কুড়িগ্রামে ব্রিজের কাজ শেষ না করেই দেড় কোটি টাকা বিল উত্তোলন

Kurigram Beili Bridge Corruption pic(2) 07-09-18

মমিনুল ইসলাম বাবু (কুড়িগ্রাম) থেকে: কুড়িগ্রামে বেইলি ব্রিজের কাজ শেষ না করেই কাজ সমাপ্ত দেখিয়ে প্রায় দেড় কোটি টাকা বিল উত্তোলনের অভিযোগ উঠেছে সড়ক ও জনপদ বিভাগের বিরুদ্ধে। আগাম বিল পাওয়ায় ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ধীরগতি ও নিম্নমানের কাজ করলেও কর্তৃপক্ষ উদাসীন। নির্ধারিত সময়েও ব্রিজের কাজ শেষ না করায় ৭টি ইউনিয়নের প্রায় ৩ লক্ষাধিক মানুষ দুর্ভোগে পড়েছে। কর্তৃপক্ষের দাবী অর্থ বছর শেষ হওয়ায় আগাম বিল উত্তোলন করা হলেও পুরো টাকা ঠিকাদারকে দেয়া হয়নি।
অভিযোগে জানাযায়, ২০১৭সালের ভয়াবহ বন্যায় কুড়িগ্রামের  নাগেশ্বরী  উপজেলার কালিগঞ্জ ইউনিয়নের  মন্নেয়ার পাড়  নামক স্থানে সড়ক ও জনপদের বিভাগের ১৬০ ফুট দৈর্ঘ্যের একটি ব্রীজ ভেঙ্গে যায়। উপজেলার সাথে যোগাযোগ বিছিন্ন হয়ে পড়ে কালিগঞ্জ, ভিতরবন্দ, কচাকাট, নুনখাওয়া, কেদার, নারায়ণপুর এবং মাদারগঞ্জ ইউনিয়নের প্রায় ৩ লক্ষাধিক মানুষ। ব্রিজ না থাকায় মালামাল পরিবহনে ব্যবসায়ীদের গুণতে হচ্ছে বাড়তি খরচ। যোগাযোগের সাথে দ্রব্যমূল্যেরও দাম বেড়ে গেছে বিছিন্ন এই জনপদে। স্থানীয় ভাবে ড্রাম দিয়ে ভাসমান সেতু নির্মাণ করে চলে ঝুঁকিপূর্ণভাবে যাতায়াত করছে মানুষজন। ভাসমান সেতুতে পারাপারের সময় নানা দুর্ঘটনার কবলে পড়তে হয় চলাচলকারীদের। জনসাধারণের দুর্ভোগ কমানোর জন্য কুড়িগ্রাম সড়ক ও জনপদ প্রায় দেড় কোটি  টাকা ব্যয়ে একটি বেইলি ব্রিজ নির্মাণের জন্য টেন্ডার আহবান করে। চলতি বছরের এপ্রিল মাসে ১৬০ফুট দৈর্ঘ্যের বেইলি ব্রিজ নির্মাণের কাজ পায় ঢাকার রানা বিল্ডার্স নামক ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। ঠিকাদারী  প্রতিষ্ঠান সাব ঠিকাদার হিসেবে নিয়োগ দেয় কুড়িগ্রামের বেলাল কনস্ট্রাকশনকে। জুন মাসে কাজ শেষ করার কথা থাকলেও  সময় পেরিয়ে গেলেও ব্রিজের এক চতুর্থাংশ কাজ শেষ করতে পারেনি ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান। অথচ জুন মাসেই কাগজ-কলমে কাজ সমাপ্ত দেখিয়ে কুড়িগ্রাম সড়ক ও জনপদ বিভাগ বিল পরিশোধ করার অভিযোগ উঠেছে। এতে করে  বিল পাওয়ায় বেইলি ব্রিজের কাজের মান ও ধীরগতি নিয়ে অভিযোগ স্থানীয়দের।
স্থানীয় বাসিন্দা  আমজাদ, ফজলু মিয়া, বেলাল হোসেন, আব্দুস সালাম, ময়না বেগম, সুমি আক্তার বলেন, বন্যার সময় ব্রিজটি ভেঙ্গে যাওয়ার পর থেকে এই এলাকার মানুষের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। দুর্ভোগ কমাতে একটি বেইলি ব্রিজ নির্মাণ কাজ শুরু করলেও তা অত্যন্ত ধীরগতিতে চলছে। ব্রিজ নির্মাণে কোন  তথ্য সংম্বোলিত সাইনবোর্ড নেই। এজন্য কাজের গুণগত  মান নিশ্চিত  হচ্ছে কিনা আমরা সাধারণ মানুষ জানতেও পারছি না। তবে শুনেছি ৬০/৭০ ফিট পাইলিং হবার কথা অথচ সেখানে সর্বোচ্চ ৫০ফিট পাইলিংয়ের কাজ  হয়েছে। কিছু সিসি ব্লক তৈরি হচ্ছে সেটারও মান নিয়ে সংশয় রয়েছে। অফিসের লোকজন মাঝে মধ্যে আসলেও তারাও আমাদের কিছুই জানায় না।
স্থানীয়  ঠিকাদার  ফখরুল ইসলামের দেখা পেয়ে বেইলি ব্রিজের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি তথ্য  দিতে অস্বীকৃতি জানান। এক পর্যায় তিনি সংবাদকর্মীদের উপর চড়াও হন। এসময় স্থানীয় লোকজন এগিয়ে আসতে শুরু করলে অবস্থা বেগতিক দেখে সটকে পড়েন তিনি।
নাগেশ্বরী  উপজেলা জাতীয়পার্টি নেতা মইনুল হক খোকন  জানান, সরকার জনগণের উন্নয়নের জন্য কাজ করছে। এসব উন্নয়নে কিছু কর্মকর্তা এবং প্রভাবশালীদের হস্তক্ষেপের কারণে তা বিঘিœত হচ্ছে। এতে করে সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হবার অভিযোগ করেন তিনি।
সড়ক ও জনপদ বিভাগের উপ-প্রকৌশলী মজনু মিয়া কাছে বেইলি ব্রিজের তথ্য সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন ১৬০ফিট দৈর্ঘ্যের ব্রিজটি নির্মাণাধীন রয়েছে। এখানে ব্রিজের সম্মুখে এক হাজার ২২০টি সিসি ব্লক দেয়া হবে। আরো বিস্তারিত জানতে হলে আপনাকে নির্বাহী স্যারের কাছ থেকে তথ্য নিতে হবে।
সড়ক ও জনপদ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী আমির হোসেন জানান, বেইলি সংকট থাকায় ব্রিজের কাজে কিছুটা  ধীর গতিতে হচ্ছে। তবে বেইলি দু-একদিনের মধ্যে আসলেই ব্রিজের কাজ সমাপ্ত হবে। আগাম বিল প্রদান সম্পর্কে তিনি বলেন, অর্থ বছর শেষ হবার কারণেই এটা করা হয়েছে। তবে পুরো অর্থ দেয়া হয়নি এখনও ৬০লাখ টাকা জমা আছে।

Leave a Reply

You must be logged in to post a comment.

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি এইচ, এম রহিমুজ্জামান সুমন
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ এস, এম নুরুল্ আমিন সরকার্
নির্বাহী সম্পাদকঃ নাজমুল হুদা পারভেজ
সম্পাদক কর্তৃক সারদা প্রেস, বাজার রোড, কুড়িগ্রাম থেকে মূদ্রিত ও উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম থেকে প্রকাশিত।
অফিসঃ উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম।
ফোনঃ ০৫৮২৫-৫৬০১৭, ফ্যাক্স: ০৫৮২৪৫৬০৬২, মোবাইল: ০১৭৩৩-২৯৭৯৪৩, ইমেইলঃ jugerkhabor@gmail.com
এই ওয়েবসাইট এর সকল লেখা,আলোকচিত্র,রেখাচ¬িত্র,তথ্যচিত্র যুগেরখবর এর অনুমতি ছাড়া হুবহু বা আংশিক নকল করা সম্পূর্ন কপিরাইট আইনে আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত যুগেরখবর.কম – ২০১৩-১৪