আজকের তারিখ- Thu-26-01-2023

উলিপুরে নদী ভাঙনরোধে স্বেচ্ছাশ্রমে বাঁশের বান্ডাল নির্মাণ অর্থ সংকটে কাজ বন্ধ

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি: কুড়িগ্রামের উলিপুরে ভাঙনরোধে নদী ভাঙা মানুষ নিজেদের উদ্যোগে স্বেচ্ছাশ্রমে বাঁশের বান্ডাল (বেড়ার ন্যায়) নির্মাণের কাজ শুরু করলেও অর্থ সংকটে তা এখন বন্ধ রয়েছে। উপজেলায় ব্রহ্মপুত্র, ধকুমুর, ধরলা নদী বেষ্টিত বেগমগঞ্জ ইউনিয়নে বান্ডালের কাজ শুরু হলে ভাঙন কবলিত কয়েকটি চর ও কাইম এলাকার হাজারো মানুষ আশায় বুক বেঁধেছিল। কিন্তু বান্ডালের কাজ বন্ধ হওয়ায় আবার তারা আশাহত ও শংকিত হয়ে পড়েছেন।

বান্ডালটি বাস্তবায়ন হলে বেগমগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদ, মোল্লারহাট বাজার, কাশিম বাজার, খুদির কুঠি, কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ বিশাল জনবসতিপূর্ণ এলাকা ও আবাদি জমি ভাঙন থেকে মুক্তি পাবে। উলিপুর সংবাদদাতা জানান, গত বর্ষায় নদীর ভাঙনে বালাডোবা, সরকারপাড়া, ব্যাপারী পাড়া, ফকিরের চর, রসুলপুর, মাস্টারপাড়া, মন্ডলপাড়া, উত্তর বালাডোবা চরগ্রাম, মোল্লারহাট বাজার, বালাডোবা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, আরডিআরএস অফিস, মশালের চর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ দেড় হাজার পরিবার বাড়িঘর হারিয়ে আশ্রয়হীন হয়ে পড়ে ও কয়েক হাজার একর আবদি জমি নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যায়।

বান্ডাল নির্মাণ উদ্যোক্তাদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, বেগমগঞ্জ ইউনিয়নের ভাঙন কবলিত বালাডোবা চর, ব্যাপারীপাড়া, সরকারপাড়া ও রসুলপুর চরের কয়েক হাজার মানুষ একত্রিত হয়ে ভাঙনরোধে স্বেচ্ছাশ্রমের মাধ্যমে দুধকুমার ও ব্রহ্মপুত্র নদের শাখা নদীর মুখে বালাডোবায় বাঁশের বান্ডাল দিয়ে নদীর গতিপথ পরিবর্তন করার সিদ্ধান্ত নেয়। সিদ্ধান্ত মত গ্রামে গ্রামে চাঁদা তুলে অর্থ ও বাঁশ সংগ্রহ করে। গত ১ ডিসেম্বর স্বেচ্ছাশ্রমে বাঁশের বান্ডালের কাজ শুরু করেন।

প্রায় ১ হাজার মিটার নদীর মুখে ৪ হাজার বাঁশ, ৬শ’ চিকন ইউক্যালিপটাস গাছ, ১৩০কেজি লোহার পেরেক, ৭০কেজি জিআই তার দিয়ে পাইলিংয়ের কাজ শেষ করেন। কিন্ত বাকী আরও ৫০০ মিটার বান্ডাল নির্মাণ করার মত সামগ্রী না থাকায় গত ২০ ডিসেম্বর থেকে কাজ বন্ধ হয়ে যায়। ফলে ওই এলাকার অসহায়, হতদরিদ্র মানুষদের শেষ আশ্রয়স্থল রক্ষার স্বপ্ন মাঝ পথে এসে থমকে গেছে।

তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে আরও জানান, কাজের শুরুতে পানি উন্নয়ন বোর্ড, উপজেলা প্রশাসন, সংসদ সদস্য ও বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতারা প্রথমে আশ্বাস দিলেও পরে তারা সহযোগিতা তো দূরের কথা, কেউ দেখতেও আসেনি। এমন কি ন্যূনতম সাহসটুকুও দেয়নি। ফলে আমাদের দরিদ্র মানুষের এ উদ্যোগ বিফলে পর্যবসিত হওয়ার উপক্রম হয়েছে। বর্তমানে বান্ডাল নির্মাণ নিয়ে তারা চরম হতাশ ও দিশেহারা হয়ে পড়েছেন।

ভাঙন এলাকার লাল চাদ ফকির (৬০), আকলিমা বেওয়া (৪৫), আছির উদ্দিন (৮০) ও রজব আলী (৭০) জানান, ‘আমরা ভিক্ষা কইরা (করে) খাই, বাড়ির জাগাজমি অক্ষার (জমি রক্ষা) জন্নি (জন্য) খাবার চাইল বেইচা বান্ডাল করার জন্নি টেহা (টাকা) দিছি, এহন হুনতাইছি বান্ডাল হবো না। বান্ডাল না হলি বসতভিটা, বাড়িঘর ভ্যাকটি নদী ভাইঙা নিয়া যাইব। এহন আংগোরে কি হবো।
বেগমগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান বাবলু মিয়া বলেন, বান্ডালের কাজ সম্পন্ন হলে ভাঙনের হুমকিতে থাকা নুতন মোল্লারহাট, ইউনিয়ন পরিষদ ভবন, আরডিআরএস ফেডারেশন ভবন, বেগমগঞ্জ বন্যা আশ্রয় কেন্দ্র, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানসহ এলাকার প্রায় ৩হাজার পরিবার ভাঙন থেকে মুক্তি পাবে।

বান্ডাল নির্মাণ কমিটির সভাপতি ও বেগমগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আকতার হোসেন বলেন, বান্ডালের কাজ শেষ করতে না পারলে বর্ষায় ভাঙনের জোর বেশি হতে পারে ও পুরো বেগমগঞ্জ ইউনিয়ন নদী গর্ভে বিলীন হয়ে যাওয়ার সম্ভবনা রয়েছে। তাই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।

উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম হোসেন মন্টু বলেন, আমি শুরুতে ৫০ হাজার টাকা দিয়েছি। বান্ডালের কাজ পরিদর্শন করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। কুড়িগ্রাম পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, বান্ডালটি নির্মাণ হলে সাময়িক ভাঙন বন্ধ হবে। কিন্ত ওখানে আমাদের আর্থিকভাবে সহযোগিতা করার কোন ক্ষমতা নেই। তবে কারিগরি সহযোগিতা ও পরামর্শ দিতে পারবো।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার শোভন রাংসা বলেন, আমি ওই এলাকা পরিদর্শন করেছি। উদ্যোক্তা ও জনগণকে বান্ডাল নির্মাণে উৎসাহিত করেছি। পাশাপাশি অর্থ সংকট নিরসনে বিভিন্ন প্রকল্পের মাধ্যমে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সম্পাদক ও প্রকাশকঃ এস, এম নুরুল আমিন সরকার
সম্পাদক কর্তৃক সারদা প্রেস, বাজার রোড, কুড়িগ্রাম থেকে মূদ্রিত ও মাচাবান্দা নামাচর, চিলমারী, কুড়িগ্রাম থেকে প্রকাশিত।
অফিসঃ উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম।
ঢাকা অফিসঃ শ্যাডো কমিউনিকেশন, ৮৫, নয়া পল্টন (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা- ১০০০।
ফোনঃ ০৫৮২৪-৫৬০৬২, মোবাইল: ০১৭৩৩-২৯৭৯৪৩,
ইমেইলঃ jugerkhabor@gmail.com, smnuas1977@gmail.com
এই ওয়েবসাইট এর সকল লেখা,আলোকচিত্র,রেখাচিত্র,তথ্যচিত্র যুগেরখবর এর অনুমতি ছাড়া হুবহু বা আংশিক নকল করা সম্পূর্ন কপিরাইট আইনে আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত যুগেরখবর.কম – ২০১৩-১৯
Design & Developed By ( Nurbakta Ali )