**   পবিত্র আশুরা ১ অক্টোবর **   রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে জাতিসংঘে ৫ দফা প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রীর **   চিলমারীতে প্রতিবন্ধি শিক্ষার্থীদের মাঝে ডিভাইজ বিতরণ **   রোহিঙ্গা সঙ্কট নিয়ে জাতিসংঘে যা বলল মিয়ানমার **   রোহিঙ্গা মুসলিম হত্যার প্রতিবাদে উলিপুরে আলেম-ওলামাদের মানববন্ধন **   এবার যে কারণে বিতর্কে সানি লিওন **   ধর্ষক রাম রহিমের পালিত কন্যা হানিপ্রীত গ্রেফতার **   ভূরুঙ্গামারীতে ছাত্রীকে যৌন হয়রানি করায় শিক্ষক বরখাস্ত **   রোহিঙ্গা ইস্যুতে ট্রাম্পের সাহায্য আশা করি না: প্রধানমন্ত্রী **   প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে সীমাহীন দূর্নীতির অভিযোগ ॥ উলিপুর কাঁঠালবাড়ী দ্বিমূখী উচ্চ বিদ্যালয় ৩ ধরে তালা বন্ধ

কারাগারে মেয়ের সঙ্গে রাত্রিবাসের ইচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন রাম রহিম!

1503934299

দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পর গুরমিত রাম রহিমকে নিয়ে যখন আদালত চত্তর ছেড়ে বেরিয়ে যাচ্ছিল সেনার হেলিকপ্টার তখন তার পাশে বসে থাকা এক মহিলার পরিচয় নিয়ে নানা প্রশ্ন ওঠে। কয়েক ঘন্টার মধ্যেই অবশ্য সব ধোঁয়াশা পরিষ্কার হয়ে যায়। জানা যায় ইনি নাকি গুরমিতের তৃতীয় কন্যা, হানিপ্রীত।
তবে এই মুহূর্তে আরও বেশি আলোচ্য বিষয় হল, গুরমিত এবং হানিপ্রীত দু’জনেরই একান্ত ইচ্ছা ছিল, রোহতাকের জেলে তাদের যেন একসঙ্গে রাখা হয়। দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পর রাম রহিম এবং হানিপ্রীত দু’জনেই পঞ্চকুলার সিবিআই আদালতে আবেদন রেখেছিলেন যাতে তাদের জেলে একসঙ্গে থাকার অনুমতি দেওয়া হয়। ডেরা সচ্চা সৌদার প্রধান ফর্মাল পিটিশন দায়ের করেছিলেন। অন্যদিকে হানিপ্রীত তার আইনজীবীর মাধ্যমে আবেদন করেছিলেন। তার বক্তব্য তিনি আকুপ্রেশার বিশেষজ্ঞ এবং বাবা রাম রহিমের মাইগ্রেন এবং পিঠের ব্যাথার চিকিৎসা একমাত্র তিনিই পারবেন করতে।
সিবিআই আদালত অবশ্য আবেদন খারিজ করে দিয়ে জানায়, এই সিদ্ধান্ত নেওয়ার অধিকার একমাত্র কেন্দ্রীয় সরকার এবং জেল কর্তৃপক্ষেরই রয়েছে। এর পর জেল কর্তৃপক্ষের কাছে রাম রহিম এই আবেদন রাখেন। জেলের তরফে যখন জানানো হয় একজন পুরুষের সঙ্গে একজন নারীকে একসঙ্গে জেলের ভিতর থাকতে দেওয়ার কোনও নিয়ম নেই, তখন জেল কর্তৃপক্ষকে হুমকি দেন ডেরা প্রধান। বলেন, যদি হানিপ্রীতকে তার সঙ্গে থাকতে দেওয়া না হয় তাহলে তাদের প্রত্যেককে চাকরি থেকে বরখাস্ত করিয়ে ছাড়বেন।
প্রভাবশালী গুরমিত রাম রহিমের তরফে এতটাই চাপ সৃষ্টি করা হয় যে অবশেষে জেল কর্তৃপক্ষ হানিপ্রীতকে ডেরা প্রধানের সঙ্গে প্রায় ১ ঘন্টা ৪৫ মিনিট জেলের ভিআইপি অবসর কক্ষে একা ছেড়ে দিতে বাধ্য হন। তবে এতেও শান্ত করা যায়নি বাবা ও তার কন্যাকে! তাদের দাবি ছিল রাতেও একসঙ্গে থাকতে দিতে হবে। তাতে জেল কর্তৃপক্ষ রাজি না হওয়ায় আরও বেশ কিছুক্ষণ হম্বিতম্বি চালান দু’জনেই।
ফেসবুক প্রোফাইলে নিজেরে পাপাজ পরি বলে পরিচয় দেন হানিপ্রীত। প্রিয়াঙ্কা তানেজা ওরফে হানিপ্রীতকে ২০০৯ সালে দত্তক নেন গুরমিত।-টাইমস অব ইন্ডিয়া

Leave a Reply

You must be logged in to post a comment.

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি এইচ, এম রহিমুজ্জামান সুমন
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ এস, এম নুরুল্ আমিন সরকার্
নির্বাহী সম্পাদকঃ নাজমুল হুদা পারভেজ
সম্পাদক কর্তৃক সারদা প্রেস, বাজার রোড, কুড়িগ্রাম থেকে মূদ্রিত ও উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম থেকে প্রকাশিত।
অফিসঃ উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম।
ফোনঃ ০৫৮২৫-৫৬০১৭, ফ্যাক্স: ০৫৮২৪৫৬০৬২, মোবাইল: ০১৭৩৩-২৯৭৯৪৩, ইমেইলঃ jugerkhabor@gmail.com
এই ওয়েবসাইট এর সকল লেখা,আলোকচিত্র,রেখাচ¬িত্র,তথ্যচিত্র যুগেরখবর এর অনুমতি ছাড়া হুবহু বা আংশিক নকল করা সম্পূর্ন কপিরাইট আইনে আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত যুগেরখবর.কম – ২০১৩-১৪