**   রোহিঙ্গা সঙ্কট নিয়ে জাতিসংঘে যা বলল মিয়ানমার **   রোহিঙ্গা মুসলিম হত্যার প্রতিবাদে উলিপুরে আলেম-ওলামাদের মানববন্ধন **   এবার যে কারণে বিতর্কে সানি লিওন **   ধর্ষক রাম রহিমের পালিত কন্যা হানিপ্রীত গ্রেফতার **   ভূরুঙ্গামারীতে ছাত্রীকে যৌন হয়রানি করায় শিক্ষক বরখাস্ত **   রোহিঙ্গা ইস্যুতে ট্রাম্পের সাহায্য আশা করি না: প্রধানমন্ত্রী **   প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে সীমাহীন দূর্নীতির অভিযোগ ॥ উলিপুর কাঁঠালবাড়ী দ্বিমূখী উচ্চ বিদ্যালয় ৩ ধরে তালা বন্ধ **   উলিপুরে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত শিশুসহ ২৩ জন **   কুড়িগ্রামের ফুলবাড়িতে ধরলার স্রোতে ভেসে যাওয়া ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার **   থানাহাট বাজার আদর্শ বণিক কল্যাণ সংস্থার কার্যনির্বাহী পরিষদের ভোট গ্রহণ সম্পন্ন ॥ সভাপতি মঞ্জু, সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান

বন্যা খড়া কিছু বুঝি না কিস্তির টাকা দাও

স্টাফ রিপোর্টার: আশ্রয় ও খাবারের খোঁজে যখন বন্যা দুর্গতরা ছুটছেন, তখন তাদের তাড়া করে ফিরছেন এনজিও কর্মীরা। দুর্গত এলাকায় ব্যবসা-বাণিজ্য বন্ধ। কাজের সংকট থাকায় বন্ধ হয়ে গেছে আয়। তিন বেলা খাবার যোগাতেই যখন সাহায্যের দিকে তাকিয়ে মানুষ, সেই অবস্থাতেও দুশ্চিন্তা হয়ে দাঁড়িয়েছে ক্ষুদ্র ঋণের কিস্তি। এভাবেই এনজিও‘র জালে ঘুরপাক খেয়ে নাভিশ^াস উঠেছে বন্যা দূর্গতদের।
কুড়িগ্রামের চিলমারী উপজেলার ব্রহ্মপূত্র ও তিস্তা নদীর বিস্তীর্ণ অঞ্চল এখন বন্যা কবলিত। পানিতে ডুবে গেছে ফসল, নিচু এলাকায় বাড়িতেও থাকতে পারেনি মানুষ। জরুরি প্রয়োজনে বা আয়বর্ধক কোনো কাজে অর্থায়নের জন্য ঋুদ্র ঋণদাতা প্রতিষ্ঠানের কাছে অর্থ নিয়েছিলেন দুর্গতরা। প্রতি সপ্তাহেই শোধ করতে হয় এই ঋণের কিস্তি। আয় থাকলে এই কিস্তি দেয়া তেমন কোনো ঝামেলা হয় না বেশিরভাগ মানুষের কাছেই। তবে টাকার যোগান বন্ধ হওয়ায় এদের বিপাকে পড়তে হচ্ছে।
কেউ কেউ কিস্তি দিতে জমানো টাকা ভাঙছে, কেউ বা ধারদেনা করছে, আবার কেউ এনজিওর ঋণ পরিশোধে অন্য এনজিও থেকে ঋণ নিচ্ছে। এতে একটি সংস্থার ঋণ পরিশোধ হলেও আসলে বেড়ে যাচ্ছে ঋণের বোঝা।
ক্ষুদ্র ঋণের কিস্তি আদায়ে নিু আয়ের মানুষ দূর্ভোগে পড়লেও বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় প্রশাসন কোনো উদ্যোগ নেয়নি। আর ক্ষুদ্র ঋণ দাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর স্থানীয় কর্মীরা নির্দেশনা না থাকায় চাকরির স্বার্থেই জোর জবরদস্তি করে যাচ্ছে এসব বানভাসি মানুষকে।
চিলমারী উপজেলায় প্রায় অর্ধ শতাধিক এনজিও কাজ করছে। দুর্যোগ দুর্ভোগে মানুষের পাশে না দাঁড়ালেও কিস্তির টাকা তুলছেন ঠিকই। মুঠোফোনে কথা বেশ কয়েকটি এনজিও‘র স্থানীয় শাখা ব্যবস্থাপকদের সাথে কথা হলে, তারা কিস্তি আদায়ের কথা অস্বীকার করলেও বাস্তবে কিস্তি আদায় করা বন্ধ নেই। বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা ফ্রেন্ডশীপ সামান্য কিছু ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করলেও তা অল্প কিছু মানুষের মাঝে এবং তাদের নির্দিষ্ট কর্মএলাকার বাইরে নয়। আরডিআরএস বাংলাদেশ প্লান ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের সহায়তায় উপজেলার অষ্টমীরচর ও চিলমারী ইউনিয়নের ১ হাজার ৬‘শ মানুষের মাঝে জনপ্রতি ৪ হাজার টাকা করে বিতরণ করলেও কিস্তি আদায় বন্ধ রাখেনটি এনজিওটি। আশা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট হস্তান্তর করেন ৩‘শ কেজি চিড়া সাথে কিছু গুড়। এসএসএস এর পক্ষ থেকে কিছু ঔষধপত্র দেয়ার কথা জানা গেছে। ৩‘শ পরিবারে শিশু খাদ্য বিতরণ করেছে লাইট হাউস। গ্রামীণ ব্যাংক, উদ্দীপন, ব্র্যাক, আশা, এসএসএস, আরডিআরএস বাংলাদেশ, টিএমএসএস, বুরো বাংলাদেশ, উদয়,
উলিপুর উপজেলার বজরা ইউনিয়নের সাতালস্কর গ্রামের বাসিন্দা হাছনা বানু। তিন বেলা খাবার জোগাড় করতে পারছেন না। এই অবস্থাতে ‘মরার ওপর খাড়ার ঘা’ হিসেবে দেখা দিয়েছে ক্ষুদ্র ঋণের এনজিও। মানবেতর জীবন যাপনের মধ্যেও এনজিও আশা বজরা শাখার মাঠ কর্মী শাহাজাহান আলী কিস্তির টাকার জন্য বার বার তাগাদা দিয়ে হাছনা বানুর কাছে টাকা তুলে নিয়ে গেছেন।
হাছনা বানু এ প্রতিনিধিকে বলেন, ‘বন্যায় বাড়িত পানি উঠছে, ঘরে খাবার নাই, কোনো মতে জীবন চলছে। এরমধ্যে কোথায় পাবো কিস্তির টাকা।’ একইভাবে জানালেন, মাজেদা বেগম।
গত শনিবার মাঠকর্মী ওই এলাকায় যায় কিস্তির টাকা তুলতে। তিনি পানিবন্দি ঋণ গ্রহিতাদের উদ্দেশ্যে বলেন, এটা আশা এনজিও, আমাদের কাছে খড়া বন্যা কিছুই নেই। টাকা না দিলে ভবিষ্যতে আর ঋণ দেয়া হবে না।
মাঠ কর্মী শাহাজাহান আলীর সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ হলে তিনি কিস্তি আদায়ের কথা স্বীকার করেন।
আশা বজরা শাখার ব্যবস্থাপক ফজলুল করিমের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, আমার ৫জন মাঠকর্মী আছে। তাদেরকে মাঠে পাঠাই কিস্তি আদায়ের জন্য। যারা কিস্তি দিচ্ছে তাদেরটা নেয়া হচ্ছে আর যারা দিচ্ছে না তাদের কাছে জোড় করে আদায় করা হচ্ছে না।
একইভাবে টাকা তোলার অভিযোগ উঠেছে, এসকেএস, টিএমএসএসসহ সবক’টি বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা বিরুদ্ধে।
উলিপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুহাম্মদ শফিকুল ইসলামের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, বন্যার সময় ঋণের টাকা কোন অবস্থাতেই জোড় জবর দস্তি করে তোলা যাবে না। এ বিষয়ে সকল এনজিওদের বলা হয়েছে।

Leave a Reply

You must be logged in to post a comment.

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি এইচ, এম রহিমুজ্জামান সুমন
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ এস, এম নুরুল্ আমিন সরকার্
নির্বাহী সম্পাদকঃ নাজমুল হুদা পারভেজ
সম্পাদক কর্তৃক সারদা প্রেস, বাজার রোড, কুড়িগ্রাম থেকে মূদ্রিত ও উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম থেকে প্রকাশিত।
অফিসঃ উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম।
ফোনঃ ০৫৮২৫-৫৬০১৭, ফ্যাক্স: ০৫৮২৪৫৬০৬২, মোবাইল: ০১৭৩৩-২৯৭৯৪৩, ইমেইলঃ jugerkhabor@gmail.com
এই ওয়েবসাইট এর সকল লেখা,আলোকচিত্র,রেখাচ¬িত্র,তথ্যচিত্র যুগেরখবর এর অনুমতি ছাড়া হুবহু বা আংশিক নকল করা সম্পূর্ন কপিরাইট আইনে আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত যুগেরখবর.কম – ২০১৩-১৪