বেশি পরিশ্রম করেছে ফ্রান্স নাকি বেলজিয়াম?

mbappe-lukaku-samakal-5b44d2573f42e

স্পোর্টস ডেস্ক: ফ্রান্স এবং বেলজিয়ামের মধ্যে সেমিফাইনালের ম্যাচে দারুণ গতির এক ম্যাচ দেখা যেতে পারে। বেলজিয়ামের হ্যাজার্ড, লুকাকুর যেমন আছে দুর্দান্ত গতি। তেমন ফ্রান্সের এমবাপ্পে, গিজম্যানদের গতি প্রতিপক্ষকে ভড়কে দেওয়ার মতো। দু’দলই খেলে ফেলেছে পাঁচটি করে ম্যাচ। রাশিয়া বিশ্বকাপে এখনো হারের স্বাদ নিতে হয়নি কাউকে। কিন্তু সেমিফাইনালে যে কোন এক দলকে হারতে হবে। আর এক্ষেত্রে ব্যবধান গড়ে দিতে পারে দু’দলের গতি। আগের ম্যাচগুলোতে আক্রমণভাগের খেলোয়াড়রা কে কতো দৌড়েছেন, সুযোগ তৈরি করেছন তার একটি ধারণা এখানে তুলে ধরা হলো:

হ্যাজার্ড: বিশ্বকাপের শুরু থেকেই হ্যাজার্ডের চোটের সমস্যা ছিল। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচে বেলজিয়াম কোচ মাঠের বাইরে রাখেন তাকে। তিনি রাশিয়া বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত জ্বলন্ত এক তারা। কিন্তু তার আলো আরও বেশি হওয়ার কথা ছিল। এবারের বিশ্বকাপে শুরুর একাদশে তিনি খেলেছেন চার ম্যাচ। তাতে তিনি দৌড়েছেন ৩৬.৭ কিলোমিটার। গোলের লক্ষ্যে শট নিয়েছেন পাঁচটি। আর তার শট থেকে জালে বল জড়িয়েছে দুইটি। এছাড়া তিনি গোলমুখে আক্রমণ করেছেন ১৩টি। সতীর্থদের উদ্দেশ্যে পাস দিয়েছেন ১৫৭টি। তার মধ্যে সফল পাস দিতে পেরেছেন ১২৬টি। এছাড়া তিনি ১০টি ড্রিবলিংয়ের চেষ্টা করে ১০টিতেই সফল হয়েছেন। একমাত্র তার ড্রিবলিংয়ের সফলতা শতভাগ।

লুকাকু: ম্যানচেষ্টার ইউনাইটেডে রোমেলু লুকাকু দারুণ এক মৌসুম কাটিয়েছেন। ম্যান ইউ কোচ মরিনহোর পাল্টা আক্রমণ এবং গতির ফুটবলের সঙ্গে তিনি দারুণ মানিয়ে নিয়েছেন। আর সেই গতি তিনি বেলজিয়ামের হয়েও মাঠে প্রয়োগ করেছেন। লুকাকুর এরই মধ্যে চার গোল হয়ে গেছে তার নামের পাশে। আর ফ্রান্স স্ট্রাইকার অলিভার জিরুদ এখনো কোন গোল করতে পারেননি। এছাড়া জাপানের বিপক্ষে জয় সূচক গোলটি তার বানিয়ে দেওয়া। ব্রাজিলের বিপক্ষে দ্বিতীয় গোলটিরও অবদান লুকাকুর। বেলজিয়াম কোচ রর্বাতো মার্টিনেজের কৌশলে তাই লুকাকু অপরিহার্য এক নাম।

ডি ব্রুইনি: বর্তমান সেরা মিডফিল্ডারদের একজন ধরা হয় ডি ব্রুইনিকে। কিন্তু রাশিয়া বিশ্বকাপে তার ভূমিকা ‘ফলস নাইন’ হিসেবে খেলা। এখন পর্যন্ত ডি ব্রুইনি তাতে যেমন সফল তেমনি লুকাকুর জন্য জায়গা তৈরি করে দিচ্ছেন বেশ। ডি ব্রুইনি এখন পর্যন্ত ৪৩.৩ কিলোমিটার দৌড়েছেন। ২১৯ পাসের চেষ্টায় ১৭৮বার সফল হয়েছেন। ৮টি আক্রমণ শেনেছেন। একটি গোল করেছেন। এছাড়া দুটি আক্রমণ গোল পাওয়ার মতো ছিল। মাঠে ব্রুইনি ১৭টি ক্রসও দিয়েছেন।

অ্যান্তোনিও গ্রিজম্যান: ফ্রান্স তারকা এখন পর্যন্ত ৪৪ কিলোমিটার দৌড়েছেন। গালের লক্ষ্যে আক্রমণ তুলেছেন ১৪টি। তার মধ্যে ৮টি শট রেখেছেন লক্ষ্যে। গোল পেয়েছেন ৩টি। ম্যাচে অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদ তারকা গ্রিজম্যান ১৭৬ পাস দিয়েছেন। তার মধ্যে সফল পাস ১২৭টি। পেনাল্টি বক্সে তিনি ৭টি বল থ্রু দিয়েছেন। এছাড়া ক্রস দিয়েছেন আরও ১২টি।

এমবাপ্পে: গতির বিবেচনায় হ্যাজার্ডের থেকে এমবাপ্পে এগিয়ে এটা মানতে হবে। ডেনমার্কের বিপক্ষে গ্রুপ পর্বের ম্যাচে বসে ছিলেন এমবাপ্পে। এছাড়া বাকি চার ম্যাচের মধ্যে পুরো সময় মাঠে থাকেননি তিনি। তবে মাঠে দৌড়েছেন ৩৪.২ কিলোমিটার। মাঠে ৮টি আক্রমণ করেছেন। তার মধ্যে পাঁচটি শট নিয়েছেন লক্ষ্যে। গোল পেয়েছেন ৩টি। এমবাপ্পে ১১৫টি পাস দেওয়ার চেষ্টা করেছেন। তার মধ্যে ৮৭টি পাস সফল। পেনাল্টি বক্সে তিনি ৫টি বল দিয়েছেন। ক্রস দিয়েছেন ৮টি। এছাড়া পেনাল্টি বক্সের মধ্যে পাঁচবার বল ড্রিবল করেছেন তিনি।

পগবা: প্রথম রাউন্ডের এক ম্যাচে মাঠের বাইরে  ছিলেন পগবা। এর বাইরে বাকি চার ম্যাচে ছিলেন দলের শুরুর একাদশে। পগবা ওই চার ম্যাচে মাঠে দৌড়েছেন ৩৬.৪ কিলোমিটার। গোলের লক্ষ্যে শট নিয়েছেন পাঁচটি। পগবা পাস দিয়েছেন ২৩৩টি। সফল হয়েছেন ১৮৯টি ম্যাচে। এছাড়া পগবা ১১টি আক্রমণ বিপদমুক্ত করেছেন। প্রতিপক্ষের পা থেকে বল কেড়ে নিয়েছেন ১৬টি।

Leave a Reply

You must be logged in to post a comment.

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি এইচ, এম রহিমুজ্জামান সুমন
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ এস, এম নুরুল্ আমিন সরকার্
নির্বাহী সম্পাদকঃ নাজমুল হুদা পারভেজ
সম্পাদক কর্তৃক সারদা প্রেস, বাজার রোড, কুড়িগ্রাম থেকে মূদ্রিত ও উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম থেকে প্রকাশিত।
অফিসঃ উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম।
ফোনঃ ০৫৮২৫-৫৬০১৭, ফ্যাক্স: ০৫৮২৪৫৬০৬২, মোবাইল: ০১৭৩৩-২৯৭৯৪৩, ইমেইলঃ jugerkhabor@gmail.com
এই ওয়েবসাইট এর সকল লেখা,আলোকচিত্র,রেখাচ¬িত্র,তথ্যচিত্র যুগেরখবর এর অনুমতি ছাড়া হুবহু বা আংশিক নকল করা সম্পূর্ন কপিরাইট আইনে আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত যুগেরখবর.কম – ২০১৩-১৪