আজকের তারিখ- Wed-29-05-2024

সমৃদ্ধ দেশ গড়ার কাজ করে যাচ্ছে দেশবন্ধু: বাণিজ্যমন্ত্রী

যুগের খবর ডেস্ক: উন্নত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন বাস্তবায়নে কাজ করে যাচ্ছে দেশবন্ধু গ্রুপ। দেশের উত্তরাঞ্চলের মঙ্গাপীড়িত একটি জেলা থেকে উঠে আসা দেশবন্ধু গ্রুপের কর্ণধার একের পর এক শিল্পপ্রতিষ্ঠান গড়ে তুলে দেশে কর্মসংস্থান সৃষ্টি করে চলেছেন। দেশবন্ধু গ্রুপের ৩০ বছর পূর্র্তি উপলক্ষে রাজধানীর সেনা মালঞ্চে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি এসব কথা বলেন।
বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, দেশবন্ধু গ্রুপের কর্ণধাররা দেশের পিছিয়ে পড়া অঞ্চল থেকে উঠে এসেছেন। উত্তরবঙ্গের মানুষকে বলা হয় আয়োডিনের অভাবে বুদ্ধি কম। সেখান থেকে দেশের শিল্প-বাণিজ্যে অবদান রাখা ব্যতিক্রম। এ অঞ্চলের মানুষের মামা-চাচার জোর নেই। ৩০ বছরে দেশবন্ধু গ্রুপ যেভাবে উঠে এসেছে, তা সত্যিই অবাক করার মতো। দেশবন্ধু গ্রুপ কতদূর যাবে, তা জানি না; তবে তারা দেশে যে কর্মসংস্থান সৃষ্টি করেছে, তা সত্যিই সম্মানের যোগ্য।
বাণিজ্যমন্ত্রী আরও বলেন, উত্তরাঞ্চলের মানুষের কর্মসংস্থানের জন্য দেশবন্ধু গ্রুপ নীলফামারীতে ডেনিম কারখানা তৈরি করেছে। সেখানে অসংখ্য মানুষ কর্মরত রয়েছেন। তিনি মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদের একটি উক্তি উদ্ধৃত করে বলেন, মাহাথিরের উন্নয়নের পেছনে শক্তি কী ছিল? সেটির উত্তরে বলেছিলেন, কর্মসংস্থান, কর্মসংস্থান, কর্মসংস্থান। কর্মসংস্থান তৈরি করেছিল বলে মালয়েশিয়া আজ উন্নত বিশে^ উপনীত হয়েছে। তেমনটি দেশবন্ধু গ্রুপও আজ কর্মসংস্থান তৈরি করছে।
টিপু মুনশি বলেন, পেঁয়াজের সংকট যাতে দেশে না হয়, সেজন্য দেশবন্ধু গ্রুপ উন্নতমানের কোল্ডস্টোরেজ তৈরি করার পরিকল্পনা করছে। এটি নির্মিত হলে পেঁয়াজ দীর্ঘদিন সংরক্ষণ করা সম্ভব হবে। দেশে ভালো কিছু করার মানসিকতা দেশবন্ধু গ্রুপের রয়েছে। মন্ত্রী বলেন, ঘুমিয়ে স্বপ্ন দেখা আসলে স্বপ্ন নয়, স্বপ্ন হলো সেই জিনিস, যা মানুষকে ঘুমাতে দেয় না। বাংলাদেশ আজ পৃথিবীতে উন্নয়নের রোল মডেল। আমরাও স্বপ্ন দেখি, ২০৩০, ২০৪১ ও ২১০০ সালের। আগামী দুই বছরের মধ্যে দেশের গ্রোথ যাতে ডাবল ডিজিটে যায়, সে কামনা করেন তিনি।
বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, প্রতিটি ক্ষেত্রে দেশ আজ এগিয়ে যাচ্ছে। নতুন প্রজন্মের মানুষ ব্যবসা-বাণিজ্য করছে। দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম রপ্তানি খাত গার্মেন্টস শিল্প। সারা বিশ্বে১০টি গ্রিন ফ্যাক্টরি রয়েছে, যার সাতটিই বাংলাদেশে অবস্থিত। পৃথিবীর অনেক দেশই আজ বাংলাদেশের রোল মডেল অনুসরণ করছে।
মন্ত্রী বলেন, উত্তরাঞ্চলের মানুষকে মফিজ বলা হয়, যখন মফিজরা কিছু করে তখন খুবই ভালো লাগে। দেশের উত্তরাঞ্চলের মঙ্গাপীড়িত এলাকা নীলফামারীতে ডেনিম কারখানা তৈরি করে ব্যাপক কর্মসংস্থানের সুযোগ করে দিয়েছে দেশবন্ধু গ্রুপ। দেশবন্ধু গ্রুপ যাতে উন্নতির শৃঙ্গে উঠতে পারে, সে কামনা করেন বাণিজ্যমন্ত্রী।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভুঁইয়া বলেন, দেশের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছে দেশবন্ধু গ্রুপ। আগামী ২০২২ সালে ২৫ হাজার মানুষের কর্মসংস্থানের যে পরিকল্পনা দেশবন্ধু গ্রুপ নিয়েছে, তাদের এ কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়নে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) সার্বিক সহযোগিতা করবে বলে আশ^স্ত করেন তিনি। কর্মসংস্থান তৈরিতে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড সবাইকে সহযোগিতা করবে। তাকে এ অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানানোয় দেশবন্ধু গ্রুপকে ধন্যবাদ জানান তিনি।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিডা) নির্বাহী চেয়ারম্যান মো. সিরাজুল ইসলাম বলেন, দেশবন্ধু গ্রুপ বেসরকারি খাতে উন্নয়নে বড় ভূূমিকা রাখছে। তিনি নীলফামারীতে ডেনিম কারখানা গড়ে তোলেন। ডেনিম পোশাক তৈরি করে সেখানকার জনগণের জন্য বিশাল কর্মসংস্থানের পথ তৈরি করেছে দেশবন্ধু গ্রুপ। দেশে নতুন কর্মসংস্থানকে তিনি স্বাগত জানান। বিশেষ করে উত্তরাঞ্চলের পিছিয়ে পড়া কুড়িগ্রাম, রংপুর এলাকায় কারখানা তৈরি করাকে স্বাগত জানান তিনি। দেশের যেকোনো উন্নয়নে বিডা তাদের পাশে থাকবে বলে অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন সিরাজুল ইসলাম। বিডার দরজা তার জন্য সব সময় খোলা রয়েছে। দেশের উন্নয়নে বিডা তার সামর্থ্যরে সবটুকু ক্ষমতা প্রয়োগ করবে বলে জানান তিনি।
দেশবন্ধু গ্রুপের চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা বলেন, তিনি এক সময় চাকরি করতেন। ১৯৮৯ সালে তার বন্ধু রুমি ও তিনি ব্যবসা শুরু করেন। ট্রেডিংয়ের মাধ্যমে ব্যবসা শুরু হলেও পরে একে একে গড়ে তোলা হয় বিভিন্ন শিল্পপ্রতিষ্ঠান। রাপা প্লাজা, দেশবন্ধু সুগার মিলসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলে দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের অংশীদার হয়ে চলেছেন। তিনি জীবনে কোনো কাজে কখনও ফাঁকি দেননি। বঙ্গবন্ধু যে সোনার বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখেছিলেন সেটি বাস্তবায়িত হচ্ছে। বাংলাদেশ একদিন জাপানের মতো উন্নত দেশ হবে। কর্মময় জীবনে তার স্ত্রী অনেক সহযোগিতা করেছেন। তিনি এক সময় শিল্পপতি হবেন সেটি তার পিতা কখনও চিন্তা করেননি। তিনি দেশবন্ধু গ্রুপের ডিলার, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের স্বাগত জানান।
দেশবন্ধু গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক গোলাম রহমান বলেন, বাসস ভবনে দেড় রুমের কক্ষ নিয়ে তাদের ব্যবসা শুরু হয়। অনেক পথ পাড়ি দিয়ে আজ এখানে এসে দাঁড়িয়েছেন। মতিঝিলের বিভিন্ন অফিসে তিনি নানা কাজের জন্য যেতেন। কিন্তু কুড়িগ্রাম ও রংপুরের লোকজন সেখানে কর্মরত না থাকায় কোনো সহযোগিতা পাননি। পরে ব্যাংকগুলো তাদের সহযোগিতা করেছে। তাদের সহযোগিতায় আজ তারা দেশে শিল্পকারখানা তৈরিতে ভূমিকা রাখতে পেরেছেন।
বর্তমানে তাদের গ্রুপে প্রায় ১৫ হাজার লোকের কর্মসংস্থান রয়েছে। আগামী ২০২২ সালের মধ্যে তা ২৫ হাজারে উন্নীত করার পরিকল্পনা রয়েছে তাদের। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় অনুষ্ঠানস্থলে আসেন বাণিজ্যমন্ত্রী। ৬টা ৪৫ মিনিটে কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়।
এর আগে দেশবন্ধু গ্রুপের ৩০ বছর পূর্তি উপলক্ষে এ গ্রুপের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কর্মকাণ্ড জনগণের সামনে তুলে ধরা হয়। বিশেষ করে একের পর এক প্রতিষ্ঠান তৈরির মাধ্যমে যে কর্মসংস্থান তৈরি করেছে, সেটি তুলে ধরা হয়। এ প্রতিষ্ঠানের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনাও তুলে ধরা হয়।  অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথিদের মধ্যে ছিলেন- সেনাবাহিনীর সাবেক প্রধান লে. জেনারেল নূরউদ্দিন খান, কুয়েতের সাবেক রাষ্ট্রদূত, সাউথইস্ট ব্যাংকের চেয়ারম্যান, বিভিন্ন পদস্থ কর্মকর্তা। এছাড়া শিল্পপতি, রাজনীতিবিদ, বিদেশি অতিথি, সাংবাদিকসহ বিভিন্ন স্তরের লোকজন।
সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সম্পাদক ও প্রকাশকঃ এস, এম নুরুল আমিন সরকার
সম্পাদক কর্তৃক সারদা প্রেস, বাজার রোড, কুড়িগ্রাম থেকে মূদ্রিত ও মাচাবান্দা নামাচর, চিলমারী, কুড়িগ্রাম থেকে প্রকাশিত।
অফিসঃ উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম।
ঢাকা অফিসঃ শ্যাডো কমিউনিকেশন, ৮৫, নয়া পল্টন (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা- ১০০০।
ফোনঃ ০৫৮২৪-৫৬০৬২, মোবাইল: ০১৭৩৩-২৯৭৯৪৩,
ইমেইলঃ [email protected], [email protected]
এই ওয়েবসাইট এর সকল লেখা,আলোকচিত্র,রেখাচিত্র,তথ্যচিত্র যুগেরখবর এর অনুমতি ছাড়া হুবহু বা আংশিক নকল করা সম্পূর্ন কপিরাইট আইনে আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত যুগেরখবর.কম – ২০১৩-২০২৪
Design & Developed By ( Nurbakta Ali )