আজকের তারিখ- Wed-30-09-2020

রাজারহাটের অস্থিত্ববিহীন সিঙ্গারডাবরী হাট মহাবিদ্যালয়ের জমি ফেরত চায় পূর্বের মালিক

রাজারহাট (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি : কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলায় অস্থিত্ববীহিন সিঙ্গারডাবরীর হাট মহাবিদ্যালয়ের জমি ফেরত চেয়ে পুর্বের মালিক আদালতে মামলা দায়ের করছেন। মামলার এজাহারে জনা যায় রাজারহাট উপজেলার ঘড়িয়ালডাঙ্গা ইউনিয়নের পশ্চিম দেবত্তর মৌজার ইছার উদ্দিন সরকারের পুত্র মৃত আব্দুল জলিল ১৯৯৯ইং সনে তার পিতার জমিতে সিংগারডাবরীর হাট এলাকায় সিঙ্গারডারীর হাট মহাবিদ্যালয় নামে কলেজ খোলেন যার কলেজ কোড ৬৯০৫ ইননং ১২২৫৩৭, তখন থেকে ২০১৩ইং সন পর্যন্ত কিছু শিক্ষার্থী দিয়ে খুরিয়ে খুরিয়ে চলছিল এবং বিভিন্ন দপ্তরে প্রতিষ্ঠানটি এমপিও করার জন্য চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছেন। ২০১৩ সালে হঠাৎ তার স্টক জনিত মৃত হয়। তার মৃতুর পর থেকে প্রতিষ্ঠানটি ঝিমিয়ে পড়ে শিক্ষার্থী ও সহযোগী শিক্ষকদের তদারকি না থাকায় প্রতিষ্ঠানটি ধীরে ধীরে বিলিন হয়ে যায়। এক পর্যায়ে ঝড় তুফানে ঘরটি ভেঙ্গে গিয়ে প্রতিষ্ঠানটি বিলিন হয়ে যায়। এর পরে প্রতিষ্ঠানিক কোন কার্যক্রম না থাকায় দীর্ঘদিন জমিটি পরিত্যাক্ত থাকায় পূর্বের মালিক এছার উদ্দিন ২০১৪ সালে জমিটি ফেরত চেয়ে আদালতের কাছে মামলা দায়ের করেন। এ দিকে হঠাৎ তৈহিদুল নামের এক শিক্ষক ঐ প্রতিষ্ঠান সচল আছে মর্মে আদালতে কাছে কিছু কাগজপত্র দাখিল করে জমি পূর্বের মালিকের কাছে হস্তান্তরে বাধা সৃষ্টি করেন। এ দিকে পূর্বের মালিক এছার উদ্দিন তার অভিযোগকে চ্যালেঞ্চ করে আদালতের কাছে তদন্ত দাবী করেন। এ ঘটনায় সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করলে সাংবাদিকরা সরেজমিনে গিয়ে ঐ জমিতে কোন প্রতিষ্ঠান দেখা যায়নি। সরেজমিনে কথা হলে জমির মালিক ইছার উদ্দিন জানান জমিটি এখন ঘাস চাষ করা হচ্ছে এখানে কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নেই। আমাকে শুধু হয়রানি করার জন্য আদালতের কাছে কিছু কাগজপত্র দাখিল করেছে। এবং কিছু শিক্ষার্থীর কাগজে দেখিয়েছে। এ বিষয়ে কথা হয় স্থানীয় তরুন যুব আঃ আজিজ এর সাথে তিনি বলেন এখানে কোন প্রতিষ্ঠান নেই। তারা যা দাবী করেছে তা মিথ্যা। মৃত আব্দুল জলিলের ছোট ভাই আব্দুর রহমান বলেন আমার ভাইয়ের মৃত পর থেকেই এখানে কোন প্রতিষ্ঠান নেই। স্থানীয় মতিয়ার (৫১), বিরেন্দ্র নাথ (৬৫), ইয়াকুব আলী (৫৫) বলেন গত ৫/৬ বছর পূর্বে প্রতিষ্ঠান বিলিন হয়ে গেছে। এখানে এরকম কোন প্রতিষ্ঠান নেই যদি কেউ দাবী করে তা মিথ্যা। সরেজমিনে কথা হয় শিক্ষার্থী শরিফুল (২১), হানিফ (১৯), বলেন আমরা রাজারহাট কারিগরি বাণিজ্যিক কলেজের নিয়মিত ছাত্র অথচ তারা আমাদের কাগজপত্র গোপনে সংগ্রহ করে এই কলেজের শিক্ষার্থী হিসাবে আদালতে দাখিল করেছেন। আমারা আদালতে স্বশরীরে গিয়ে জবানবন্দি দিয়েছি। আমরা সিঙ্গারডাবরীর হাট মহাবিদ্যালয়ের ছাত্র নই এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নেই। এ বিষয় জানতে শিক্ষক তৈহিদুলের সঙ্গে মুঠো ফোনে যোগাযোগ করলে তাকে পাওয়া যায়নি।

সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সম্পাদক ও প্রকাশকঃ এস, এম নুরুল আমিন সরকার
সম্পাদক কর্তৃক সারদা প্রেস, বাজার রোড, কুড়িগ্রাম থেকে মূদ্রিত ও মাচাবান্দা নামাচর, চিলমারী, কুড়িগ্রাম থেকে প্রকাশিত।
অফিসঃ উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম।
ঢাকা অফিসঃ শ্যাডো কমিউনিকেশন, ৮৫, নয়া পল্টন (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা- ১০০০।
ফোনঃ ০৫৮২৪-৫৬০৬২, মোবাইল: ০১৭৩৩-২৯৭৯৪৩,
ইমেইলঃ jugerkhabor@gmail.com, smnuas1977@gmail.com
এই ওয়েবসাইট এর সকল লেখা,আলোকচিত্র,রেখাচিত্র,তথ্যচিত্র যুগেরখবর এর অনুমতি ছাড়া হুবহু বা আংশিক নকল করা সম্পূর্ন কপিরাইট আইনে আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত যুগেরখবর.কম – ২০১৩-১৯
Design & Developed By ( Nurbakta Ali )