আজকের তারিখ- Mon-27-06-2022
 **   পদ্মা সেতুর নিরাপত্তা জোরদারে সেনাবাহিনীকে চিঠি **   চিলমারীতে জালনোট প্রতিরোধে জনসচেতনতা বৃদ্ধিমূলক ওয়ার্কশপ অনুষ্ঠিত **   চিলমারীতে মাদক বিরোধী মানববন্ধন, র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত **   চিলমারীতে নদীর ভাঙ্গন রোধ কার্যক্রমের উদ্বোধন করলেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী **   পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে চিলমারীতে আওয়ামী লীগের আনন্দ শোভাযাত্রা **   পদ্মা সেতু উদ্বোধন: প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ সাকিব-তামিমদের **   ভাগ্য পরিবর্তনে যেকোনো ত্যাগ করতে প্রস্তুত: প্রধানমন্ত্রী **   পদ্মা সেতু স্পর্ধিত বাংলাদেশের প্রতিচ্ছবি: প্রধানমন্ত্রী **   পদ্মা সেতু উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী **   পদ্মা সেতু: শেখ হাসিনার দৃঢ়তার বহিঃপ্রকাশ

মন্ত্রীপদের প্রতি আমার কোনো লোভ নেই: বাণিজ্যমন্ত্রী

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: বাণিজ্য মন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, তেলের দাম বাড়ার পর বাম দল আমার পদত্যাগ দাবি করেছিলো। বাণিজ্যমন্ত্রী পদের প্রতি আমার কোনো লোভ নেই।

প্রধানমন্ত্রী আমাকে বললেন, যারা পদত্যাগ চেয়েছে তারা তেলের দাম কমাতে পারবে কিনা? ব্রাজিল আর্জেন্টিনা, মালয়েশিয়া-ইন্দোনেমিয়ায় তেলের দাম না কমালে এটি সম্ভব?
মঙ্গলবার (৩১ মে) বিকেলে নগরের পলোগ্রাউন্ড মাঠে চট্টগ্রাম চেম্বারের মাসব্যাপী সিআইটিএফের উদ্বোধনকালে তিনি এসব কথা বলেন।
মন্ত্রী বলেন, ২০২৬ সাল বেশি দূরে নয়, বাংলাদেশের অবস্থান বদলে গেছে। চার বছর আগে মন্ত্রী ছিলাম না, দিল্লি গেছি। একজন পাকিস্তানি জানতে চাইল, তোমাদের প্রধানমন্ত্রীর হাতে জাদু আছে? আমাদের অর্থনীতি তাদের কাছে বিস্ময়। দেশকে এগিয়ে নিতে সরকারের পাশাপাশি ব্যবসায়ীদের অবদান আছে। সরকার ব্যবসা করবে না, ব্যবসায় সহায়তা করবে। কোভিড নিয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রীর গোষ্ঠী উদ্ধার হয়েছিল। বৃক্ষ তার ফলে পরিচয়। বাংলাদেশ সরকার অ্যাডভান্সড চিন্তা করেছিল। তেলের দাম ভারতে ১৫ টাকা, পাকিস্তানে ৩৬ টাকা বেশি। ১০ শতাংশ তেল হয় দেশে। গম, ডাল আমদানি করতে হয়। আমাদের চেষ্টার ত্রুটি নেই।  প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে এক কোটি মানুষকে তেল চিনি ছোলা দিয়েছি সাশ্রয়ী মূল্য। ৫ কোটি মানুষ উপকৃত হচ্ছে। যত দিন পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হয় ততদিন এটি চলবে। ভর্তুকি দিতে হবে।
তিনি বলেন, চট্টগ্রামের সঙ্গে বহুকালের যোগাযোগ। এ মাটিতে অনেক বীর, আউলিয়ার দেহ রয়েছে। সাগরের মতো বিশাল মন চট্টগ্রামের মানুষের। ছোটবেলা থেকে শুনে এসেছি বাণিজ্যে বসতি লক্ষ্মী। চট্টগ্রাম অর্থনীতির লাইফ লাইন, গেটওয়ে। চট্টগ্রামের ওপর আমাদের নির্ভর করতে হয়। সেই চট্টগ্রামকে আরও গুরুত্ব দেওয়া দরকার। বন্দরকে আপগ্রেড করতে হবে। আশাকরি ৬০ বিলিয়ন ডলার রফতানি করতে পারব এবার। মহাসড়কে ১৩ টনের বাধা পণ্যের ওপর পড়বে।
বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ঘুরে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশ। চট্টগ্রাম এলে পাহাড়ের মাঝে শহর দেখতাম। সমুদ্রের হাতছানি দিত। একসময় চট্টগ্রাম পর্যটন নগরী ছিল। ঢাকা থেকে ট্রেন কক্সবাজার পর্যন্ত যাবে। ১৫ লাখ লোকের কর্মসংস্থান হবে সেই চট্টগ্রাম চাই।
বিশেষ অতিথি ছিলেন সংসদ সদস্য এমএ লতিফ, চসিক মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী, সিএমপি কমিশনার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর।
এমএ লতিফ বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশের অবকাঠামো উন্নয়নকে গুরুত্ব দিয়েছেন। কানেকটিভিটি হচ্ছে দেশের উন্নতি। সরকার স্থিতিশীল বলেই দেশের উন্নতি হয়েছে। দেশে এখন কাজের লোক পাওয়া যায় না।
তিনি বলেন, কতিপয় কুলাঙ্গার ব্যবসায়ীর জন্য সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে। এটা মেনে নেওয়া যায় না। তাদের বিরুদ্ধে কঠোর হতে হবে।
সিএমপি কমিশনার বলেন, কোভিডের কারণে অনেক দেশের জিডিপি কমেছে, বাংলাদেশ ব্যতিক্রম। আগামীর বাংলাদেশের অর্থনীতির বড় বড় চালিকা শক্তি হচ্ছে চট্টগ্রাম। মাতারবাড়ী সমুদ্রবন্দর, এনার্জি হাব, মিরসরাই বঙ্গবন্ধু শিল্পনগর হচ্ছে। দুই বছর পর চট্টগ্রামে বাণিজ্য মেলা হচ্ছে। চট্টগ্রামকে বিনিয়োগবান্ধব, ব্যবসাবান্ধব করতে সিএমপির প্রতিটি সদস্য দৃঢ়প্রতিজ্ঞ।
সভাপতির বক্তব্যে চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম বলেন, চট্টগ্রাম বাণিজ্যিক রাজধানী। চট্টগ্রাম দেশের অর্থনীতিতে ভূমিকা রাখছে। এ মেলার উদ্দেশ্য স্থানীয় উদ্যোক্তাদের পণ্য জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে তুলে ধরা। দুঃখের বিষয় চট্টগ্রামে বাণিজ্য মেলার স্থায়ী জায়গা চাই।
তিনি বলেন, ১০০ বিলিয়ন রফতানির লক্ষ্য পূরণে বে টার্মিনালের বিকল্প নেই। ফার্স্ট ট্রেকে নিয়ে ২০২৫ সালের মধ্যে এ টার্মিনালের কাজ শেষ করতে হবে। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক আট লেনে উন্নীত করা সময়ের দাবি। বিএসটিআই, কোয়ারেন্টাইনসহ সরকারি দফতরের যে অফিস চট্টগ্রামে আছে তাদের ক্ষমতা দিতে হবে। মহাসড়কে ১৩ টনের বিধিনিষেধ দেশের সব মহাসড়কের জন্য আরোপ করতে হবে। নয়তো ঢাকা চট্টগ্রাম মহাসড়কের ওজন স্কেলের কার্যক্রম শিথিল করতে হবে।
সিআইটিএফ চেয়ারম্যান, চেম্বার পরিচালক একেএম আকতার হোসেন বাণিজ্যমন্ত্রীর উদ্দেশে বলেন, দেশের ৯০ শতাংশ আমদানি রফতানি হয় চট্টগ্রাম দিয়ে। দেশে খাদ্য ও তেল আমদানিতে সব প্রতিবন্ধকতা দূর করতে হবে। পণ্য খালাসে বাধা কোথায়, শুল্ক কত, মূল্য কত খতিয়ে দেখতে হবে। কেন চট্টগ্রামের ব্যবসা বাণিজ্য ধ্বংস করা হচ্ছে? কেন চট্টগ্রাম থেকে পণ্যবাহী গাড়ি ভাড়া বেশি নেওয়া হবে।
তিনি জানান, অতীত অভিজ্ঞতার আলোকে এবার সুন্দরভাবে সাজানো হয়েছে। এবার সিআইটিএফে সপ্তম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের জন্য ৫ লাখ ফ্রি টিকিটের ব্যবস্থা করা হয়েছে।
অনুষ্ঠানে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে বক্তব্য রাখেন- চেম্বারের সহ সভাপতি সৈয়দ মোহাম্মদ তানভীর। অনুষ্ঠান উপস্থাপনায় ছিলেন নাসরিন ইসলাম।
সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সম্পাদক ও প্রকাশকঃ এস, এম নুরুল আমিন সরকার
সম্পাদক কর্তৃক সারদা প্রেস, বাজার রোড, কুড়িগ্রাম থেকে মূদ্রিত ও মাচাবান্দা নামাচর, চিলমারী, কুড়িগ্রাম থেকে প্রকাশিত।
অফিসঃ উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম।
ঢাকা অফিসঃ শ্যাডো কমিউনিকেশন, ৮৫, নয়া পল্টন (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা- ১০০০।
ফোনঃ ০৫৮২৪-৫৬০৬২, মোবাইল: ০১৭৩৩-২৯৭৯৪৩,
ইমেইলঃ jugerkhabor@gmail.com, smnuas1977@gmail.com
এই ওয়েবসাইট এর সকল লেখা,আলোকচিত্র,রেখাচিত্র,তথ্যচিত্র যুগেরখবর এর অনুমতি ছাড়া হুবহু বা আংশিক নকল করা সম্পূর্ন কপিরাইট আইনে আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত যুগেরখবর.কম – ২০১৩-১৯
Design & Developed By ( Nurbakta Ali )