কলকাতায় সব্যসাচী সাহিত্য পদক পেলেন কথাসাহিত্যিক উমর ফারুক

SAMSUNG CAMERA PICTURES

স্টাফ রিপোর্টার: বাংলা সাহিত্যে অবদান রাখায় কলকাতায় সব্যসাচী সাহিত্য পদক-২০১৭ পেলেন বাংলাদেশের কথাসাহিত্যিক এম.উমর ফারুক। গত বৃহষ্পতিবার সন্ধ্যায় কোলকাতার আলিমুদ্দিন স্ট্রিটের একটি  মিলনায়তনে এ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। সব্যসাচী পত্রিকার সম্পাদক কবি ও কথা সাহিত্যিক নরেশ মন্ডলের সভাপতিত্বে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, কথাসাহিত্যিক ঘনশ্যাম চৌধুরী, শ্যামা প্রসাদ ভট্রাচার্য ও রাহুল গোস্বামী প্রমুখ। অনুষ্ঠানে কথাসাহিত্যিক এম.উমর ফারুককে উত্তরীয় পরিয়ে ও ফুল দিয়ে বরন করে নেন। পরে তার হাতে সব্যসাচী পদক তুলে দেন।
এসময় কথাসাহিত্যিক ঘনশ্যাম চৌধুরী বলেন, বাংলাদেশে তুলনামুলকভাবে অনেক ভাল সাহিত্য চর্চা হচ্ছে। বাংলাদেশের অনেক লেখক কোলকাতায় এসে বই প্রকাশ করছে। কলকাতার অনেক লেখক বাংলাদেশে গিয়ে বই প্রকাশ করছে। সাহিত্য দু’দেশের লেখক আর পাঠকের মাঝে একটা সম্পর্কের সেতুবন্ধন হিসেবে কাজ করছে।
সব্যসাচী পত্রিকার সম্পাদক কবি ও কথা সাহিত্যিক নরেশ মন্ডল বলেন, বাংলাদেশের কথা সাহিত্যিক এম.উমর ফারুকের লেখা সব্যসাচী পত্রিকায় নিয়মিত প্রকাশিত হয়েছে। তার প্রকাশিত উপন্যাস ও ছোট গল্পের বই পড়েছি। এর মধ্যে যে রাতে দিন হয় না উপন্যাসটি বেশ ভাল। তাই এম.উমর ফারুককে সব্যসাচী সাহিত্য পদক ২০১৭ তুলে দেয়া হলো।
কথাসাহিত্যিক এম. উমর ফারুক ১৯৯৭ সালে কবিতা লেখার মধ্যদিয়ে লেখালেখি শুরু করেন। এছাড়াও তিনি উপন্যাস ছড়া, কবিতা, গল্প, প্রবন্ধ, গান ও নাটক লেখেন নিয়মিত। তার লেখা একাধিক নাটক টিভিতে প্রচারিত হয়েছে। তার লেখা গানের বেশ কয়েকটি এ্যালবামও প্রকাশ পেয়েছে।
লেখক সাহিত্যে অবদানের জন্য ঢাকা রির্পোটার্স ইউনিটি লেখক সম্মাননা- ২০১৭ ২০১৬, ২০১৫, ২০১৪, ২০১৩ ও ২০১১ পেয়েছেন। জাতীয় মানবাধিকার পদক-২০১২, হাছন রাজা স্মৃতি স্বর্ণ পদক-২০১০ পান। চিলমারী পাবলিক লাইব্রেরী লেখক সংবর্ধনা-২০০৭ পান। রংপুর ছান্দসিক সাহিত্য সেরা কবি ২০০৮ সম্মাননা ও বাংলাদেশ সাহিত্য পরিষদ হতে ছান্দসিক কবি পদক-২০০২ লাভ করেন। সাহিত্যে অবদানের জন্য চিলমারী থেকে  সাপ্তাহিক জনপ্রাণ থেকেও সংবর্ধিত হন। এছাড়াও তিনি বিভিন্ন সামাজিক সাংষ্কৃতিক সংগঠন থেকে সংবর্ধিত হন। লেখক চিলমারী সাংবাদিক ফোরামের প্রতিষ্ঠাতা, সৃজন সাহিত্য পরিষদ এর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও সাহিত্য পত্রিকা  বেলা অবেলা’র সম্পাদক।
লেখকের প্রকাশিত গ্রন্থসমুহ হচ্ছে, যে রাতের দিন হয় না (উপন্যাস), ঝরা ফুলের ঘ্রাণ ( ছোট গল্প), মেঘে ঢাকা চাঁদ (উপন্যাস), পথে প্রান্তরে সাংবাদিকতা (সাংবাদিকতা বিষয়ক), যন্ত্রণার পদাবলি (উপন্যাস), হৃদয় ভাঙ্গা ঢেউ ( ছোট গল্প), হৃদয়ের পরবাসে (কাব্যগ্রন্থ) নির্মম নিয়তি (উপন্যাস), প্রেম শুধু কাঁদিয়ে গেল (উপন্যাস) বইগুলো ইতোমধ্যে পাঠক প্রিয়তা  পেয়েছে।
প্রতিশ্র“তিশীল লেখক এম. উমর ফারুক ১৯৮৪ সালের ২৪ ফেব্র“য়ারি কুড়িগ্রাম জেলার উলিপুর উপজেলার তবকপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ সাদুল্যা তেলীপাড়া গ্রামে জন্ম গ্রহণ করেন। তিনি মো. গোলাম হোসেন সরকার ও আনোয়ারা বেগমের চার সন্তানের মধ্যে সবার বড়।

Leave a Reply

You must be logged in to post a comment.

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি এইচ, এম রহিমুজ্জামান সুমন
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ এস, এম নুরুল্ আমিন সরকার্
নির্বাহী সম্পাদকঃ নাজমুল হুদা পারভেজ
সম্পাদক কর্তৃক সারদা প্রেস, বাজার রোড, কুড়িগ্রাম থেকে মূদ্রিত ও উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম থেকে প্রকাশিত।
অফিসঃ উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম।
ফোনঃ ০৫৮২৫-৫৬০১৭, ফ্যাক্স: ০৫৮২৪৫৬০৬২, মোবাইল: ০১৭৩৩-২৯৭৯৪৩, ইমেইলঃ jugerkhabor@gmail.com
এই ওয়েবসাইট এর সকল লেখা,আলোকচিত্র,রেখাচ¬িত্র,তথ্যচিত্র যুগেরখবর এর অনুমতি ছাড়া হুবহু বা আংশিক নকল করা সম্পূর্ন কপিরাইট আইনে আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত যুগেরখবর.কম – ২০১৩-১৪