জামায়াত ইসির নিবন্ধিত দল!

EC-Jimait-sm20130814061941ঢাকা অফিস: জামায়াত নিয়ে দ্বিধাদ্বন্দ্বে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। আদালত দলটির নিবন্ধন অবৈধ ঘোষণা করলেও দলটি সেই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করায় ইসির নিবন্ধিত দলের তালিকায় জামায়াত আছে কিনা তা নিয়েও সিদ্ধান্তহীনতায় আছে ইসি।
নির্বাচন কমিশনার মোহাম্মদ জাবেদ আলী বুধবার নির্বাচন কমিশনে সাংবাদিকদের জানান, ‘আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে দলটি আপিল করায় বিষয়টি সাবজুডিস বিষয় হয়ে গেছে। তাই জামায়াতের নিবন্ধনের বিষয়টি এখন আদালতের সিদ্ধান্তের ওপর নির্ভর করছে।’
এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘যেহেতু দলটি আপিল করেছে তাই তারা এখনও আমাদের নিবন্ধিত দল হিসেবে বিবেচ্য হবে।’
তিনি বলেন, ‘কোন রাজনৈতিক দলের নিবন্ধন বাতিলের ক্ষমতা ইসির নেই। কমিশনকে স্বৈরাচারী ক্ষমতা বা অস্ত্র দেওয়া উচিত নয়। এতে অসর্তকভাবে হলেও সে অস্ত্র ব্যবহৃত হলে বিতর্কের সৃষ্টি হবে।’
জাবেদ আলী বলেন, ‘আমরা কোন রাজনৈতিক দলের নিবন্ধন কাটতে পারবো তখনই, যখন সরকার নির্বাহী আদেশে কোন দলকে নিষিদ্ধ করবে।’
তিনি বলেন, “আমরা সবাই ইসিকে শক্তিশালী করতে চাই। কিন্তু আবারও বলছি ইসিকে এমন ক্ষমতা দেওয়া উচিত হবে না অসতর্ক অবস্থায় যার ক্ষমতার অপব্যবহার ‘ফ্রাঙ্কেস্টাইন স্টাইল’ অ্যাকশন বলে বিবেচিত হয়।’
জামায়াত সম্পর্কে এই নির্বাচন কমিশনার বলেন, ‘যদি কোর্ট রায়ের আপিল নিষ্পত্তির মাধ্যমে দলটির নিবন্ধন বাতিল করে, তাহলে আমরাও তা বাতিল করতে পারবো।’
দলটির নিবন্ধন প্রক্রিয়া সম্পর্কে তিনি বলেন, “আমরাই দলটির নিবন্ধন দিয়েছিলাম। তবে এতে শর্ত ছিল দলটি তাদের গঠনতন্ত্র থেকে সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক বিষয়গুলো ‘ঘষামাজা’র মাধ্যমে বাদ দেবে। আগের কমিশন এ বিষয়ে তাদের বারবার চিঠি দিয়েছে। আমরাও তাদের চিঠি দিয়েছি। তারাও তাদের জবাব দিয়েছে। আমরা তাদের সংশোধিত গঠনতন্ত্র নিয়ে বসেছিলাম। কিন্তু এ বিষয়ে আদালতে মামলা থাকায় আমরা পুরো বিষয়টি স্থগিত করি।”
জাবেদ আলী বলেন, ‘আদালত যদি দলটির নিবন্ধন বাতিল করে তবেই তারা আবার নিবন্ধনের জন্য আবেদন করতে পারবে।’
উল্লেখ্য, গত ১ আগস্ট জামায়াতকে দেওয়া নির্বাচন কমিশনের (ইসি) নিবন্ধন অবৈধ বলে রায় দেয় হাইকোর্ট। একটি রিট আবেদনের ভিত্তিতে হাইকোর্টের জারি করা রুলের চূড়ান্ত রায়ে এ আদেশ দেন বিচারপতি এম মোয়াজ্জাম হোসেন, বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি কাজী রেজা-উল-হকের সমন্বয় গঠিত হাইকোর্টের বৃহত্তর (লার্জার) বেঞ্চ।‘
রায়ে আদালত বলেন, ‘এ নিবন্ধন দেওয়া আইনগত কর্তৃত্ব বহির্ভূত।’ ওইদিন রায়ের পর নির্বাচন কমিশনের (ইসি) আইনজীবী মহসীন রশিদ সাংবাদিকদের বলেন, ‘সংখ্যাগরিষ্ঠ বিচারকের মতামতের ভিত্তিতে এ রায় দেওয়া হয়েছে।‘
অন্যদিকে জামায়াতের আইনজীবী ব্যারিস্টার আব্দুর রাজ্জাক বলেছিলেন, ‘একই সঙ্গে আদালত আমাদের আপিল করারও অনুমোদন দিয়েছেন। তাই আপিল করার পর এ রায় কার্যকর হবে না।‘
অন্যদিকে রায়ের পরপরই প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী রকিবউদ্দীন আহমদ বাংলানিউজকে বলেন, ‘আদালতের রায় হাতে পেলেই রাজনৈতিক দল হিসেবে জামায়াতের নিবন্ধন থাকবে কি না তা জানা যাবে। এ ক্ষেত্রে রায়ের নির্দেশনা বিবেচ্য হবে।‘
ওইদিন সিইসি বলেছিলেন, ‘আপাতত দৃষ্টিতে মনে হচ্ছে দল হিসেবে জামায়াতের নির্বাচনে অংশ নেওয়ার সুযোগ থাকছে না। তবে দলটির নেতারা স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন।’

Leave a Reply

You must be logged in to post a comment.

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি এইচ, এম রহিমুজ্জামান সুমন
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ এস, এম নুরুল্ আমিন সরকার্
নির্বাহী সম্পাদকঃ নাজমুল হুদা পারভেজ
সম্পাদক কর্তৃক সারদা প্রেস, বাজার রোড, কুড়িগ্রাম থেকে মূদ্রিত ও উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম থেকে প্রকাশিত।
অফিসঃ উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম।
ফোনঃ ০৫৮২৫-৫৬০১৭, ফ্যাক্স: ০৫৮২৪৫৬০৬২, মোবাইল: ০১৭৩৩-২৯৭৯৪৩, ইমেইলঃ jugerkhabor@gmail.com
এই ওয়েবসাইট এর সকল লেখা,আলোকচিত্র,রেখাচ¬িত্র,তথ্যচিত্র যুগেরখবর এর অনুমতি ছাড়া হুবহু বা আংশিক নকল করা সম্পূর্ন কপিরাইট আইনে আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত যুগেরখবর.কম – ২০১৩-১৪