আজকের তারিখ- Wed-30-09-2020

নতুন এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের বেতন-ভাতা মার্চেই

যুগের খবর ডেস্ক: মার্চ মাসের মধ্যেই নতুন এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীরা বেতন-ভাতা ছাড় করা হবে। প্রতিষ্ঠানের এমপিওভুক্তির কাগজপত্র যাচাই-বাছাই শেষ হয়েছে। এখন এসব প্রতিষ্ঠানে নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের কাগজপত্র যাচাই-বাছাই করে বেতন-ভাতা ছাড় করতে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের (মাউশি) মহাপরিচালককে আহ্বায়ক করে সাত সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

রবিবার বিকালে এ সংক্রান্ত কমিটির প্রথম সভা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও বিশেষ কারণে তা স্থগিত করা হয়েছে। তবে চলতি সপ্তাহেই সভা করে চূড়ান্ত তালিকা শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে বলে সূত্র জানিয়েছে।

মাউশির উপ-পরিচালক (কলেজ-২) ও মাধ্যমিক শাখার অতিরিক্ত দায়িত্বে থাকা উপ-পরিচালক মো. এনামুল হক হাওলাদার স্বাক্ষরিত সভা আহ্বানের চিঠিতে বলা হয়েছে- বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের (স্কুল-কলেজ) জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা-২০১৮ অনুযায়ী ১৬৫০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের তথ্যাদির সঠিকতা যাচাইপূর্বক এমপিওভুক্তি সংক্রান্ত পরবর্তী কার্যক্রম গ্রহণের জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের আদেশ অনুযায়ী রবিবার দুপার আড়াইটায় মাউশিতে সভা ডাকা হয়েছে।

মাউশির ডিজির নেতৃত্বে গঠিত কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন- বাংলাদেশ শিক্ষা তথ্য ও পরিসংখ্যান ব্যুরো (ব্যানবেইস) একজন প্রতিনিধি, সংশ্লিষ্ট শিক্ষা বোর্ডের একজন প্রতিনিধি, মাউশির কলেজ ও মাধ্যমিক শাখার দুই পরিচালক, মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক শাখার সিনিয়র সহকারী সচিব। কমিটির সদস্য সচিব করা হয়েছে মাউশির মাধ্যমিক শাখার উপ-পরিচালকে।

নতুন তালিকাভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর শিক্ষক-কর্মচারীদের এমপিও-সুবিধা চলতি অর্থবছরে না পাওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। প্রায় সাড়ে তিন মাস আগে দুই হাজার ৭৩৭ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির ঘোষণা দেওয়া হয়। কিন্তু ওইসব প্রতিষ্ঠানের কাগজপত্র যাচাই-বাছাই এখনও শেষ হয়নি। যাচাই-বাছাই শেষে মন্ত্রণালয় থেকে চূড়ান্ত গেজেট জারি করা হবে। এরপর প্রতিষ্ঠানের কোড সৃষ্টি এবং শিক্ষক-কর্মচারীদের কাছ থেকে আবেদন গ্রহণে আরও কয়েক মাস লাগতে পারে। এসব প্রক্রিয়া জুনের মধ্যে শেষ হওয়া নিয়ে সংশয়ের সৃষ্টি হয়েছে। সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে আলাপকালে এসব তথ্য জানা গেছে।

জানতে চাইলে কমিটির সদস্য সচিব মো. এনামুল হক হাওলাদার বলেন, ডিজি স্যার অফিসের অন্য কাজে ব্যস্ত থাকায় সভা করা সম্ভব হয়নি। এ সপ্তাহে সভা করে চূড়ান্ত প্রতিবেদন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে।

প্রায় সাড়ে ৯ বছর পর গত ২৩ অক্টোবর সরকার দুই হাজার ৭৩০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত ঘোষণা করে। এর মধ্যে স্কুল ও কলেজের সংখ্যা এক হাজার ৬৫১টি, বিভিন্ন ধরনের কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এবং মাদ্রাসার সংখ্যা এক হাজার ৭৯টি। এমপিওভুক্তকরণে চারটি শর্ত দেওয়া হয়। এমপিও নীতিমালা ও জনবল কাঠামো-২০১৮ অনুযায়ী শর্তগুলো পূরণ করতে হবে। এ শর্তের আলোকে শিক্ষা মন্ত্রণালয় প্রতিষ্ঠানগুলোর তথ্য যাচাই-বাছাই করে। এখন চলছে শিক্ষক-কর্মচারীদের নিয়োগ সংক্রান্ত যাচাই-বাছাই।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একজন অতিরিক্ত সচিব জানান, মাউশির তালিকা পেলে চূড়ান্ত গেজেট জারি করা হবে। এরপর প্রতিটি প্রতিষ্ঠানের কোড নম্বর দেওয়া হবে। এরপর সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীরা এমপিওভুক্তির জন্য আবেদন করতে পারবেন। মার্চের মধ্যে এ কাজ শেষ করা সম্ভব হবে। গত জুলাই থেকে শিক্ষক-কর্মচারীরা বকেয়াসহ বেতন পাবেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সম্পাদক ও প্রকাশকঃ এস, এম নুরুল আমিন সরকার
সম্পাদক কর্তৃক সারদা প্রেস, বাজার রোড, কুড়িগ্রাম থেকে মূদ্রিত ও মাচাবান্দা নামাচর, চিলমারী, কুড়িগ্রাম থেকে প্রকাশিত।
অফিসঃ উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম।
ঢাকা অফিসঃ শ্যাডো কমিউনিকেশন, ৮৫, নয়া পল্টন (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা- ১০০০।
ফোনঃ ০৫৮২৪-৫৬০৬২, মোবাইল: ০১৭৩৩-২৯৭৯৪৩,
ইমেইলঃ jugerkhabor@gmail.com, smnuas1977@gmail.com
এই ওয়েবসাইট এর সকল লেখা,আলোকচিত্র,রেখাচিত্র,তথ্যচিত্র যুগেরখবর এর অনুমতি ছাড়া হুবহু বা আংশিক নকল করা সম্পূর্ন কপিরাইট আইনে আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত যুগেরখবর.কম – ২০১৩-১৯
Design & Developed By ( Nurbakta Ali )