আজকের তারিখ- Fri-19-07-2024

করোনার টিকায় আরেকটি পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া জানাল অ্যাস্ট্রাজেনেকা

যুগের খবর ডেস্ক: বিরল পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার জেরে নিজেদের সব করোনার টিকা বাজার থেকে প্রত্যাহারের ঘোষণার এক সপ্তাহও পার হয়নি। এর মধ্যেই এই টিকার আরেকটি পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার কথা জানাল ব্রিটিশ–সুইডিশ ফার্মাসিউটিক্যালস কোম্পানি অ্যাস্ট্রাজেনেকা। বৃহস্পতিবার অ্যাস্ট্রাজেনেকা জানিয়েছে, এই টিকা গ্রহণ করলে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় রক্ত জমাট বাঁধার ডিসঅর্ডার ভ্যাকসিন–ইনডিউজড ইমিউন থ্রম্বোসাইটোপেনিয়া অ্যান্ড থ্রম্বোসিস (ভিআইটিটি) দেখা দিতে পারে। তবে, এই পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া বিরল।

করোনাভাইরাসের টিকা গ্রহণ করলে শরীরে বিভিন্ন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যায়—এমন অভিযোগ কয়েক বছর ধরেই। তবে এ নিয়ে টিকা উৎপাদন ও সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানগুলো এতদিন চুপ করেই ছিল। এ নিয়ে যুক্তরাজ্যে এক মামলার জেরে সম্প্রতি মুখ খুলেছে একটি প্রতিষ্ঠান, অ্যাস্ট্রাজেনেকা। তারা স্বীকার করেছে, অ্যাস্ট্রাজেনেকার করোনাভাইরাসের টিকার বিরল পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া রয়েছে।

সম্প্রতি আদালতে জমা দেওয়া একটি নথিতে অ্যাস্ট্রাজেনেকা স্বীকার করেছে, তাদের তৈরি করোনার টিকার কারণে খুব বিরল টিটিএসের লক্ষণ দেখা যেতে পারে। টিটিএসের পূর্ণরূপ হলো থ্রম্বোসিস উইথ থ্রম্বোসাইটোপেনিয়া সিনড্রোম, যার ফলে মানুষের রক্তে প্লাটিলেট কমে যায় এবং দেহের ভেতরে রক্ত জমাট বেঁধে যায়।

এর জেরে গত সপ্তাহে নিজেদের করোনার টিকা সারা বিশ্ব থেকে প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছে ব্রিটিশ–সুইডিশ ফার্মাসিউটিক্যালস কোম্পানিটি। এতে জানানো হয়, বাজারে বর্তমানে করোনার মুখে খাওয়ার ওষুধও পাওয়া যাচ্ছে। ফলে বৈশ্বিকভাবে টিকার আর সেই চাহিদাও নেই। তাই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম টেলিগ্রাফ বলছে, কোভিশিল্ড ও ভ্যাক্সজেভরিয়া নামে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে করোনার টিকা সরবরাহ করেছে অক্সফোর্ড–অ্যাস্ট্রাজেনেকা। তবে, এই টিকা নিয়ে গুরুতর অসুস্থ হয়ে যাওয়ার অভিযোগ এসেছে অনেক। এই অভিযোগ মামলা পর্যন্ত গড়িয়েছে। আদালতের শরণাপন্ন হয়েছে অনেক পরিবার।

করোনাভাইরাসের টিকা গ্রহণ করলে শরীরে যেসব পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার অভিযোগ আনা হয়েছিল, এর মধ্যে রক্ত জমাট বাঁধার জটিল রোগ ভিআইটিটিও ছিল। ভিআইটিটির কারণ হিসেবে বলা হয়, এই টিকা নিলে দেহে আপনাআপনিই ক্ষতিকর একটি অ্যান্টিবডি তৈরি হয়। আর সেই অ্যান্টিবডি প্লাটিলেটের সঙ্গে যুক্ত প্রোটিনের বিরুদ্ধে কাজ করতে থাকে।

এর আগে গত বছর এক গবেষণায় গবেষকেরা জানান, কানাডা, উত্তর আমেরিকা, জার্মানি ও ইতালিতে যারা অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা নিয়েছেন তাদের কারও কারও দেহে ভিআইটিটির লক্ষণ দেখা গেছে। এতে অ্যাডেনোভাইরাসের কথাও উল্লেখ করা হয়।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স বলছে, করোনার টিকায় বিরল নতুন আরেক পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার কথা স্বীকার করলেও অ্যাস্ট্রাজেনেকা বলছে, তাদের টিকা করোনার বিরুদ্ধে কাজ করে। এসব পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া খুব–একটা দেখা যায় না। এ ছাড়া তাদের আবিষ্কার করা অ্যান্টিবডি থেরাপি সিপাভিবার্ট করোনার বিরুদ্ধে বেশ কার্যকর।

 এ ব্যাপারে অ্যাস্ট্রাজেনেকার ভ্যাকসিন অ্যান্ড ইমিউন থেরাপি বিভাগের এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট ইসরা রেইস বলেন, করোনার কারণে রোগপ্রতিরোধী চিকিৎসা যাদের দেওয়া হয়েছে, তাদের ঝুঁকি কিন্তু এত বেশি না। আর অ্যাস্ট্রাজেনেকা এখন সারা বিশ্বে অ্যান্টিবডি থেরাপি সিপাভিবার্টের প্রতিক্রিয়া আমলে নিয়ে কাজ করছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সম্পাদক ও প্রকাশকঃ এস, এম নুরুল আমিন সরকার
সম্পাদক কর্তৃক সারদা প্রেস, বাজার রোড, কুড়িগ্রাম থেকে মূদ্রিত ও মাচাবান্দা নামাচর, চিলমারী, কুড়িগ্রাম থেকে প্রকাশিত।
অফিসঃ উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম।
ঢাকা অফিসঃ শ্যাডো কমিউনিকেশন, ৮৫, নয়া পল্টন (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা- ১০০০।
ফোনঃ ০৫৮২৪-৫৬০৬২, মোবাইল: ০১৭৩৩-২৯৭৯৪৩,
ইমেইলঃ [email protected], [email protected]
এই ওয়েবসাইট এর সকল লেখা,আলোকচিত্র,রেখাচিত্র,তথ্যচিত্র যুগেরখবর এর অনুমতি ছাড়া হুবহু বা আংশিক নকল করা সম্পূর্ন কপিরাইট আইনে আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত যুগেরখবর.কম – ২০১৩-২০২৪
Design & Developed By ( Nurbakta Ali )