আজকের তারিখ- Sat-23-01-2021

বরফ গলছে দুই ভাইয়ের

যুগের খবর ডেস্ক: নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভায় দলীয় প্রার্থী আবদুল কাদের মির্জা এবং তার বড় ভাই আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরে মধ্যে সৃষ্ট তিক্ততা এবং ক্ষোভের বক্তব্য-পাল্টা বক্তব্যে সৃষ্ট উত্তেজনা অবশেষে স্তিমিত হতে শুরু করেছে। দুই ভাইয়ের বরফ গলতে শুরু করার ইঙ্গিত মিললো গতকাল সোমবার আবদুল কাদের মির্জার বক্তব্যে। তিনি বললেন, ভোটের অবস্থা ভালো। সংসদ সদস্য একরামুল করিম চৌধুরী তার পক্ষে ভোট চাইছেন। এর আগে অবিরাম ক্ষোভ ঝরাচ্ছিলেন এই বলে যে, তার ভাই ওবায়দুল কাদের, সংসদ সদস্য, জেলা, উপজেলা আওয়ামী লীগ, ডিসি, এসপি নেই, নির্বাচন কর্মকর্তা কেউই তার পাশে নেই। গতকালের (সোমবার) বক্তব্যে সেই ক্ষোভের অনেকটাই নিরসন বোঝা গেল।
গতকাল সোমবার বসুরহাট পৌরসভার রূপালী চত্বরে ব্যবসায়ীদের আয়োজনে নির্বাচনী পথসভায় আবদুল কাদের মির্জার বক্তব্যে তার আলামত পওয়া গেছে। মির্জা কাদের বলেন, আমার সঙ্গে কেউ না থাকলেও আছে শুধু জনগণ। তিনি ১৬ জানুয়ারির পৌরসভা নির্বাচনকে অবাধ ও সুষ্ঠু করতে সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস দিয়ে তিনি বলেন, নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ ও বিতর্কিত করার নানা ধরনের ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। একজন এমপির পুত্রের নেতৃত্বে এলাকায় অস্ত্র সরবরাহ করা হচ্ছে। এগুলো বন্ধ করতে হবে।
তিনি বলেন, জাতীয় রাজনীতি এবং দলীয়প্রধান শেখ হাসিনাকে নিয়ে কোনো মন্তব্য করিনি। তিনি উপস্থিত জনগণকে উদ্দেশ করে বলেন, আমি কি কোথায়ও বলেছি, শেখ হাসিনা প্রহসনের নির্বাচন করেছেন? কিন্তু এর অপব্যাখা দিচ্ছে কেউ কেউ। আমি সব সময় বলে আসছি ১৯৯৬ ও ২০০৮ সালে এদেশে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন হয়েছে। আর বিএনপি জিয়াউর রহমানের আমল থেকে ভোট কারচুপি শুরু করেছে। আমি বাংলাদেশের কোনো অনিয়মের কথা বলিনি। আমি বলেছি নোয়াখালীর অপরাজনীতি, অনিয়ম আর দুর্নীতির কথা। কিন্তু কিছু মিডিয়া তা এডিট করে প্রচার করছে। আর স্বার্থবাজরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কান ভারী করার চেষ্টা করছে।
নিজের এলাকায় সুষ্ঠু নির্বাচন আয়োজনে তার ওপর রাগ করে থাকা বড় ভাই আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে বোঝানোর জন্য এলাকার শুভাকাক্সক্ষীদের প্রতি অনুরোধ জানান কাদের মির্জা। ওবায়দুল কাদেরের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘স্থানীয় সংসদ সদস্য হিসেবে সুষ্ঠু ভোট আয়োজনে আপনারও দায়িত্ব রয়েছে। যারা তার (ওবায়দুল কাদের) শুভাকাক্সক্ষী তারা দয়া করে তাকে বোঝান। তিনি তো এখন আমার কথা শোনেন না। শোনেন তার শুভাকাক্সক্ষীদের কথা। মির্জা কাদের বলেন, আমি যদি ভোটের দিন কোনো অনিয়ম করি তাহলে আল্লাহ যেন আমার সেদিন মৃত্যু দেন। আমি নিজেও কোনো অনিয়ম করবো না এবং কাউকে করতেও দেবো না।
এদিকে তার পক্ষে এতদিন পর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও নোয়াখালী-৪ (সদর-সুবর্ণচর) আসনের সংসদ সদস্য একরামুল করিম চৌধুরী ভোট চাওয়ায় শ্লেষের সঙ্গে মন্তব্যও করেছেন বসুরহাট পৌরসভায় আওয়ামী লীগের এই প্রার্থী। একরামুল করিম চৌধুরীর উদ্দেশে তিনি বলেছেন, ভোটে আমার অবস্থা ভালো এ কথা শুনে হয়তো তিনি আমার পক্ষে ভোট চাইছেন। এটি তাদের অন্য কৌশল হতে পারে। ভোটের মাঠের অবস্থা খারাপ হলে হয়তো তিনি ভোট চাইতেন না।
এর আগে গত রবিবার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে আয়োজিত আলোচনা সভায় বসুরহাট পৌরসভায় আওয়ামী লীগের প্রার্থী আবদুল কাদের মির্জার পক্ষে ভোট চান স্থানীয় সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক একরামুল করিম চৌধুরী। এসময় তিনি বলেন, আবদুল কাদের মির্জা নয়, আমাদের দরকার নৌকার জয়। আমি কোম্পানীগঞ্জের মানুষকে বলবো, আপনারা শেখ হাসিনার দিকে তাকিয়ে, ওবায়দুল কাদেরের দিকে তাকিয়ে ও জেলা আওয়ামী লীগের দিকে তাকিয়ে নৌকা প্রতীকে ভোট ভিক্ষা চান। এসময় একরামুল করিম জেলার নেতাদের উদ্দেশে বলেছিলেন, ‘একটা কথা মনে রাখবেন, সবাই ভুল করলে হবে না। আমরা জেলার নেতা। আমাদেরকে সকল দিক দেখতে হবে। আমাদেরকে জেলার সকল নৌকার প্রার্থীকে জেতাতে হবে। নৌকার জয় মানে বঙ্গবন্ধুর জয়। নৌকার জয় মানে শেখ হাসিনার জয়।
উল্লেখ্য, আগামী ১৬ জানুয়ারি অনুষ্ঠেয় নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী হয়ে নির্বাচন এবং স্থানীয় ও জাতীয় রাজনীতির বিভিন্ন প্রসঙ্গ টেনে এনে বিভিন্ন মন্তব্য করে দল ও দলের বাইরে আলোচিত-সমালোচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের ছোটভাই আবদুল কাদের মির্জা। তার কিছু মন্তব্য তুলে ধরে বিএনপি নেতারা সরকারের সমালোচনা করার পর থেকেই আওয়ামী লীগের বিভিন্ন নেতা তাকে থামাতে এবং তাকে ‘উন্মাদ’ দায়িত্বশীল নন এমন বিভিন্ন মন্তব্য করেন। আবদুল কাদের মির্জাকে দল থেকে বহিষ্কারের দাবি উঠলে এ বিষয়ে মন্তব্য করতে গিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘শেখ হাসিনা ছাড়া দলে কেউ অপরিহার্য নন।’

সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সম্পাদক ও প্রকাশকঃ এস, এম নুরুল আমিন সরকার
সম্পাদক কর্তৃক সারদা প্রেস, বাজার রোড, কুড়িগ্রাম থেকে মূদ্রিত ও মাচাবান্দা নামাচর, চিলমারী, কুড়িগ্রাম থেকে প্রকাশিত।
অফিসঃ উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম।
ঢাকা অফিসঃ শ্যাডো কমিউনিকেশন, ৮৫, নয়া পল্টন (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা- ১০০০।
ফোনঃ ০৫৮২৪-৫৬০৬২, মোবাইল: ০১৭৩৩-২৯৭৯৪৩,
ইমেইলঃ jugerkhabor@gmail.com, smnuas1977@gmail.com
এই ওয়েবসাইট এর সকল লেখা,আলোকচিত্র,রেখাচিত্র,তথ্যচিত্র যুগেরখবর এর অনুমতি ছাড়া হুবহু বা আংশিক নকল করা সম্পূর্ন কপিরাইট আইনে আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত যুগেরখবর.কম – ২০১৩-১৯
Design & Developed By ( Nurbakta Ali )