আজকের তারিখ- Sat-27-02-2021
 **   শনিবার সংবাদ সম্মেলনে আসছেন প্রধানমন্ত্রী **   প্রশংসিত ‘মন অবরোধ’ **   সাংবাদিকতার ‘নৈতিকতা বিরোধী’ অনুষ্ঠান প্রচার করছে আল জাজিরা **   সততার সঙ্গে দায়িত্ব পালনের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর **   পিলখানা হত্যা দিবস আজ **   করোনা নিয়ন্ত্রণে বিশ্বে অনন্য দৃষ্টান্ত বাংলাদেশ **   চিলমারীতে বিএনপির রংপুর বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল খালেককে লাঞ্চিত করার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন **   দেশেই তৈরি হবে যুদ্ধবিমান: প্রধানমন্ত্রী **   সাংবাদিক মুজাক্কির হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবিতে চিলমারীতে প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত **   চিলমারীতে ১০দিনের মজুরীর দাবীতে শ্রমিকদের মানববন্ধন

বসন্ত উৎসবে ভালোবাসার রঙ, উত্তাপ ফুলের দামে

যুগের খবর ডেস্ক: ভালোবাসা দিবস এবং পহেলা ফাগুন। দীর্ঘ করোনাকালীন সময়ের পর একই দিনে এই দুই উৎসব হওয়ায় সরগরম হয়ে উঠেছে ফুলেরবাজার। আনন্দ যখন দ্বিগুণ, সেখানে সরগরম তো হবেই। বসন্ত মানেই শহরের অলিগলি থেকে বিভিন্ন বিনোদন কেন্দ্র ছেয়ে যেত হলুদ রঙে। আর ভালোবাসা দিবসে পাল্টে যেত রং। হাতে লাল গোলাপ। পোশাকেও লাল-নীলের প্রাধান্য। এই দুই উৎসবের আমেজকে উপভোগ করতে প্রস্তুত তরুণ-তরুণীরা। তবে এবার ফুলের দামের উত্তাপটা একটু বেশিই মনে হয়েছে অন্যান্য বছরের তুলনায়।
রাজধানীর শাহবাগের এক ব্যবসায়ী বলেন, ‘ফুলে করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) প্রভাব পড়েছে। কারণ যে সময় পুরো দেশ লকডাউন ছিল, তখন প্রতিদিন কোটি কোটি টাকার ফুল পচে নষ্ট হয়েছে। তখন অনেকে ফুলের বাগান নষ্ট করে অন্য কাজে লাগিয়েছেন। এখন সে কারণে ফুলের সরবরাহ কম।’
পাশের আরেক ব্যবসায়ী বলেন, ‘ওই সময়ের পর থেকে এখন পর্যন্ত শুধু ডিসেম্বরেই ব্যবসা ভালো গেছে। আর এখন এসেছে ভ্যালেন্টাইন আর ফাল্গুন। হঠাৎ সরবরাহের তুলনায় চাহিদা বাড়ায় এখন দাম খুবই বাড়তি।’
ফুল ধরে ধরে দাম জানিয়ে ওই ব্যবসায়ী বলেন, ‘গত বছর গদখালীর গোলাপের সবচেয়ে ভালোটার দাম ছিল ছিল ৮ থেকে ১২ টাকা। সেটা এখন ১৫ থেকে ১৭ টাকায় কিনতে হচ্ছে। আমরা ২৫ থেকে ৩০ টাকায় বিক্রি করছি। অর্থাৎ দাম গত বছরের ভ্যালেন্টাইনের তুলনায় প্রায় দেঁড়গুণ।’
‘এছাড়া গ্লাডিওলাস পাইকারিতে ৮-১০ টাকা থেকে বেড়ে ১৩-১৫ টাকা হয়েছে। বিক্রি হচ্ছে ২০ টাকায়। রজনীগন্ধা ৬-৭ থেকে বেড়ে এখন ৯-১০ টাকা, বিক্রি ১৫ টাকা, ৫ টাকার জারবেরা ফুলের পাইকারি দাম বেড়ে ১০ থেকে ১৫ টাকা হয়েছে। বিক্রি করছি ২০ টাকায়।’
তিনি বলেন, ‘পয়লা ফাল্গুনে সবচেয়ে বেশি চাহিদার ফুল বাসন্তী গাঁদার চেইন (ডাবল)। এর দাম ৫০ থেকে বেড়ে ৭০ টাকা হয়েছে। যা ১০০ টাকার নিচে বেচলে লাভ হচ্ছে না। এছাড়া প্রতি হাজার বাসন্তী গাদা ফুল ৩০০ থেকে ৩৫০ টাকায় বেচাকেনা হতো, যা এখন ৫০০ টাকার ওপরে।’
এরপরও বিক্রেতারা শঙ্কায় রয়েছেন চলমান করোনা পরিস্থিতির কারণে। করোনার প্রকোপ কিছুটা কমলেও এখনো অনেকেরই মধ্যে উৎসবের আমেজ নেই। তাই এসব দিবসে কত টাকার ফুল বিক্রি হবে, তা নিয়ে শঙ্কা তাদের। এর মধ্যে চলমান করোনা পরিস্থিতিতে দেশে সামাজিক আচার-অনুষ্ঠান ব্যাপকহারে কমেছে। উৎসব আয়োজনও সীমিত হয়ে পড়েছে। বিক্রেতারা অধিকাংশ সময় ফুল বিক্রি হওয়া নিয়ে অনিশ্চয়তার মধ্যে থাকছেন।
বর্তমানে দেশে সবচেয়ে বেশি ফুল হচ্ছে যশোরে। অন্যান্য এলাকায়ও ফুলের চাষ প্রচুর বেড়েছে। সবমিলে সারাদেশে ছয় হাজার হেক্টর জমিতে এখন ফুল চাষ হচ্ছে। রজনীগন্ধা, গোলাপ, জারবেরা, গাঁদা, গ্লাডিওলাস, রডস্টিক, কেলেনডোলা, চন্দ্র মল্লিকাসহ দেশের চাষিদের উৎপাদিত ১১ ধরনের ফুল দেশের বিভিন্ন প্রান্তে যাচ্ছে। এছাড়া রফতানিও হচ্ছে।
অন্যদিকে, দেশে চীন, থাইল্যান্ডসহ কয়েকটি দেশ থেকে গোলাপ, লিলি, অর্কিড, কার্নিশন, নীলকণ্ঠ, জিপসিসহ বেশ কিছু ফুল আমদানি হচ্ছে।
এদিকে, বাংলাদেশ ফ্লাওয়ার সোসাইটির তথ্য বলছে, শুধু ভালোবাসা দিবসে গোলাপের চাহিদা ৫০ লাখের বেশি হলেও চাহিদা অনুযায়ী এ বছর জোগান কিছুটা কম হতে পারে। গত বছর ভালোবাসা দিবস ও বসন্তবরণকে কেন্দ্র করে প্রায় ২০০ কোটি টাকার ফুল বিক্রি হয়েছিল।
সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সম্পাদক ও প্রকাশকঃ এস, এম নুরুল আমিন সরকার
সম্পাদক কর্তৃক সারদা প্রেস, বাজার রোড, কুড়িগ্রাম থেকে মূদ্রিত ও মাচাবান্দা নামাচর, চিলমারী, কুড়িগ্রাম থেকে প্রকাশিত।
অফিসঃ উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম।
ঢাকা অফিসঃ শ্যাডো কমিউনিকেশন, ৮৫, নয়া পল্টন (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা- ১০০০।
ফোনঃ ০৫৮২৪-৫৬০৬২, মোবাইল: ০১৭৩৩-২৯৭৯৪৩,
ইমেইলঃ jugerkhabor@gmail.com, smnuas1977@gmail.com
এই ওয়েবসাইট এর সকল লেখা,আলোকচিত্র,রেখাচিত্র,তথ্যচিত্র যুগেরখবর এর অনুমতি ছাড়া হুবহু বা আংশিক নকল করা সম্পূর্ন কপিরাইট আইনে আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত যুগেরখবর.কম – ২০১৩-১৯
Design & Developed By ( Nurbakta Ali )