আজকের তারিখ- Tue-16-04-2024
 **   চিলমারীতে অষ্টমী স্নান মেলা কাল **   এমভি আবদুল্লাহকে জি‌ম্মি করা ৮ সোমালিয়ান জলদস্যু গ্রেপ্তার **   চিলমারীতে বাংলা বর্ষ বরণ অনুষ্ঠিত **   আন্তর্জাতিক চাপে নাবিকরা মুক্ত, মুক্তিপণ দেওয়ার তথ্য নেই: নৌ প্রতিমন্ত্রী **   বিএনপি এদেশের সাম্প্রদায়িকতার বিশ্বস্ত ঠিকানা : ওবায়দুল কাদের **   চিলমারীতে এসএসসি- ১৯৯০ এবং এসএসসি- ১৯৯২ ব্যাচের মধ্যে টি-টোয়েন্টি প্রীতি ক্রিকেট ম্যাচ অনুষ্ঠিত **   চিলমারী নদী বন্দর ঘাটে দেড়গুন নৌকা ভাড়া আদায়ের অভিযোগ **   সিডনিতে শপিং মলে ছুরি হামলা, নিহত অন্তত **   মনগড়া তথ্য দিয়ে নির্লজ্জ মিথ্যাচার করছে বিএনপি: ওবায়দুল কাদের **   ‘ফিতা কাটা’ নিয়ে সমালোচনার জবাব দিলেন অপু বিশ্বাস

রাজিবপুর নাওশালা আশ্রয় কেন্দ্রের মালামাল আত্মসাতের অভিযোগ

রৌমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি: কুড়িগ্রামের রাজিবপুর উপজেলার মোহনগঞ্জ ইউনিয়নে গত তিন বছর আগে নদী ভাঙ্গা ভ‚মিহীনদের জন্য সরকারী বরাদ্দে তৈরী করা হয়েছিল নাওশালা আশ্রয় কেন্দ্র। তিন বছর যেতে না যেতেই ব্রহ্মপুত্র নদের ভাঙ্গনের কবলে পড়ে আশ্রয় কেন্দ্রটি। আশ্রয় কেন্দ্রের ঘরগুলি নদীগর্ভে চলে যাওয়ার উপক্রম হলে সেগুলি ভেঙ্গে ফেলে আশ্রিতরা। ভাঙ্গা মালামাল প্রভাব খাটিয়ে জমা নেয় স্থানীয় ইউপি সদস্য নরুল হক। আশ্রিতদের ঘর ভাঙ্গার মজুরী দেয়ার কথা বলে মজুরী না দিয়ে আত্মসাৎ করে ওই ইউপি সদস্য।
এব্যাপারে রাজিবপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েও কোন ফল না পেয়ে সাংবাদিক বরাবর লিখিত অভিযোগ জমা দেন পত্রিকায় তুলে ধরতে। কেন অভিযোগ পেয়েও কোন ব্যবস্থা নেয়নি উপজেলা প্রশাসন? এমনটাই প্রশ্ন ভ‚ক্তভোগি আব্দুল হকের।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, আশ্রয় কেন্দ্রের ৭৫টি রুমের স্টীলের ২২৫টি দরজা, ১৫০টি জানালা, টয়লেটের ৯০টি দরজা, ১৫টি টিউবওয়েল, ১২৭৫টি রঙ্গিন ঢেউটিনসহ অগণিত ইট, রড ও অ্যাঙ্গেল আত্মসাৎ করেছে নুরুল হক মেম্বার ও তার সহযোগি কুকিল মন্ডল, আশরাফ আলী, আঃ রহিম, অফিজল হক। এছাড়া ঘর পাইয়ে দেওয়ার নাম করে সহযোগিদের মাধ্যমে ঘর প্রতি ৫ থেকে সাড়ে ৫ হাজার টাকা করে ঘুষ নেয়া হয়েছে। ঘুষ নিয়েও ঘর বরাদ্দ দেয়া হয়নি ১৮জন ভ‚ক্তভোগিকে।
ভ‚ক্তভোগি পরিবারের দাবী, আমরা নিঃস্ব, ভাঙ্গা ঘরগুলো আমাদের দিলে উপকার হত। তা না দিয়ে মেম্বার আত্মসাৎ করেছে। আমাদের মজুরীও দেয় নাই। অভিযোগ দিয়ে বিচারও পাই নাই। আমাদের থাকার জায়গাও নাই।
বিষয়টি নিয়ে নুরুল হক মেম্বারের নিকট জানতে চাইলে তিনি জানান, আমাকে কেউ টাকা দেয় নাই। গত বছর যে মালা-মাল ছিল সেটা বিক্রি করে শ্রমিক মজুরী দিয়ে শেষ হয়েছে। এবছর কে বা কারা ভেঙ্গে নিয়েছে তা আমি জানি না।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার নবীরুল ইসলাম বলেন, করোনা ভাইরাসের কারণে কোন পদক্ষেপ নেয়া হয়নি। বর্তমানে আমি ছুটিতে আছি। অফিসে এসে বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সম্পাদক ও প্রকাশকঃ এস, এম নুরুল আমিন সরকার
সম্পাদক কর্তৃক সারদা প্রেস, বাজার রোড, কুড়িগ্রাম থেকে মূদ্রিত ও মাচাবান্দা নামাচর, চিলমারী, কুড়িগ্রাম থেকে প্রকাশিত।
অফিসঃ উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম।
ঢাকা অফিসঃ শ্যাডো কমিউনিকেশন, ৮৫, নয়া পল্টন (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা- ১০০০।
ফোনঃ ০৫৮২৪-৫৬০৬২, মোবাইল: ০১৭৩৩-২৯৭৯৪৩,
ইমেইলঃ [email protected], [email protected]
এই ওয়েবসাইট এর সকল লেখা,আলোকচিত্র,রেখাচিত্র,তথ্যচিত্র যুগেরখবর এর অনুমতি ছাড়া হুবহু বা আংশিক নকল করা সম্পূর্ন কপিরাইট আইনে আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত যুগেরখবর.কম – ২০১৩-২০২৪
Design & Developed By ( Nurbakta Ali )