আজকের তারিখ- Tue-07-04-2020
 **   চলতি মাসে করোনার ব্যাপকতা বাড়তে পারে- সতর্ক থাকার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর **   বঙ্গবন্ধুর পলাতক খুনি আবদুল মাজেদ ঢাকায় গ্রেপ্তার **   করোনায় আরও ৩ মৃত্যু, শনাক্ত ৩৫ **   চিলমারীতে কষ্টে আছে নিম্ন আয়ের মানুষ : চাহিদার তুলনায় ত্রাণ সামগ্রী অপ্রতুল **   রৌমারীতে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের আরো দায়িত্বশীল হওয়ার আহবান গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রীর **   চিলমারীতে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু **   করোনায় আরও চার জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ২৯ **   রাজিবপুর ফেয়ারপ্রাইজ ডিলারদের ১০টাকা কেজি চাউল সরকারী খাদ্য গুদামে বিক্রি **   চিলমারীতে করোনা সংক্রমন রোধে সবুজপাড়া পাঠাগারের উদ্যোগে গরীব অসহায় মানুষের মধ্যে মাস্ক বিতরণ **   চিলমারীতে ৩ জনের নমুনা সংগ্রহ

শহীদ মিনারে বসে কাঁদলেন ছাত্রলীগকর্মীর মা-বাবা

যুগের খবর ডেস্ক: দু’সপ্তাহ আগে ঘাতকরা কেড়ে নিয়েছে বুকের ধনকে। সন্তানের স্বাভাবিক মৃত্যু হলে হয়তো মনকে এ ক’দিনে অনেকটাই শক্ত করতে পারতেন, সান্ত্বনা দিতে পারতেন। কিন্তু এ মৃত্যু যে যন্ত্রণার, বিষাদের আর ঘৃণার। তাই তো ভাষাশহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে এসে সন্তানকে মনে করে হু হু করে কেঁদে উঠলেন নিহত ছাত্রলীগকর্মী অভিষেকের মা-বাবা। শহীদ মিনারের পাদদেশে হতভাগা মা-বাবা কেঁদে কেঁদে যেন সন্তানকেই খুঁজছিলেন।

সরস্বতী পূজা নিয়ে কথা কাটাকাটির জেরে ৬ ফেব্রুয়ারি সিলেট নগরীর টিলাগড়ে খুন হন গ্রিনহিল স্টেট কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ছাত্রলীগকর্মী অভিষেক দে দ্বীপ।

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে শুক্রবার সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে আসেন অভিষেকের মা-বাবা। প্রভাতফেরির পর শহীদ মিনারে দাঁড়িয়ে তাদের বলতে শোনা যায়, ‘বাবু তুই কই গেলিরে। তুই আইছসনি শহীদ মিনারে। দেখ তর লাইগ্যা ফুল লইয়া আইছি। আমরারতো আর কেউ রইলো না রে।’ তাদের কান্না আর আকুতির আড়ালে ছেলে হত্যার বিচার চাওয়ার বিষয়টি স্পষ্ট হয়ে ওঠে। যদিও হত্যাকাণ্ডের দুই সপ্তাহ পর একজন ছাড়া আর কোনো আসামিকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

শুক্রবার সকাল থেকে সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ পুষ্পস্তবক অর্পণ করে। ওই সময় শহীদ মিনারের বেদির একপাশে বসে ছেলের ছবি বুকে নিয়ে বুক চাপড়াচ্ছিলেন অভিষেকের মা অনিতা ও বাবা দীপক দে।

অনিতা দে অভিযোগ করে বলেন, ‘আমার বাবুকে (অভিষেক) যখন হাসপাতালে নেওয়া হয়, তখন সৈকতও (অভিযুক্ত) হাসপাতালে ছিল। তাকে পুলিশ আটক করেনি। সে নিজেই ধরা দিয়েছে। এটা তাদের একটা চালাকি। ১৫ দিনেও পুলিশ কোনো আসামিকে ধরছে না।’

অভিষেকের বাবা দীপক দে হত্যাকারীদের ফাঁসি দাবি করে বলেন, ‘খুন হওয়ার পর জানতে পারি সরস্বতী পূজার কোনো ঘটনা নিয়ে নাকি আমার ছেলেকে হত্যা করেছে ওরা। সৈকত ছাড়া আর কোনো আসামিকে ধরতে পারেনি পুলিশ। কোন কারণে পুলিশ নীরব রয়েছে তা বুঝতে পারছি না।’

এ প্রসঙ্গে শাহপরান (রহ.) থানার ওসি আবদুল কাইয়ুম চৌধুরী বলেন, মামলার আসামিরা পলাতক রয়েছে। পুলিশ তাদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা করছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি এইচ, এম রহিমুজ্জামান সুমন
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ এস, এম নুরুল্ আমিন সরকার্
নির্বাহী সম্পাদকঃ নাজমুল হুদা পারভেজ
সম্পাদক কর্তৃক সারদা প্রেস, বাজার রোড, কুড়িগ্রাম থেকে মূদ্রিত ও উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম থেকে প্রকাশিত।
অফিসঃ উপজেলা পরিষদ মোড়, চিলমারী, কুড়িগ্রাম।
ফোনঃ ০৫৮২৫-৫৬০১৭, ফ্যাক্স: ০৫৮২৪৫৬০৬২, মোবাইল: ০১৭৩৩-২৯৭৯৪৩, ইমেইলঃ jugerkhabor@gmail.com
এই ওয়েবসাইট এর সকল লেখা,আলোকচিত্র,রেখাচিত্র,তথ্যচিত্র যুগেরখবর এর অনুমতি ছাড়া হুবহু বা আংশিক নকল করা সম্পূর্ন কপিরাইট আইনে আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত যুগেরখবর.কম – ২০১৩-১৯
Design & Developed By ( Nurbakta Ali )