যৌথ রফতানি জরিপের জন্য বাংলাদেশকে ভারতের প্রস্তাব

1512292449
যুগের খবর ডেস্ক: বাংলাদেশ ও ভারত কি কি পণ্য রফতানি করে তা যৌথভাবে জরিপের জন্য বাংলাদেশকে প্রস্তাব দিয়েছে ভারত, যাতে এক দেশ অন্যের পরিপূরক হতে পারে এবং সমন্বয়ের মাধ্যমে দুই দেশের অর্জন আরো বাড়ে।
১ ডিসেম্বর নিজ কার্যালয়ে বৈঠকের সময় বাংলাদেশের সফররত শিল্পমন্ত্রী আমীর হোসেন আমুকে এ প্রস্তাব দেন ভারতের বাণিজ্যমন্ত্রী সুরেশ প্রাভু।
শিল্পায়নের প্রসারে এবং বাংলাদেশে ভারতের বিনিয়োগ বৃদ্ধির জন্য দুই দেশের সমন্বয় বাড়ানোর বিষয়ে আলোচনা করেন দুই মন্ত্রী। নয়াদিল্লীতে বাংলাদেশ হাইকমিশনের এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে বলে আমাদের নয়াদিল্লী প্রতিনিধি জানিয়েছেন।
বাংলাদেশের বিনিয়োগ-বান্ধব পরিবেশের কথা উল্লেখ করে আমু ভারতীয় বিনিয়োগকারীদের বাংলাদেশের শিল্পখাতে বিনিয়োগের আহ্বান জানান। বাংলাদেশের শিল্পায়নকে এগিয়ে নিতে আগামী বছরের প্রথমার্ধে কোন এক সময় দুই মন্ত্রী ঢাকায় মিলিত হওয়ার ব্যাপারে একমত হন।
বিবৃতিতে বলা হয়, ‘এছাড়া, ভারতীয় মন্ত্রী দুই দেশের রফতানি পণ্য নিয়ে যৌথ জরিপের প্রস্তাব দেন যাতে এক দেশ অন্যের পরিপূরক হতে পারে এবং যাতে আরও অধিক লাভবান হওয়া যায়।’ যদিও এ প্রস্তাব সম্পর্কে আমুর প্রতিক্রিয়া কি ছিল, তা বিবৃতিতে বলা হয়নি।
তিস্তা নদীর পানি-বন্টন চুক্তির অগ্রগতি সম্পর্কে আমুর এক প্রশ্নের জবাবে প্রাভু আবারও উল্লেখ করেন যে, চুক্তিটি দ্রুত শেষ করার ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির যথেষ্ট আগ্রহ রয়েছে।
সাবেক পরিবেশ ও বনমন্ত্রী প্রাভু সুন্দরবনের উদ্ভিদ ও প্রাণী সংরক্ষণে বাংলাদেশের সাথে যৌথভাবে কাজ করার ব্যপারেও আগ্রহ জানান।
বাংলাদেশে শিগগিরই সফরের জন্য বাংলাদেশের মন্ত্রীর প্রস্তাবেও সম্মত হন প্রাভু।
এর আগে নয়া দিল্লিতে ২১তম ‘ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্স অন স্মল অ্যান্ড মিডিয়াম এন্টারপ্রাইজেস’- এ অংশ নেন বাংলাদেশের শিল্পমন্ত্রী। সেখানে ‘ইন্টিগ্রেশান অফ এসএমই’স ইন গ্লোবাল ভ্যালু চেইন (জিভিসি) – চ্যালেঞ্জেস অ্যান্ড অপরচুনিটিজ’ শীর্ষক সেশনে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন তিনি। প্রবন্ধে তিনটি বিষয়ে বিশেষভাবে গুরুত্ব দেন মন্ত্রী: সমন্বিত প্রবৃদ্ধির জন্য ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের (এসএমই) গুরুত্ব, জিভিসিতে এসএমইকে সম্পৃক্ত করার উপায় এবং জিভিসিতে আরও গভীরভাবে অন্তর্ভুক্তির জন্য পদক্ষেপ গ্রহণ।
তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নীতি ও দিক নির্দেশনার অধীনে আমরা অনেক প্রতিকূলতার মধ্যেও এমডিজি’র ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি অর্জন করেছি।’
এসএমইকে বাংলাদেশের অর্থনীতির চালিকাশক্তি হিসেবে উল্লেখ করে আমু বলেন, ‘বাংলাদেশের শিল্প-উদ্যোগের ৯০ শতাংশেরও বেশি দখল করে আছে আমাদের এসএমই খাত। প্রবৃদ্ধির ২৫ শতাংশ আসে এই খাত থেকে আর দেশের পুরো কর্মসংস্থানের (কৃষিসহ) ২৩ শতাংশ হচ্ছে এই খাতে। এর মধ্যে ৮০-৮৫ শতাংশ শিল্পখাতের কর্মসংস্থান এবং ৭৫ শতাংশের আয় হচ্ছে গৃহস্থালী থেকে।’- সংবাদমাধ্যম

Leave a Reply

You must be logged in to post a comment.

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি এইচ, এম রহিমুজ্জামান সুমন
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ এস, এম নুরুল্ আমিন সরকার্
নির্বাহী সম্পাদকঃ নাজমুল হুদা পারভেজ
সম্পাদক কর্তৃক সারদা প্রেস, বাজার রোড, কুড়িগ্রাম থেকে মূদ্রিত ও উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম থেকে প্রকাশিত।
অফিসঃ উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম।
ফোনঃ ০৫৮২৫-৫৬০১৭, ফ্যাক্স: ০৫৮২৪৫৬০৬২, মোবাইল: ০১৭৩৩-২৯৭৯৪৩, ইমেইলঃ jugerkhabor@gmail.com
এই ওয়েবসাইট এর সকল লেখা,আলোকচিত্র,রেখাচ¬িত্র,তথ্যচিত্র যুগেরখবর এর অনুমতি ছাড়া হুবহু বা আংশিক নকল করা সম্পূর্ন কপিরাইট আইনে আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত যুগেরখবর.কম – ২০১৩-১৪