আজকের তারিখ- Sun-28-11-2021

ঢাকা মহানগরের রাজনীতি চলছে তৃণমূলকে ঢেলে সাজানোর ‘কর্মযজ্ঞ’

যুগের খবর ডেস্ক: আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে রাজধানী ঢাকায় শক্তিশালী সাংগঠনিক কাঠামো গড়তে চায় মহানগর আওয়ামী লীগ। এর অংশ হিসেবে ঢাকা মহানগরীতে দলের তৃণমূলকে ঢেলে সাজানোর ‘কর্মযজ্ঞ’ শুরু হয়েছে বলে দাবি করেছেন দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতারা। নানা জটিলতা পার করে এরই মধ্যে শুরু হয়েছে ইউনিট সম্মেলন ও সদস্য সংগ্রহ অভিযান। নেতারা জানান, ইউনিট সম্মেলন শেষ হওয়ার পর পর্যায়ক্রমে ওয়ার্ড ও থানা সম্মেলন হবে। সর্বত্র নতুন নেতৃত্ব সৃষ্টির লক্ষ্য গ্রহণ করা হয়েছে। ‘হাইব্রিড ও অনুপ্রবেশকারীমুক্ত’ শক্তিশালী নেতৃত্ব গড়ার চেষ্টা করছেন তারা।

দল গোছানোর এই তৎপরতায় অনেকটা এগিয়ে রয়েছে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগ। এরই মধ্যে উত্তর সিটি করপোরেশন এলাকায় দলটির ইউনিট সম্মেলন, প্রাথমিক সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন কার্যক্রম প্রায় শেষ। তবে বেশ কয়েকবার তারিখ পরিবর্তনের পরও মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের ইউনিট সম্মেলনগুলো এখনও শুরু হয়নি। সংসদীয় এলাকাভিত্তিক আটটি সাংগঠনিক কমিটির তত্ত্বাবধানে শিগগির ইউনিট সম্মেলনগুলো শুরু হবে বলে জানিয়েছেন সংশ্নিষ্ট নেতারা। তবে প্রাথমিক সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন অভিযান অনেক আগে শুরু হয়ে চলমান রয়েছে বলে জানান তারা।

সর্বশেষ ২০১৯ সালের ৩০ নভেম্বর ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের উত্তর ও দক্ষিণের সম্মেলন একত্রে অনুষ্ঠিত হয়। উত্তরে শেখ বজলুর রহমান সভাপতি ও এসএম মান্নান কচি সাধারণ সম্পাদক এবং দক্ষিণে আবু আহমেদ মন্নাফী সভাপতি ও হুমায়ুন কবির সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পান। এর প্রায় এক বছর পর গত বছরের ১৮ নভেম্বর উভয় অংশের পূর্ণাঙ্গ কার্যনির্বাহী কমিটি ঘোষণা করা হয়।

তবে এর পরপরই দেশে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়াসহ নানা কারণে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণের ৫০টি থানা, ১৩৯টি ওয়ার্ড (১০টি সাংগঠনিক ওয়ার্ডসহ) এবং একটি ইউনিয়ন সম্মেলন ও নতুন কমিটি গঠনের কাজ স্থবির হয়ে পড়ে। নেতারা বলছেন, এবার ইউনিট সম্মেলন দিয়ে দলকে ঢেলে সাজানোর কার্যক্রম শুরু করেছেন তারা। এর মাধ্যমে তৃণমূলে নতুন নেতৃত্ব প্রতিষ্ঠা করে প্রথমে ওয়ার্ড এবং পরে থানা সম্মেলনগুলো শেষ করা হবে। আর প্রাথমিক সদস্য সংগ্রহের মাধ্যমে বিশেষ করে তরুণ প্রজন্মকে দলে টানা হচ্ছে। সেসঙ্গে অনুপ্রবেশকারী ও বিতর্কিতদের ছেঁটে ফেলার কাজও শুরু হয়েছে।

উত্তরে শেষের পথে: ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগে ২৬টি থানা ও ৬৪টি ওয়ার্ড (সাতটি সাংগঠনিক ওয়ার্ডসহ) ও একটি ইউনিয়নে সাংগঠনিক কাঠামো রয়েছে। সংশ্নিষ্ট দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতারা জানান, গত বছরের শেষভাগে করোনা পরিস্থিতি কিছুটা সহনীয় মাত্রায় আসার পর প্রায় ১১০০টি ইউনিট সম্মেলনের কার্যক্রম শুরু করেছিলেন তারা। ২৭টি সাংগঠনিক টিমের তত্ত্বাবধানে এই সম্মেলন কার্যক্রম শুরু হয়। থানা ও ওয়ার্ডভিত্তিক এই সম্মেলন কার্যক্রমে প্রতিটি ওয়ার্ডের সব ইউনিট সম্মেলন ও নতুন কমিটি গঠন একসঙ্গে করা হচ্ছে। এরই মধ্যে ৭০ ভাগ ইউনিট সম্মেলন ও নতুন কমিটি গঠনের কাজ শেষ করা গেছে। আগামী ৩০ নভেম্বরের মধ্যে সব ইউনিট সম্মেলন শেষ করা সম্ভব হবে।

নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, প্রতিটি ইউনিটে নতুন-পুরোনো মিলিয়ে নূ্যনতম ১৫০ জন সদস্য সংগ্রহ করতে বলা হয়েছে। সেসঙ্গে বিতর্কিত ও অনুপ্রবেশকারীদের চিহ্নিত করে তাদের বাদ দেওয়া হচ্ছে। আর প্রতিটি ইউনিটে ৩৭ সদস্যের কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে ত্যাগী ও দক্ষদের পাশাপাশি মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শের স্বচ্ছ ও পরিচ্ছন্ন ইমেজের স্থানীয় ব্যক্তি এবং বিশেষ করে যোগ্য নারী নেতৃত্বদের প্রাধান্য দেওয়া হচ্ছে।

ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক মিজানুল ইসলাম মিজু সমকালকে বলেছেন, তার দায়িত্বে থাকা শাহ আলী থানার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের ১৯টি এবং ৯৩ নম্বর ওয়ার্ডের ১২টি ইউনিটের সবগুলোর সম্মেলন ও নতুন কমিটি গঠনের কাজ শেষ করে ফেলেছেন। দ্রুতই ওয়ার্ড ও থানা সম্মেলন কার্যক্রম শুরু হবে।

ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ বজলুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক এস এম মান্নান কচি সমকালকে জানান, অতীতের যে কোনো সময়ের চেয়েও বেশি সুশৃঙ্খল ও সুষ্ঠুভাবে তৃণমূল সম্মেলন শেষ করার প্রচেষ্টা নিয়েছেন তারা। আর এবার তৃণমূল সম্মেলনের মাধ্যমে নতুন নেতৃত্ব সৃষ্টির ক্ষেত্রে ত্যাগী, দক্ষ ও স্বচ্ছ ইমেজের কর্মীদেরই প্রাধান্য দেওয়া হচ্ছে। সেসঙ্গে মহানগর ও থানা নেতাদের মাধ্যমে ‘পকেট কমিটি’ গঠন এড়াতে সর্বোচ্চ সতর্কতাও নিচ্ছেন তারা।

দক্ষিণে শুরু হয়নি: ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগে ২৪টি থানা ও ৭৫টি ওয়ার্ডের অধীন প্রায় সাড়ে সাতশ ইউনিটে সাংগঠনিক কাঠামো রয়েছে। এখন পর্যন্ত সেসব সম্মেলন শুরুই করতে পারেননি দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতারা। সর্বশেষ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ৩০ নভেম্বরের মধ্যে সব সম্মেলন শেষ করার সময়সীমা বেঁধে দিয়েছিলেন। এরপরও কোথাও সম্মেলন হয়নি।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক রিয়াজ উদ্দিন রিয়াজ সমকালকে বলেন, তৃণমূল সম্মেলন আয়োজনসহ দল গোছাতে মহানগর দক্ষিণের আটটি সংসদীয় এলাকায় আটটি সাংগঠনিক টিম গঠন করা হয়েছে। এসব টিমের নেতৃত্বে তৃণমূল সম্মেলন আয়োজনের প্রস্তুতিও শেষ হয়েছে। দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে দিয়ে এই সম্মেলনের উদ্বোধন করা হবে। তিনি সময় দেওয়া মাত্রই সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা করা হবে।

দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতাদের দাবি, নতুন নেতৃত্ব দায়িত্ব নেওয়ার পর সাংগঠনিক কার্যক্রম গুছিয়ে ?উঠতে না উঠতেই দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণ শুরু হয়। করোনার সংক্রমণ কিছুটা কমার পর সম্মেলন ও সদস্য সংগ্রহ কার্যক্রম শুরু করতে চলতি বছরের ১০ জানুয়ারি বর্ধিত সভা করে নানা পরিকল্পনাও নিয়েছিলেন তারা। কিন্তু এপ্রিলে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ ও লকডাউন শুরু হওয়ায় পরিকল্পনা অনুযায়ী কাজ করা সম্ভব হয়নি। এখন করোনার সংক্রমণ কমে আসায় মহানগর দক্ষিণকে তৃণমূল থেকে ঢেলে সাজানোর কর্মপরিকল্পনার বাস্তব রূপ দেওয়ার পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু আহমেদ মন্নাফী বলেন, তৃণমূল থেকে দল গোছানোর কাজটাকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছেন তারা।

সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সম্পাদক ও প্রকাশকঃ এস, এম নুরুল আমিন সরকার
সম্পাদক কর্তৃক সারদা প্রেস, বাজার রোড, কুড়িগ্রাম থেকে মূদ্রিত ও মাচাবান্দা নামাচর, চিলমারী, কুড়িগ্রাম থেকে প্রকাশিত।
অফিসঃ উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম।
ঢাকা অফিসঃ শ্যাডো কমিউনিকেশন, ৮৫, নয়া পল্টন (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা- ১০০০।
ফোনঃ ০৫৮২৪-৫৬০৬২, মোবাইল: ০১৭৩৩-২৯৭৯৪৩,
ইমেইলঃ jugerkhabor@gmail.com, smnuas1977@gmail.com
এই ওয়েবসাইট এর সকল লেখা,আলোকচিত্র,রেখাচিত্র,তথ্যচিত্র যুগেরখবর এর অনুমতি ছাড়া হুবহু বা আংশিক নকল করা সম্পূর্ন কপিরাইট আইনে আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত যুগেরখবর.কম – ২০১৩-১৯
Design & Developed By ( Nurbakta Ali )