আজকের তারিখ- Mon-30-03-2020

করোনায় দেশে প্রথম মৃত্যু, ঝুঁকিতে আরও চারজন

যুগের খবর ডেস্ক: নভেল করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বাংলাদেশে ৭০ বছর বয়সি একজনের মৃত্যু হয়েছে। এটি দেশের প্রথম মৃত্যুর ঘটনা। এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে আরও চার জন। এ নিয়ে দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৪ জনে। এখন পর্যন্ত ১৬ জন আইসোলেশনে আছেন। আর ৪২ জন প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে আছেন। নতুন আক্রান্ত চারজনের প্রত্যেকেই অন্যান্য রোগের (কো-মরবিডিটি) কারণে ঝুঁকিতে রয়েছেন। বুধবার নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা এসব তথ্য জানান।

সংবাদ সম্মেলনের শুরুতেই ডা. ফ্লোরা বলেন, ‘আমরা একটি দুঃসংবাদ বলতে চাই, বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস আক্রান্ত প্রথম একজন মৃত্যুবরণ করেছেন। তিনি একজন বয়স্ক ব্যক্তি ছিলেন, ৭০ বছরের উপরে তার বয়স। বিদেশফেরত এক ব্যক্তির সংস্পর্শে আসায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন ওই বৃদ্ধ। তার আগে থেকেই ফুসফুসে সমস্যা ছিল; এছাড়া ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ ও কিডনি জটিলতায় ভুগছিলেন তিনি। তার শরীরে করোনারি স্টেন্ট স্থাপন করা হয়েছিল। তাকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) রাখা হয়েছিল। তিনি উচ্চ ঝুঁকির মধ্যে ছিলেন এবং আমরা তাকে হারিয়েছি। আমরা তার আত্মার মাগফেরাত কামনা করি।’

অধ্যাপক ফ্লোরা আরও বলেন, নতুন আক্রান্ত চারজনের মধ্যে একজন নারী ও তিনজন পুরুষ। তাদের মধ্যে একজন আগে আক্রান্ত একজনের পরিবারের সদস্য। বাকি তিনজন বিদেশফেরত, দুজন ইতালি থেকে এবং একজন কুয়েত থেকে এসেছেন। সর্বশেষ চারজনের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত করা হওয়ায় বাংলাদেশে আক্রান্ত ১৪ জনের মধ্যে প্রথম দফায় আক্রান্ত তিনজন ইতোমধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন; হাসপাতালে ভর্তি আছেন ১০ জন। আক্রান্তদের সংস্পর্শে এসেছেন এমন ১৬ জনকে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। ৪২ জনকে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৪৯ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে জানিয়ে সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, এ পর্যন্ত মোট ৩৪১ জনের নমুনা তারা সংগ্রহ করেছেন।

বিশ্বজুড়ে নভেল করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পর গত ৮ মার্চ প্রথম বাংলাদেশে তিনজন এ রোগে আক্রান্ত হওয়ার খবর জানায় আইইডিসিআর। ওই তিনজনের মধ্যে দুজন ইতালি থেকে এসেছিলেন। ইতালিফেরত একজনের পরিবারের সদস্য ছিলেন আক্রান্ত তৃতীয়জন। ওই সময় আক্রান্তদের হাসপাতালে ভর্তির পাশাপাশি আরও চারজনকে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছিল।

কোভিড-১৯ সংক্রমণ অত্যন্ত ছোঁয়াচে কিন্তু মারাত্মক নয় জানিয়ে অধ্যাপক সেব্রিনা বলেন, যেহেতু রোগটি ছোঁয়াচে তাই একে প্রতিরোধে জরুরি এবং প্রতিরোধের জন্য সচেতন হওয়া অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই এতে মৃত্যুঝুঁকি থাকে না, তবে বয়স্ক এবং যারা অন্য দীর্ঘমেয়াদি অসুখে আক্রান্ত তাদের জন্য এটা ঝুঁকিপূর্ণ। এসব মানুষকে অতিরিক্ত সতর্কতা হিসেবে নিজের ঘরে থাকার পরামর্শ দেন তিনি।

করোনা রোগীর সংস্পর্শে ঢামেকের চার চিকিৎসক হোম কোয়ারেন্টাইনে: ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের চার চিকিৎসক হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন। তারা আউটডোর বিভাগে দায়িত্ব পালন করছিলেন। তারা সাধারণত নিয়মিত ঠা-া, জ্বর ও নিউমোনিয়ার রোগী দেখতেন।

সম্প্রতি ঢামেকে চারজন রোগীর শরীরে করোনা ভাইরাসের উপসর্গ পাওয়ায় তাদের কুয়েত মৈত্রী ও কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে যাওয়ার পরামর্শ দেন এই চিকিৎসকরা। পরে আইইডিসিআরের পরীক্ষায় তাদের করোনা ভাইরাস শনাক্ত করা হয়। এ চিকিৎসকদের হোম কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে। ঢামেকের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. খান আবুল কালাম আজাদ বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেন। পরে আইইডিসিআরও একই কথা স্বীকার করেন।

এদিকে বুধবার সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজে চিকিৎসক ও অধ্যাপকদের দেড় ঘণ্টাব্যাপী একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে চিকিৎসকদের নিজ নিজ নিরাপত্তা নিশ্চিত করে চিকিৎসা দিতে বলা হয়েছে। বৈঠক শেষে ঢামেকের এক অধ্যাপক সাংবাদিকদের বলেন, আমরা সবার প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি, আপনারা সামান্য জ্বর-কাশি হলে হাসপাতালে না এসে ঘরে থেকে পর্যবেক্ষণ করুন। যদি এর সঙ্গে শ্বাসকষ্ট থাকে তাহলে সরকার নির্ধারিত চারটি হাসপাতালে গিয়ে চিকিৎসা নিন।

করোনা ভাইরাসের বিশ্ব পরিস্থিতি: জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বের ১৫৬টি দেশে দুই লাখের বেশি মানুষ নভেল করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন; মৃতের সংখ্যা আট হাজার ছাড়িয়ে গেছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, সারা বিশ্বে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন এক লাখ ৭৯ হাজার ১১২ জন, ২৪ ঘণ্টায় নতুন আক্রান্ত ১১ হাজার ৫২৬ জন, মৃত্যু হয়েছে সাত হাজার ৭২৬ জন।

চীনে আক্রান্ত ৮০ হাজার ৮৯৪ জন ও মৃত্যু তিন হাজার ২৩৭ জন, ইতালি ৩১ হাজার ৫০৬ জন এবং মৃত্যু দুই হাজার ৫০৩ জন, ইরানে ৩১ হাজার ৫০৬ জন এবং মৃত্যু ৯৮৮ জন, স্পেনে ১১ হাজার ৮২৬ জন এবং মৃত্যু ৫৩৩ জন, দক্ষিণ কোরিয়ায় আক্রান্ত আট হাজার ৪১৩ জন এবং মৃত্যু এবং ৮৪ জন, জার্মানি নয় হাজার ৩৬৭ জন এবং মৃত্যু ২৬ জন, ফ্রান্স সাত হাজার ৭৩০ জন মৃত্যু ১৭৫ জন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ছয় হাজার ৪৮৮ জন এবং মৃত্যু ১১২ জন, সুইজারল্যান্ডে দুই হাজার ৭৪২ জন এবং মৃত্যু ২৭ জন, যুক্তরাজ্যে এক হাজার ৯৫০ জন এবং মৃত্যু ৭১ জন, সুইডেন এক হাজার ১৯৬ জন এবং মৃত্যু আটজন, বেলজিয়াম এক হাজার ২৪৩ জন এবং মৃত্যু ১০ জন, অস্ট্রিয়া এক হাজার ৩৩২ জন এবং মৃত্যু চারজন, ডেনমার্ক ৯৭৭ জন এবং মৃত্যু চারজন এবং জাপান ৮৮২ জন আক্রান্ত এবং মৃত্যু হয়েছে ২৯ জন।

তাদের মধ্যে প্রথম দফায় আক্রান্ত তিনজন ইতোমধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন; হাসপাতালে ভর্তি আছেন ১০ জন। আক্রান্তদের সংস্পর্শে এসেছেন এমন ১৬ জনকে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। ৪২ জনকে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৪৯ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে জানিয়ে সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, এ পর্যন্ত মোট ৩৪১ জনের নমুনা তারা সংগ্রহ করেছেন।

বিশ্বজুড়ে নভেল করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পর গত ৮ মার্চ প্রথম বাংলাদেশে তিনজন এ রোগে আক্রান্ত হওয়ার খবর জানায় আইইডিসিআর। ওই তিনজনের মধ্যে দুজন ইতালি থেকে এসেছিলেন। ইতালিফেরত একজনের পরিবারের সদস্য ছিলেন আক্রান্ত তৃতীয়জন। ওই সময় আক্রান্তদের হাসপাতালে ভর্তির পাশাপাশি আরও চারজনকে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছিল।

জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বের ১৫৬টি দেশে দুই লাখের বেশি মানুষ নভেল করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন; মৃতের সংখ্যা আট হাজার ছাড়িয়ে গেছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, সারা বিশ্বে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন এক লাখ ৭৯ হাজার ১১২ জন, ২৪ ঘণ্টায় নতুন আক্রান্ত ১১ হাজার ৫২৬ জন, মৃত্যু হয়েছে সাত হাজার ৭২৬ জন।

করোনা রোগীর সংস্পর্শে ঢামেকের ৪ চিকিৎসক হোম কোয়ারেন্টাইনে : ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের চার চিকিৎসক হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন। তারা আউটডোর বিভাগে দায়িত্ব পালন করছিলেন। তারা সাধারণত নিয়মিত ঠাণ্ডা, জ্বর ও নিউমোনিয়ার রোগী দেখতেন। সম্প্রতি ঢামেকে চারজন রোগীর শরীরে করোনা ভাইরাসের উপসর্গ পাওয়ায় তাদের কুয়েত মৈত্রী ও কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে যাওয়ার পরামর্শ দেন এই চিকিৎসকরা। পরে আইইডিসিআরের পরীক্ষায় তাদের করোনা ভাইরাস শনাক্ত করা হয়। এ চিকিৎসকদের হোম কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে। ঢামেকের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. খান আবুল কালাম আজাদ বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেন। পরে আইইডিসিআরও একই কথা স্বীকার করেন।

এদিকে বুধবার সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজে চিকিৎসক ও অধ্যাপকদের দেড় ঘণ্টাব্যাপী একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে চিকিৎসকদের নিজ নিজ নিরাপত্তা নিশ্চিত করে চিকিৎসা দিতে বলা হয়েছে। বৈঠক শেষে ঢামেকের এক অধ্যাপক সাংবাদিকদের বলেন, আমরা সবার প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি, আপনারা সামান্য জ্বর-কাশি হলে হাসপাতালে না এসে ঘরে থেকে পর্যবেক্ষণ করুন। যদি এর সঙ্গে শ্বাসকষ্ট থাকে তাহলে সরকার নির্ধারিত চারটি হাসপাতালে গিয়ে চিকিৎসা নিন।

করোনা ভাইরাসের বিশ্ব পরিস্থিতি : চীনে আক্রান্ত ৮০ হাজার ৮৯৪ জন ও মৃত্যু তিন হাজার ২৩৭ জন, ইতালি ৩১ হাজার ৫০৬ জন এবং মৃত্যু দুই হাজার ৫০৩ জন, ইরানে ৩১ হাজার ৫০৬ জন এবং মৃত্যু ৯৮৮ জন, স্পেনে ১১ হাজার ৮২৬ জন এবং মৃত্যু ৫৩৩ জন, দক্ষিণ কোরিয়ায় আক্রান্ত আট হাজার ৪১৩ জন এবং মৃত্যু এবং ৮৪ জন, জার্মানি ৯ হাজার ৩৬৭ জন এবং মৃত্যু ২৬ জন, ফ্রান্স সাত হাজার ৭৩০ জন মৃত্যু ১৭৫ জন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ছয় হাজার ৪৮৮ জন এবং মৃত্যু ১১২ জন, সুইজারল্যান্ডে দুই হাজার ৭৪২ জন এবং মৃত্যু ২৭ জন, যুক্তরাজ্যে এক হাজার ৯৫০ জন এবং মৃত্যু ৭১ জন, সুইডেন এক হাজার ১৯৬ জন এবং মৃত্যু আটজন, বেলজিয়াম এক হাজার ২৪৩ জন এবং মৃত্যু ১০ জন, অস্ট্রিয়া এক হাজার ৩৩২ জন এবং মৃত্যু চারজন, ডেনমার্ক ৯৭৭ জন এবং মৃত্যু চারজন এবং জাপান ৮৮২ জন আক্রান্ত এবং মৃত্যু হয়েছে ২৯ জন।

সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি এইচ, এম রহিমুজ্জামান সুমন
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ এস, এম নুরুল্ আমিন সরকার্
নির্বাহী সম্পাদকঃ নাজমুল হুদা পারভেজ
সম্পাদক কর্তৃক সারদা প্রেস, বাজার রোড, কুড়িগ্রাম থেকে মূদ্রিত ও উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম থেকে প্রকাশিত।
অফিসঃ উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম।
ফোনঃ ০৫৮২৫-৫৬০১৭, ফ্যাক্স: ০৫৮২৪৫৬০৬২, মোবাইল: ০১৭৩৩-২৯৭৯৪৩, ইমেইলঃ jugerkhabor@gmail.com
এই ওয়েবসাইট এর সকল লেখা,আলোকচিত্র,রেখাচিত্র,তথ্যচিত্র যুগেরখবর এর অনুমতি ছাড়া হুবহু বা আংশিক নকল করা সম্পূর্ন কপিরাইট আইনে আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত যুগেরখবর.কম – ২০১৩-১৯
Design & Developed By ( Nurbakta Ali )