রিপের সংখ্যা বাড়ানো হবে।
একই কারণে শ্যামলী পরিবহনের ট্রিপের সংখ্যা ২০ শতাংশ কমিয়ে আনা হয়েছে বলে জানান এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক রমেশ চন্দ্র ঘোষ। তিনি বলেন, ‘স্বাভাবিক সময়ে দৈনিক উত্তরবঙ্গের জেলাগুলোতে শ্যামলী পরিবহনের ৩০০ বাস ছেড়ে যায়। কিন্তু পরিস্থিতি বিবেচনায় আমরা তা কমিয়ে এনেছি। কারণ, তখন বন্যা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়, বৃষ্টি আরও বাড়ে কি না, সে বিষয়ে দুশ্চিন্তা আছে।’
এদিকে আগাম টিকিট কিনতে গতকাল অনেকে সূর্য ওঠার আগেই লোকজন ভিড় করেন কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন ও বাস কাউন্টারগুলোতে। চাঁদ দেখা সাপেক্ষে এবার ঈদের ছুটি আগামী ১ থেকে ৩ সেপ্টেম্বর। যে কারণে ৩০ ও ৩১ আগস্টের টিকিটের চাহিদা ছিল বেশি। তবে দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাঁড়ানোর ভোগান্তি শেষে টিকিটপ্রাপ্তির আনন্দ ছুঁয়ে যেতে দেখা গেল অনেকের চোখে।
আগাম টিকিট বিক্রি শুরুর দিনে কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে ভিড় থাকলেও টিকিট না পাওয়ার হতাশায় পুড়তে হয়নি কাউকে। গতকাল দেওয়া হয় ২৭ আগস্টের ট্রেনের টিকিট। গতকাল সকাল সাড়ে ১০টা পর্যন্ত অনেকটা নির্বিঘ্নেই টিকিট নিতে দেখা যায় যাত্রীদের। তবে নারীদের কাউন্টারে টিকিটপ্রত্যাশীদের ভিড় ছিল কম।
 কমলাপুর রেলস্টেশনের ম্যানেজার সিতাংশু চক্রবর্ত্তী জানান, ঈদের আগের পাঁচ দিন অর্থাৎ ২৮ আগস্ট থেকে সব ট্রেনের সাপ্তাহিক যাত্রাবিরতি বাতিল করা হয়েছে। এটা এক দিন আগে (২৭ আগস্ট) পড়েছে। সে ক্ষেত্রে রংপুর এক্সপ্রেস ট্রেনের বিকল্প কী, জানতে চাইলে তিনি বলেন, ঢাকা থেকে রংপুর রুটে লালমনি এক্সপ্রেস ও নীলসাগর ট্রেন আছে। সেগুলোতেও যাত্রীরা যেতে পারবেন। তিনি বলেন, ঈদ উপলক্ষে ঢাকা-পার্বতীপুর, ঢাকা-রাজশাহী, ঢাকা-দেওয়ানগঞ্জ রুটে বিশেষ ট্রেন চলবে। কিশোরগঞ্জের ভৈরব থেকে শোলাকিয়া পর্যন্ত এক জোড়া ট্রেন চলবে।
রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের তথ্য অনুযায়ী, প্রতিদিন ৩১টি ট্রেনের ২২ হাজার ৪৯৬টি টিকিট বিক্রি করা হবে। এর মধ্যে ২৫ শতাংশ অনলাইনে, ৫ শতাংশ ভিআইপি, ৫ শতাংশ রেলওয়ে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য বরাদ্দ রয়েছে। বাকি ৬৫ শতাংশ টিকিট কাউন্টার থেকে বিক্রি করা হবে।
ট্রেনের অগ্রিম টিকিট ২২ আগস্ট পর্যন্ত রাজধানীর কমলাপুর রেলস্টেশন ও চট্টগ্রাম রেলস্টেশনের নির্ধারিত স্থানে বিশেষ ব্যবস্থাপনায় প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে দেওয়া হবে। ২৯ আগস্ট থেকে সাত জোড়া বিশেষ ট্রেন পরিচালনা করবে বাংলাদেশ রেলওয়ে।

Leave a Reply

You must be logged in to post a comment.

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি এইচ, এম রহিমুজ্জামান সুমন
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ এস, এম নুরুল্ আমিন সরকার্
নির্বাহী সম্পাদকঃ নাজমুল হুদা পারভেজ
সম্পাদক কর্তৃক সারদা প্রেস, বাজার রোড, কুড়িগ্রাম থেকে মূদ্রিত ও উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম থেকে প্রকাশিত।
অফিসঃ উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম।
ফোনঃ ০৫৮২৫-৫৬০১৭, ফ্যাক্স: ০৫৮২৪৫৬০৬২, মোবাইল: ০১৭৩৩-২৯৭৯৪৩, ইমেইলঃ jugerkhabor@gmail.com
এই ওয়েবসাইট এর সকল লেখা,আলোকচিত্র,রেখাচ¬িত্র,তথ্যচিত্র যুগেরখবর এর অনুমতি ছাড়া হুবহু বা আংশিক নকল করা সম্পূর্ন কপিরাইট আইনে আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত যুগেরখবর.কম – ২০১৩-১৪