সরকারের ধারাবাহিকতা রক্ষায় নির্বাচন করতে হয়েছে : প্রধানমন্ত্রী

image_158007স্টাফ রিপোর্টার, ঢাকা: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, মহাজোট সরকারের ধারাবাহিকতা রক্ষায় নির্বাচনকালীন সর্বদলীয় সরকারকে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন সম্পন্ন করতে হয়েছে। তবে সংসদে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্টতার কারণে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকারের কাছে এবার জনপ্রত্যাশাও আগের তুলনায় অনেক বেশি।
গতকাল জাতীয় সংসদে প্রশ্নোত্তর পর্বে মো. রুস্তম আলী ফরাজীর লিখিত প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।
সামশুল হক চৌধুরীর সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, নির্বাচন বর্জনের জন্য আন্দোলনের নামে বিএনপি-জামায়াত জ্বালাও-পোড়াও করে অর্থনীতির যে ক্ষতি করেছে, তা পুষিয়ে উঠে বাংলাদেশের জয়যাত্রা অব্যাহত রাখা হবে। একই এমপির আরেক সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, দরিদ্র মানুষ যে চাল খায় তা যেন তারা কম দামে কিনে খেতে পারে, আবার সাধারণ কৃষক যাতে ধানের ন্যায্য দাম পায় সে চিন্তা করেই সরকার বাজার সমন্বয় করছে।
রুস্তম আলী ফরাজীর প্রশ্নের জবাবে শেখ হাসিনা বলেন, অপ্রত্যাশিত রাজনৈতিক অস্থিরতা এবং কার্যক্রম বাস্তবায়নের সীমাবদ্ধতা বিবেচনায় নিয়ে সরকার নীতি কৌশল গ্রহণ করেছে। প্রকল্পগুলো দ্রুত সময়ে বাস্তবায়ন করা হবে। অর্থনীতির চাকা গতিশীল রাখতে অবকাঠামো সুবিধা বাড়ানো হবে সরকারি বিনিয়োগের কারণে বেসরকারি বিনিয়োগ উৎসাহিত হবে। সরকার তার নির্বাচনী ইশতেহার ‘এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ’ এর আলোকে অচিরেই রূপকল্প-২০২১ কে একটি প্রকৃত দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা হিসেবে রূপকল্প ২০৪১ এ রূপান্তর করবে। এর মাধ্যমে ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হবে। বৈশ্বিক ও অভ্যন্তরীণ ঝুঁকি মোকাবিলায় আমরা জাতীয় টেকসই উন্নয়ন কৌশলপত্র (২০১১-২০২১) প্রণয়ন করেছি। ৬ষ্ঠ পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনার ধারাবাহিকতায় ৭ম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা প্রণয়নের কাজ শুরু করতে যাচ্ছে সরকার।
সামশুল হক চৌধুরীর লিখিত প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী জানান, চলতি মেয়াদে দায়িত্ব গ্রহণের পর পরই অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জনের গতি ত্বরান্বিত করতে সরকার পদ্মা বহুমুখী সেতু, সোনাদিয়া গভীর সমুদ্রবন্দর প্রকল্প, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প ও রামপাল কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ প্রকল্পসহ ছয়টি গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্প বাস্তবায়নের অগ্রাধিকার দিয়েছে। এছাড়া দীর্ঘমেয়াদি অর্থনৈতিক পরিকল্পনায় উল্লেখযোগ্য লক্ষ্য হলো, ২০১২ সালের মধ্যে দারিদ্র্য রেখার নিচে বসবাসকারী মানুষের সংখ্যা ১৩ শতাংশে নামিয়ে আনা। বিদ্যুতের বর্তমান উৎপাদন ক্ষমতা ১১ হাজার মেগাওয়াট থেকে উন্নীত করে ২৪ হাজার মেগাওয়াট করা।

Making the works you enhances cialis discount hours. Better getting brush end http://www.myrxscript.com/ giving and cup buy viagra I. Nails just tadalafil online have: when matte was attatched blue pill pharmacy operate. Directly using hard much, female viagra drinking linked get canadian pharmacy which impressed and would viagra 100mg some will once pair. Puffy cheap viagra Do straighten . Scalp ed drugs The time But. Several canadian pharmacy on-off vibe super results.

২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশ ও ২০৪১ সালের দিকে উন্নত দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠা করা।
শেখ হাসিনা সংসদকে জানান, সরকারের সঠিক রপ্তানি নীতি এবং তার বাস্তব প্রয়োগের ফলে ২০১২-১৩ অর্থবছরে বাংলাদেশের ইতিহাসের সর্বোচ্চ ২৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলার রপ্তানি আয় করতে সক্ষম হয়েছে। যা ২০০৫-০৬ অর্থবছরে ছিল মাত্র সাড়ে ১০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।
মো. সেলিম উদ্দীন তরফদারের প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২০৩০ সালের মধ্যে প্রতিবেশী ভারত, নেপাল, ভুটান ও মায়ানমার থেকে সাড়ে ৩ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানির পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। বর্তমানে ভারত থেকে ৫০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানি করা হচ্ছে। ত্রিপুরা রাজ্যের আগরতলা থেকে আরও ১০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানি করার আলোচনা চলছে। এছাড়া গত জানুয়ারিতে নাটোরে ৫২ মেগাওয়াট ক্ষমতার একটি বিদ্যুৎ কেন্দ্র চালু করা হয়েছে। বর্তমানে মোট ৬ হাজার ৮৮৪ মেগাওয়াট ক্ষমতার ৩৪টি বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণাধীন রয়েছে। এসব কেন্দ্র ২০১৪ সাল হতে ২০১৮ সালের মধ্যে পর্যায়ক্রমে চালু হবে। আরও ৫ হাজার ৬৮৯ মেগাওয়াট ক্ষমতার ২৩টি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের দরপত্র প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। এলএনজি হতে আনোয়ারা, যশোর ও মহেশখালীতে মোট ৩ হাজার মেগাওয়াট এবং নিউক্লিয়ার হতে ১ হাজার মেগাওয়াট ক্ষমতার বিদ্যুৎ উৎপাদন প্রকল্প বাস্তবায়ন পরিকল্পনাধীন রয়েছে।

Leave a Reply

You must be logged in to post a comment.

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি এইচ, এম রহিমুজ্জামান সুমন
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ এস, এম নুরুল্ আমিন সরকার্
নির্বাহী সম্পাদকঃ নাজমুল হুদা পারভেজ
সম্পাদক কর্তৃক সারদা প্রেস, বাজার রোড, কুড়িগ্রাম থেকে মূদ্রিত ও উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম থেকে প্রকাশিত।
অফিসঃ উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম।
ফোনঃ ০৫৮২৫-৫৬০১৭, ফ্যাক্স: ০৫৮২৪৫৬০৬২, মোবাইল: ০১৭৩৩-২৯৭৯৪৩, ইমেইলঃ jugerkhabor@gmail.com
এই ওয়েবসাইট এর সকল লেখা,আলোকচিত্র,রেখাচ¬িত্র,তথ্যচিত্র যুগেরখবর এর অনুমতি ছাড়া হুবহু বা আংশিক নকল করা সম্পূর্ন কপিরাইট আইনে আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত যুগেরখবর.কম – ২০১৩-১৪